শেখ রাসেল হত্যার মত নির্মম ঘটনা গোটা জাতিকে অপরাধী করে দেয় : মিসবাহ সিরাজ

সিলেট বিভাগ

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেছেন, ‘পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলকে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়েছিল। ঘাতকদের নির্মম বুলেটের আঘাত থেকে সেদিন রক্ষা পায়নি আট বছরের শিশু রাসেল। বঙ্গবন্ধুর সাথে হায়নারা ওইদিন নিষ্ঠুরভাবে তাকেও হত্যা করেছিল। যা বিশ্বের ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা। শিশু হত্যার মত এই নির্মম ঘটনা আমাদের গোটা জাতিকে অপরাধী করে দেয়। আজ শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে একজন পূর্ণাঙ্গ মানুষ হিসেবে দেশ ও জাতির কল্যাণে অগ্রণী ভ‚মিকা রাখতো।’
গতকাল শনিবার বিকেলে জেলা পরিষদ মিলনায়তনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ সন্তান শেখ রাসেলের ৫৩তম জন্মদিন উপলক্ষে সিলেট জেলা ও মহানগর কৃষকলীগ আয়োজিত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
মহানগর কৃষকলীগের সভাপতি আব্দুল মুমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মিসবাহ সিরাজ আরো বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর প্রিয় সংগঠন ছিল কৃষকলীগ। তিনি কৃষকদের কথা সব সময় ভাবতেন। এ কারণে কৃষকদের অধিকার আদায়ের জন্য কৃষকলীগের প্রতিষ্ঠা করেন। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বাস্তবায়নে কৃষকলীগের নেতাকর্মীদের শেখ হাসিনার অন্যতম ভ্যানগার্ড হয়ে কাজ করতে হবে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।’
এছাড়া আওয়ামী লীগের সদস্য সংগ্রহ ও নবায়ন কর্মসূচিতে সক্রিয়ভাবে কাজ করার পাশাপাশি স্বাধীনতা বিরোধী বিএনপি-জামায়াত চক্র যেন আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশ করতে না পারে সেদিকে সকল নেতাকর্মীদের সজাগ থাকার আহŸানও জানান তিনি।
জেলা কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যক্ষ শামসুল ইসলাম ও মহানগর কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক রাসেলের যৌথ পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য শফিকুর রহমান চৌধুরী, মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালিক, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন আহমদ, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক জাকির হোসেন, শ্রমিকলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ও জেলা সভাপতি প্রকৌশলী এজাজুল হক এজাজ, মহানগর আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক তপন মিত্র, মহানগর আওয়ামী লীগের সাংস্কৃতিক সম্পাদক প্রিন্স ছদরুজ্জামান চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য বদরুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, মহানগর কৃষকলীগের যুগ্ম সম্পাদক আঙ্গুর মিয়া, মহানগর শ্রমিক লীগের সভাপতি শাহরিয়া কবির সেলিম, সিলেট জেলা সিএনএফ এজেন্ট গ্রæপের সাধারণ সম্পাদক ও মহানগর কৃষকলীগের সহ সভাপতি মো. বশিরুল হক। অনুষ্ঠানে মোনাজাত পরিচালনা করেন জেলা কৃষকলীগ সভাপতি শাহ নিজাম উদ্দিন।
এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- মহানগর কৃষকলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি শাহ আহমদুর রব, মহানগর কৃষকলীগের সহ সভাপতি মঞ্জুর আলম, মহানগর কৃষকলীগের যুগ্ম সম্পাদক শমসের সিরাজ সোহেল, মহানগর কৃষকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইমরান খান রায়হান, মহানগর কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সার্জেন্ট আবুল হোসেন, মহানগর কৃষকলীগের সদস্য নুরুল ইসলাম ইছন, মহানগর কৃষকলীগের সদস্য জমীর উদ্দিন টুনু, মহানগর সদস্য অজিত কুমার, মহানগর কৃষকলীগের সদস্য কয়েস চৌধুরী, আশফাক উদ্দিন আহমদ, মহানগর কৃষক লীগের সদস্য শোয়েব লস্কর, জেলা কৃষকলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব দুদু মিয়া, জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম সম্পাদক জায়েদ আলী, জেলা কৃষকলীগের ত্রাণ বিষয়ক সম্পাদক শামীম কবির, যুক্তরাজ্য যুবলীগের সভাপতি মিসবাহ আহমদ, জেলা কৃষকলীগের সদস্য ফখরুল ইসলাম, কানাইঘাট পৌরসভার সাবেক মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের আহŸায়ক লুৎফুর রহমান, জকিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাকিম হায়দার, জৈন্তাপুর উপজেলা কৃষকলীগের আহŸায়ক আব্দুল মান্নান, কানাইঘাট উপজেলা কৃষকলীগের আহŸায়ক শাহাব উদ্দিন চৌধুরী, জকিগঞ্জ উপজেলা কৃষকলীগের আহŸায়ক আব্দুল আহাদ, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি মোহাম্মদ আলী, গোলাপগঞ্জ উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি ইসমাইল আলী, বিয়ানীবাজার উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি জমির উদ্দিন, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি হাজী খলিলুর রহমান, বিশ্বনাথ উপজেলা কৃষকলীগের সাধারণ সম্পাদক বদরুল ইসলাম, কানাইঘাটের বড়চতুল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মুবশ্বির আলী চাচাই, কানাইঘাটের দিঘীরপাড় পূর্ব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আলী হোসেন কাজল, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল ইসলাম, সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক সুহেল আহমদ শাহেল প্রমুখ।
উক্ত আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে আওয়ামী লীগ, সহযোগী, ভ্রাতৃপ্রতিম ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply