বিএনপিকে দমনে ইলিয়াসকে গুম করা হয়েছে : লুনা

প্রকাশিত: ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ, জুন ২৯, ২০১৭

বিএনপিকে দমনে ইলিয়াসকে গুম করা হয়েছে : লুনা

বিএনপির চেয়ারর্পাসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্ঠা ও নিখোঁজ বিএনপি নেতা ইলিয়াস আলী স্ত্রী তাহসিনা রুশদি লুনা বলেছেন, বর্তমানে সংসদে যেসকল এমপি রয়েছেন,তারা কেউ জনগনের ভোটে নির্বাচিত নয়। জনগনের ভোটে যদি কেউ নির্বাচিত না হয়, তাহলে জনগনের প্রতি তাদের কোনো দায়বদ্ধতা থাকেনা। তারা জনগনের ভোট নেয়নি, তাই এলাকার উন্নয়নেও তাদের দায়বদ্ধতা নেই।
তিনি বলেন, বর্তমান সংসদে বিরোধী দলের ভূমিকায় রয়েছে জাতীয় পার্টি। কিন্তু সংসদে বিরোধীদলের ভূমিকা কি তাও জনগন জানে। জাতীয় পার্টিও কয়েকভাগে বিভক্ত রয়েছে। তারা সরকারের গৃহপালিত বিরোধীদল।
লুনা বলেন, ইলিয়াস আলী ছিলেন একজন জাতীয় রাজনীতিবিদ। তাকে যখন গুম করা হল, তখন আমাদের পরিবার তথা দেশবাসী হতাশ হয়ে পড়েন। ইলিয়াস আলী সিলেটের বিএনপিকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী করেছিলেন। তিনি ঘরে ঘরে গিয়ে বিএনপিকে সংগঠিত করেন। ফলে সিলেটে বিএনপি একটি শক্তিশালী সংগঠনে রুপ নেয়।
ইলিয়াস আলী যখন এমপি ছিলেন, তখন তার নির্বাচিনী এলাকা বিশ্বনাথ-বালাগঞ্জ-ওসমানীনগরে ব্যাপক উন্নয়ন উপহার দিয়েছিলেন। সিলেট বিএনপির সঙ্গে যখন আওয়ামী লীগ রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়, তখনই বিএনপিকে দমন করার জন্য ইলিয়াস আলীকে গুম করা হয়েছে।
তিনি বলেন, স্বাধীনতার জন্য এদেশের লক্ষ লক্ষ মানুষ যুদ্ধ করেছে। স্বাধীন দেশে একজন জাতীয় রাজনীতিবিদ গুম হলে তার সন্ধান পাওয়া যায় না। এটা কোনো অবস্থাতে মেনে নেয়া যায় না। এখন পর্যন্ত সরকার স্পষ্টভাবে ইলিয়াস আলী কোথাও আছেন বলেনি।
তিনি গত মঙ্গলবার বিশ্বনাথের দৌলতপুর ইউনিয়নে সিংরাওলী গ্রামে প্রবাসী বিএনপি নেতা হিরন মিয়ার উদ্যোগে ঈদপূর্ণমিলনী ও যোগদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য এসব কথা বলেন।
বিএনপি নেতা আবারক আলী চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে ও দৌলতপুর ইউপি বিএনপির সাধারণ সম্পাদক হাফিজ আরব খানের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিলেট জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি ও বিশ্বনাথ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সুহেল আহমদ চৌধুরী, বিশ্বনাথ উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক লিলু মিয়া চেয়ারম্যান, যুগ্ম-সম্পাদক আবদুল হাই, খাজাঞ্চি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান তালুকদার গিয়াস উদ্দিন, বিএনপি নেতা আবরক আলী মেম্বার, জাহেদুল ইসলাম, যোগদানকারী আবুল কালাম, যুবদল নেতা আবদুল মুমিম মামুন মেম্বার, আবু সুফিয়ান, উপজেলা ছাত্রদলের আহবায়ক মতিউর রহমান সুমন, সদস্য আবদুর রহমান খালেদ, জেলা ছাত্রদল নেতা ফাহিম আহমদ, বিশ্বনাথ ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদলের সভাপতি রাসেল আহমদ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন আবু তাহের মিছবাহ। অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন ক্বারী সেলিম আহমদ।
এসময় উপস্থিত ছিলেন সিলেট জেলা বিএনপির যুগ্ম-সম্পাদক ময়নুল হক, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধাদলের সদস্য সচিব কলমদর আলী, বিএনপি নেতা আলহাজ্ব মো.নজরুল ইসলাম, খলিলুর রহমান, আনসার আলী, আকবর আলী, সেবুল মিয়া, আবদুল হামিদ, আবদুল জব্বার, লুৎফুর রহমান লালা, উস্তার খান, মনোহর আলী, আলতাব আলী, আবদুন নূর, মিছবাহ উদ্দিন, ইন্তাজ আলী, আফরোজ আলী, শফিক মিয়া, আবু সালেহ, মাহমদ আলী, মুনসুর আহমদ, সাহেদ আহমদ, আখতার হোসেন,আলী বাহার, নূর উদ্দিন, বশির মিয়া, রফিক মিয়া, আমিনুর রহমান চুনু, উপজেলা যুবদলের যুগ্ম-আহবায়ক শামিমুর রহমান রাসেল, নানু মিয়া, আবদুল লতিফ, বাবুল মিয়া, ছৈয়দ মিয়া, সৌরভ আহমদ লাকি, ছাদিক মিয়া, আজমান আলী, ছাদিকুর রহমান, শাহ আমির আলী, সিলেট জেলা ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ ডালিম আহমদ, সদস্য ফাহিম আহমদ, উপজেলা ছাত্রদল নেতা রুহেল আহমদ কালু, আবদুল বাছির, শিব্বির আহমদ, ফাহিম আহমদ, আবদুস সালাম, কুতুব উদ্দিন রানা, কিরণ বৈদ্য, দিলোয়ার হোসেন সজিব, সুজেল আহমদ, ময়নুল ইসলাম, সাজ্জাদ মিয়া, আবুল খয়ের, এমরান হোসেন, শাহিন মিয়া, আকমল হোসেন, আতাউর রহমান, লেবু মিয়া, মোস্তাক আহমদ, হাছান আহমদ, রাজ আহমদ, ইসলাম উদ্দিন, সুমন মিয়া, ফেরদৌস আহমদ, কবির উদ্দিন, নাজিম উদ্দিন, নেছার আহমদ, আবদুর রহিম, ইছবর আলী, সালমান আলী,বিশ্বনাথ ডিগ্রি কলেজ ছাত্রদল নেতা আবদুর রব, মামুন আহমদ, ফরিদ আহমদ, শিব্বির আহমদ, ছোটন মিয়া, ইসলাম, রাজন আহমদ, কলিম উদ্দিন, সালমান আহমদ, শাহিনূর পাশা।
এদিকে, আ.লীগ থেকে আ.লীগ নেতা আবুল কালামের নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন নেতা বিএনপিতে যোগদান করেন। এসময় ফুল দিয়ে তাদের বরণ করেন ইলিয়াসপত্নী লুনা ও বিএনপি নেতৃবৃন্দ।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট