গোলাপগঞ্জে গ্রামের নাম পরিবর্তন নিয়ে উত্তেজনা

প্রকাশিত: ১:৩৬ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৪, ২০১৭

গোলাপগঞ্জে গ্রামের নাম পরিবর্তন নিয়ে উত্তেজনা

সিলেটের গোলাপগঞ্জে একটি গ্রাম ও মহল্লার নাম পরিবর্তন চেষ্টায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। গ্রামের ঐতিহাসিক ও রেকর্র্ডীয় নাম পরিবর্তন করে ব্যক্তিনামে নামকরন করায় এ উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এ নিয়ে যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকা রয়েছে। শান্তি শৃংখলা রক্ষার্থে এলাকাবাসী গত শনিবার (৮জুলাই) গোলাপগঞ্জ থানায় লিখিত আবেদন করেছেন।
জানা গেছে, গোলাপগঞ্জ উপজেলার কায়স্থগ্রামে নাশাগঞ্জ নামে একটি মহল্লা আছে। এ নামে সুূদূর ব্রিটিশ আমল থেকে একটি বাজার, মসজিদ ও কবরস্থান রয়েছে। অতি সম্প্রতি কায়স্তগ্রাম নাশাগঞ্জ এর মরহুম তোয়াহিদ আলীর পুত্র ফখরুল ইসলাম সহযোগীদের নিয়ে গ্রামের নাশাগঞ্জ জামে মসজিদ নামে রেকর্ডীয় ছাপা ৪১৬ দাগের ১০ শতক ভ’মি জবরদখল করে নেন। পরে ফখরুল ওই স্থানে গেইট বানিয়ে তার পিতামহ সাজিদ-এর নামে গ্রামের কবরস্থানের নামকরন করেন ‘সাজিদনগর পারিবারিক কবরস্থান’। ঐতিহাসিক নাশাগঞ্জ জামে মসজিদ ও নাশাগঞ্জ কবরস্থান-এর পরিবর্তে ব্যক্তি সাজিদ-এর নামে কবরস্থান-এর নামকরন করায় গ্রামের ঐতিহাসিক নাম পরিবর্তন হয়ে গেছে। এতে গ্রামবাসী ব্যক্তির নামে গ্রামের নামকরনের তীব্র প্রতিবাদ জানান। প্রতিবাদ করায় ফখরুল গ্রামবাসীকে হামলা ও মামলা দিয়ে, এমনকি অন্যভাবেও হয়রানী করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গ্রামের এ থমথমে অবস্থার খবর পেয়ে গোলাপগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে। এ সময় উভয়পক্ষকে সংযত থাকার আহŸান জানায় পুলিশ।
গ্রামের নাম পরিবর্তন করে প্রয়াত ব্যক্তি সাজিদ-এর নামে সাজিদনগর নামকরণ করার প্রতিবাদ করেছেন গোলাপগঞ্জ থানার কায়স্থগ্রামসহ নাশাগঞ্জের সর্বস্তরের মানুষ। গ্রামের শত শত মানুষ নিজ স্বাক্ষরে থানা পুলিশের কাছে দেয়া এক আবেদনে গ্রামের নাম পরিবর্তনের প্রতিবাদ জানান। পাশাপাশি কবরস্থানের নাম কায়স্তগ্রাম-নাশাগঞ্জ কবরস্থান করার এবং ব্যক্তিনামে নামকরণের অপতৎপরতা রোধে ব্যবস্থা গ্রহনের জোর দাবি জানান। গোলাপগঞ্জ থানা পুলিশ গ্রামবাসীর লিখিত অভিযোগ প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করেছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট