আদালতের ক্যান্টিন ভাঙচুরের মামলায় দুই জনের ৫ বছরের কারাদণ্ড

সিলেট বিভাগ

গত রমজান মাসে দিনের বেলায় সিলেট আদালতের দুটি খাবার ক্যান্টিনে হামলা চালিয়ে ভাঙচুরের ঘটনার মামলায় দুই হামলাকারীকে ৫ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড এবং ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো ১ মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার সিলেট চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো: সাইফুজ্জামান হিরো এ রায় প্রদান করেন।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হচ্ছে- সিলেটের ওসমানীনগর থানার মোল্লাপাড়ার আব্দুর রাজ্জাক উরফে রজাকের ছেলে শাহ মো: আব্দুর রহিম (২৯) ও হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর থানার বাদাঘাট এলাকার রতনপুর গ্রামের সাহেব আলীর ছেলে মো: দুলাল মিয়া (২৫)। রায় ঘোষণার সময় আসামীরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানা গেছে, চলতি বছরের রমজান মাসের ১৫ জুন সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে হঠাত দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্রে সঞ্জিত হয়ে বেশ কিছু দুর্বৃত্তরা সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির ২ নং বার হলের পিছনের ক্যান্টিন ও পরে তারা ডিসি কালেক্ট্ররেট ক্যান্টিনে হামলা ভাংচুর ও লুটপাট চালিয়ে ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকার ক্ষয়ক্ষতি করে এবং ক্যান্টিন ম্যানেজার ও কর্মচারীদের আহত করে। এ সময় আইনজীবীদের সহায়তায় পুলিশ আসামী আব্দুর রহিম ও দুলাল মিয়াকে গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির ২ নং বার হলের পিছনের ক্যান্টিনের ম্যানেজার মো: পাবেল আহমদ বাদি হয়ে কোতোয়ালী থানায় দ্রুত বিচার আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। নং-২১ (১৫-০৬-১৭)।

দীর্ঘ তদন্ত শেষে একই বছরের ২৮ জুন কোতোয়ালী থানার এসআই মো: আকবর হোসাইন ভূঁইয়া ২ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করেন এবং ৩ আগষ্ট থেকে আদালত এ মামলার বিচারকায্য শুরু করেন। দীর্ঘ শুনানী ও ১১ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত আসামী আব্দুর রহিম ও দুলাল মিয়াকে ৫/৪ আইন শৃঙ্খলা বিঘœকারী অপরাধ (দ্রুত বিচার) আইন, ২০০২ সংশোধনী ২০০৯ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে তাদেরকে উল্লেখিত দন্ডাদেশ প্রদান করা হয়।

রাষ্ট্রপক্ষে এপিপি এডভোকেট মাহফুজুর রহমান ও আসামীপক্ষে এডভোকেট মো: শাহজাহান সোজা মামলাটি পরিচালনা করেন।

Leave a Reply