নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের পাশে থাকার ঘোষণা তুর্কি ফার্স্ট লেডির

জাতীয়

কক্সবাজার : মায়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নির্যাতিত হয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের পাশে থেকে সব ধরনের সহযোগীতা করার ঘোষণা দিয়েছেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডি এমিনি এরদোগান।

বৃহষ্পতিবার কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির পরিদর্শন শেষে বাংলাদেশ সফররত তুর্কি ফাস্ট লেডি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি বলেছেন, ‘বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের পাশে থাকবে এবং সব রকমের সহযোগিতা করবে তুরস্ক সরকার।’

মায়ানমার থেকে পালিয়ে আসা নির্যাতিত রোহিঙ্গা মুসলিমদের আশ্রয় দেওয়ার জন্য বাংলাদেশ সরকার এবং বাংলাদেশের জনগণকেও ধন্যবাদ জানিয়েছেন তুর্কি ফার্স্ট লেডি। রোহিঙ্গা মুসলমানদের পাশাপাশি স্থানীয় অধিবাসীদের জীবনমান উন্নয়নেও তুরস্ক সাহায্যের হাত সম্প্রসারিত করবে বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

এর আগে বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের অবস্থা পরিদর্শন করতে বৃহস্পতিবার কক্সবাজারের উখিয়া কুতুপালং রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্পে পৌঁছেন তুরস্কের ফার্স্ট লেডি এমিনি এরদোগান। বেলা ১২টার দিকে তিনি তুরস্কের একটি বিশেষ বিমানে কক্সবাজার বিমানবন্দরে এসে পৌঁছান। সেখান থেকে সড়ক পথে প্রথমে উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে যান। এ সময় তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেগলুত কাভাসোগলু, বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী ও পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম তার সঙ্গে ছিলেন। দুপুর দেড়টায় তুরস্কের ফাস্ট লেডি এমিনি উখিয়ার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পে  পৌঁছান। এ সময় ক্যাম্পের দেশি-বিদেশি কর্মকতারা তাকে স্বাগত জানান।

Leave a Reply