শাবিতে অনলাইনে ট্রান্সক্রিপ্টের আবেদন প্রক্রিয়া পূর্ণাঙ্গভাবে শুরু

প্রকাশিত: ১:২৩ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০১৭

শাবিতে অনলাইনে ট্রান্সক্রিপ্টের আবেদন প্রক্রিয়া পূর্ণাঙ্গভাবে শুরু

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনের মাধ্যমে ট্রান্সক্রিপ্ট আবেদনের প্রক্রিয়া পূর্ণাঙ্গভাবে শুরু হয়েছে।ক্রিস ক্রস কম্পিউটারস এর সহায়তায় ডাচ বাংলা ব্যাংকের পেমেন্ট গেইটওয়ে এবং বিকাশের মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা এ সেবাটি ব্যবহার করতে পারে।

সোমবার দুপুর দেড়টায় শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান এ প্রজেক্টের সমন্বয়ক সৈয়দ রেজওয়ানুল হক। এসময় উপস্থিত ছিলেন শাবি প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মনসুর, সহ-সভাপতি জাহিদ হাসান, সাধারণ সম্পাদক ফয়জুল্লাহ ওয়াসিফ, যুগ্ম সম্পাদক সাইফ সায়েম প্রমুখ। এ প্রজেক্টটির তত্ত্ববধায়ক কম্পিউটার সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আবু আউয়াল মোহাম্মদ শোয়েব এবং মূল উদ্যোক্তা ইমতিয়াজ উদ্দিন আহমেদ।

সৈয়দ রেজওয়ানুল হক এক লিখিত বক্তব্যে জানান, গত ২০১৩ সালের জুলাই মাসে শাবিতে অনলাইনের মাধ্যমে পরীক্ষামূলকভাবে ই-পেমেন্ট চালু করা হয়। বর্তমানে এ প্রক্রিয়াটি পূর্ণাঙ্গভাবে চালু হয়েছে। এর ফলে শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রকের অফিসে না যেয়েই নিজেদের ট্রান্সক্রিপ্ট জন্য আবেদন করতে পারবেন।

অনলাইনে একজন আবেদনকারী দেশী-বিদেশী যেকোন ব্যাংকের ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ডের মাধ্যমে ট্রান্সক্রিপ্টের জন্য নির্দিষ্ট ফি প্রদান করে দেশ-বিদেশের যেকোন ঠিকানায় কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে পৌঁছে যাবে। অতিরিক্ত এ সেবার জন্য ট্রান্সক্রিপ্ট র্নিদিষ্ট ফি এর পাশাপাশি আবেদনকারীকে একটি সার্ভিস ফি দিতে হবে।

তিনি জানান, এতোদিন সেবাটি পরীক্ষামূলক ছিল বিধায় শুধুমাত্র শাবির শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারতেন। যা এখন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত সিলেট ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ, সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ, রাগিব রাবেয়া মেডিকেল কলেজ, সিলেট ওমেন্স মেডিকেল কলেজসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদন প্রক্রিয়া সম্পর্কে তিনি জানান, অনলাইনে আবেদন করার পর আবেদনকারীকে ইমেইলে তাদের রসিদ ও একটি টোকেন নাম্বার পাঠিয়ে দেয়া হবে। পরবর্তীতে যখন তাদের ট্রান্সক্রিপ্টটি প্রস্তুত হয়ে যাবে তখন আরেকটি ইমেইলে তাদেরকে জানানো হবে। তাছাড়া আবেদনকারীর যেকোন সময় ক্রিস ক্রস কম্পিউটারস এর ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজেদের টোকেন নাম্বার দিয়ে তাদের এপ্লিকেশন স্ট্যাটাস দেখতে পারবেন।

তিনি আরও জানান, যারা কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে দেশে বা দেশের বাইরে ট্রান্সক্রিপ্টটি পেতে ইচ্ছুক তাদেরকে ক্রিস ক্রস কম্পিউটারস ইমেইলের মাধ্যমে কুরিয়ারের নাম ও ট্রাকিং নাম্বার প্রদান করে থাকে। এর ফলে একজন আবেদনকারী প্রতিমুহূর্তে তার ট্রান্সক্রিপ্টের অবস্থান ও ডেলিভারির তারিখ জানতে পারবেন। এসেবার মাধ্যমে কোন আবেদনকারী বিদেশের কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে ট্রান্সস্ক্রিপ্ট পাঠালে ঐ ট্রাকিং নাম্বার ব্যবহার করে নিজেরাই জানতে পারেন যে ট্রান্সক্রিপ্ট সঠিকভাবে সময় মতো পৌঁছেছে কিনা।

অনলাইনের মাধ্যমে ট্রান্সক্রিপ্টের আবেদন করতে http://www.sust.edu/epayment বা http://www.crisscrossbd.com/sust ঠিকানায় যেতে হবে। ভবিষ্যৎতে শিক্ষার্থীরা অনলাইন পেমেন্টের মাধ্যমে সেমিস্টার ও ক্রেডিট ফি প্রদান করতে পারবেন। এ ব্যাপারে বিস্তারিত জানতে যেকোন আগ্রহী প্রতিষ্ঠান বা আবেদনকারী ০১৭১৬৩৮৮০৩৮ মোবাইল নাম্বারে বা info@crisscrossbd.com ইমেইলে যোগাযোগ করার অনুরোধ জানান।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট