সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির মিছিলে উত্তাল নগরী

সিলেট বিভাগ

বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্ঠা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির বলেছেন- অবৈধ আওয়ামী দুঃশাষনে দেশ ও জাতি চরম ক্রান্তিকাল অতিবাহিত করছে। বাকশালী সরকার গনতন্ত্রকে ধ্বংস করেই ক্ষান্ত হয়নি, তিন বারের সাবেক সফল প্রধানমন্ত্রী আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে নতুন ষড়যন্ত্রের জাল বুনছে। গণতন্ত্রের ফিনিক্স পাখি বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে নিয়ে যে কোন ষড়যন্ত্র অতীতের ন্যয় রুখে দিতে দেশপ্রেমিক জনতা ঐক্যবদ্ধ। সময় থাকতে সরকারের শুভ বুদ্ধির উদয় না হলে স্বৈরাচারী শাসককে কড়া মুল্য দিতে হবে। গনতন্ত্র পুনরুদ্ধারে নেতৃত্ব দেয়ায় বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ান জারি আওয়ামীলীগের নির্লজ্জ রাজনৈতিক প্রতিহিংসার নগ্ন বহিঃপ্রকাশ। দেশনেত্রীকে বাদ দিয়ে বাংলার মাটিতে যে কোন নির্বাচনের ষড়যন্ত্র জাতি নস্যাৎ করবেই। অবিলম্বে এই ষড়যন্ত্রমুলক গ্রেফতারী পরোয়ানা প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় জনতার শান্তিপুর্ণ প্রতিবাদ গণবিষ্পোরনে রুপ নিবে।
তিনি গতকাল শনিবার বিএনপির কেন্দ্র ঘোষিত দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসুচীর অংশ হিসেবে আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্রমুলক মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারির প্রতিবাদে সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিল পুর্ব বিশাল সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা বলেন। বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীদের অসংখ্য খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে আসায় সমাবেশস্থল নগরীর ঐতিহাসিক কোর্ট পয়েন্ট লোকে লোকারন্য হয়ে যায়। সমাবেশটি এক পর্যায়ে জনসমুদ্রে পরিনত হয়। বিক্ষোভ সমাবেশ শেষে উপস্থিত হাজার হাজার নেতাকার্মীদের উপস্থিতিতে বিশাল মিছিল নগরীর রেজিষ্ঠারী মাঠ থেকে শুরু হয়ে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কোর্ট পয়েন্টে গিয়ে সংক্ষিপ্ত সমাবেশের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন উপস্থিত নেতৃবৃন্দ।
বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সিলেট জেলা সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীমের সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক আলী আহমদের পরিচালনায় ঐতিহাসিক রেজিস্টারি মাঠে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও সাবেক এমপি আলহাজ্ব শফি আহমদ চৌধুরী, সিলেট মহানগর বিএনপি সভাপতি নাসিম হোসাইন ও সাধারন সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম।
সভাপতির বক্তব্যে আবুল কাহের চৌধুরী শামীম বলেন- দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে একের পর এক ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করে সরকার দেশকে গভীর সংকটের দিকে ঠেলে দিচ্ছে। এজন্য সরকারকে কঠোর মুল্য দিতে হবে। দেশনেত্রীকে গ্রেফতারের ষড়যন্ত্র করা হলে দেশে আগুন জ্বলবে। অবিলম্বে ঐসব গ্রেফতারী পরোয়ান প্রত্যাহার না করলে অবৈধ সরকারকে গণরোষে বিদায়ের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে।
সিলেট মহানগর সভাপতি নাসিম হোসাইন বলেন- তিন বারের সাবেক সফল প্রধামন্ত্রীর বিরুদ্ধে একাধিক ষড়যন্ত্রমুলক মিথ্যা মামলায় গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি অবৈধ আওয়ামী সরকারে রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বের বহিঃপ্রকাশ। সময় থাকতে তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় না হলে বাকশালীদের লজ্জাজনক পরিনতির জন্য তৈরী থাকতে হবে।
মহানগর সাধারন সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম বলেন- গোটা জাতি যখন সকল দলের অংশ গ্রহনে একটি অবাধ সুষ্ঠু জাতীয় নির্বাচনের জন্য স্বোচ্ছার হচ্ছে, ঠিক সেই মুহুর্তে জনগণের দৃষ্ঠি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতেই বিএনপি চেয়ারপার্সনের বিরুদ্ধে এসব গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করা হয়েছে। অতীতের ন্যায় বাকশালীদের সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করতে জাতীয়তাবাদী শক্তি দেশপ্রেমিক জনতাকে সাথে নিয়ে দুর্বার প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তুলতে বাধ্য হবে।

বিশাল বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশে সিনিয়র নেতৃবৃন্দের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সহ-সভাপতি হুমায়ুন কবির শাহীন, সালেহ আহমদ খছরু, আব্দুস সত্তার, শাহ জামাল নুরুল হুদা, আব্দুল আলীম দীপক, আব্দুল ফাত্তাহ বকসী, জেলা উপদেষ্টা মাজহারুল ইসলাম ডালিম, আজির উদ্দিন চেয়ারমান, সৈয়দ বাবুল হোসেন, সাঈদুর রহমান বুদুরী, যুগ্ম-সম্পাদক ইমদাদ হোসেন চৌধুরী, মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়সল, মামুনুর রশিদ মামুন, ইশতিয়াক আহমদ সিদ্দিকী, জেলা বিএনপির কোষাধ্যক্ষ ডাঃ আরিফ আহমেদ মোমতাজ রিফা, আলী হোসেন বাচ্চু, নজিবুর রহমান নজিব, কামরুল হাসান শাহীন, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাশেম, শামীম আহমদ, মহানগর সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ তৌফিকুল হাদী, মুকুল আহমদ মুর্শেদ, জেলা দফতর এডভোকেট ফখরুল হক, জেলা বিএনপির প্রচার সম্পাদক নিজাম ইউ জায়গীরদার, মহানগর বিএনপির প্রচার সম্পাদক শামীম মজুমদার, জেলা প্রকাশনা সম্পাদক এডভোকেট আল আসলাম মুমিন, মহানগর প্রকাশনা সম্পাদক জাকির আহমদ মজুমদার, ক্রীড়া বিষয়ক আনোয়ার হোসেন মানিক, যুব বিষয়ক সম্পাদক মির্জা বেলায়েত হোসেন লিটন, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক ইউনুস মিয়া, স্বেচ্ছাসেবক সম্পাদক হাবিব আহমদ সিলু, মহানগর স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ আশরাফ আলী, জেলা স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক আ ফ ম কামাল, মহানগর পরিবার কল্যাণ সম্পাদক লল্লিক আহমদ চৌধুরী, তথ্য গবেষনা সম্পাদক সোয়াদুর রব চৌধুরী, তাঁতি বিষয়ক সম্পাদক ওহিদ আহমদ তালুকদার , মৎস্য বিষয়ক সম্পাদক আলী আকবর, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সাইদ আহমদ, সমবায় সম্পাদক মামুনুর রহমান মামুন, পল্লী সমবায় সম্পাদক আব্দুল জব্বার তুতু, মুক্তিযোদ্ধা সম্পাদক আক্তার হোসেন ভুইয়া মিন্টু, উপ কোষাধ্যক্ষ শেখ মো. ইলিয়াস আলী, জেলা সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, মহানগর খছরুজ্জামান, সহ-দপ্তর সম্পাদক লোকমান আহমদ, সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মালেক,জেলা পরিবার কল্যাণ সম্পাদক আইয়ুব আলী সজীব, সহ-মানবাধিকার সম্পাদক সেলিম আহমদ রণি, সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা. এম এ হক বাবুল, সহ-ত্রাণ ও পূর্নবাসন সম্পাদক আব্দুর রহিম মল্লিক, সহ-সমবায় সম্পাদক শরীফ উদ্দিন মেহদী, সহ-গণশিক্ষা সম্পাদক আলী হায়দার মজনু,  সহ-ক্ষুদ্র সম্পাদক খোকন ইসলাম, সহ-শিশু বিষয়ক সম্পাদক মঈন উদ্দিন, সহ-শিল্প সম্পাদক নজির হোসেন, সহ-তথ্য সম্পাদক আমিনুর রহমান খোকন, শরীফ উদ্দিন মেহেদী, সহ-যোগাযোগ সম্পাদক উজ্জ্বল রঞ্জন চন্দ্র, সহ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক কয়েস আহমদ সাগর, সদস্য আব্দুস সবুর, আব্দুস সোবহান, মোতাহির মাখন, জাহেদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর, সাইদুর রহমান সাঈদ, এস এম মোজাম্মিল আলী, সেলিম জালালাবাদী, জুয়েল আহমদ জুয়েল, এম মখলিছ খান, শেখ কবির আহমদ, আব্দুল খালিক, সেলিম আহমদ, কাজী নঈমুল ইসলাম, নুরুল ইসলাম লিমন, সাহেদ আহমদ, ময়নুল ইসলাম মঞ্জু, মকসুদুল করিম নুহেল, শফিক নূর,মাসুদ আলী মাছুম, ছাত্রদল নেতা লিটন আহমদ, নজরুল ইসলাম, খসরুজ্জামান খসরু, আব্দুল মালেক, হেলাল মিয়া, আবু সুফিয়ান, ছাত্রদল নেতা দেলোয়ার হোসেন নাদিম, আবু বকর সিদ্দিকী বাবু, দেলওয়ার হোসেন রানা, আলী আহমদ আলম, মইন উদ্দিন, মাছুম আহমদ লশকর, রিয়াদুল হাসান রুহেল, মাহবুব আহমদ চৌধুরী সহ বিশাল বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশে বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদল সহ অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের হাজার হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply