‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে বিজয় সুনিশ্চিত’

প্রকাশিত: ১০:০১ অপরাহ্ণ, জুন ১৬, ২০১৭

‘গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে বিজয় সুনিশ্চিত’

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান এডভোকেট আহমদ আজম খান বলেছেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ছিলেন একজন ক্ষনজন্মা পুরুষ। তিনি বাংলাদেশকে বিশ্বের মানচিত্রে গৌরবময় স্থানে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। ইতিহাসের রাখাল রাজা শহীদ জিয়া ছাড়া বাংলাদেশের ইতিহাস রচনা সম্ভব নয়।

তিনি বলেন, স্বাধীনতার চেতনা গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার চলমান সংগ্রামে দেশপ্রেমিক ও জাতীয়তাবাদী শক্তির বিজয় সুনিশ্চিত।

শুক্রবার ডিআরইউ সাগর-রুন মিলনায়তনে শহীদ জিয়ার ৩৬তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী বন্ধু দল আয়োজিত আলোচনা সভা ও ইফতার অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আহমদ আজম খান বলেন, জাতি নিরপেক্ষ ও গ্রহনযোগ্য নির্বাচন চায়। আর সেই নির্বাচন শেখ হাসিনার অধীনে নয়, হবে সহায়ক সরকারের অধীনে। যারা বলেন সহায়ক সরকার সংবিধানে নাই তারা নিজেরাইতো সংবিধান মানেন না। তারা নিজেরাই অসাংবিধানিক সরকার। সুতরাং সংবিধানের দোহাই দিয়ে জনদাবীকে উপেক্ষা করা যাবে না।

বন্ধু দলের সভাপতি শরিফ শরীফ মোস্তফাজামান লিটুর সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন- বিএনপি চেয়ারপরসনের উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব, বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, জাতীয় পার্টি (জাফর) প্রেসিডিয়াম সদস্য আহসান হাবিব লিংকন, এনডিপি প্রেসিডিয়াম সদস্য মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, জিনাফ সভাপতি মিয়া মো. আনোয়ার, দেশবাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কেএমরাকিবুল ইসলাম রিপন, বন্ধু দলের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ আহমেদ জিয়া, সহ-সভাপতি খবিরউদ্দিন রেজা, ইঞ্জিনিয়ার জসিমউদ্দিন রেজা, যুগ্ম সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার একেএম আমিনুর রহমান, প্রচার সম্পাদক মাষ্টার আবদুস সোবহান, শিল্প ও বাণিজ্য সম্পাদক আবু হোসেন শেখ, মহিলা সম্পাদিকা জাহানারা বেগম, ঢাকা মহানগর দক্ষিন সভাপতি হানিফ মজুমদার, সাধারণ সম্পাদক কাউছার হামিদ প্রমুখ।

হাবিবুর রহমান হাবিব বলেন, যারা শহীদ জিয়ার চরিত্র হনন করেন তাদের মনে রাখা উচিত আজকের আওয়ামী লীগের পুনঃজীবন দিয়েছিলেন তিনি। ১৯৭৫ সালের ৭ নভেম্বরের পর যদি জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় না এসে কর্ণেল তাহের আসতেন তাহলে জাসদ আর গণবাহিনীর হাতে আ.লীগারদের জীবন দিতে হতো। আজকে বঙ্গবন্ধুর নাম স্মরণ করার লোকও থাকতো না।

এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, জিয়াউর রহমান শাহাদাত বরন করেছিলেন, পরাজিত হনননি। আজকের শহীদ জিয়াকে পরাজিত করার ষড়যন্ত্র চলছে। স্বাধীনতার চেতনা গণতন্ত্রকে আজ বাক্সবন্ধী করা ফেলা হচ্ছে। সারা দেশে এক শ্বাসরুদ্ধকর অবস্থা বিরাজ করছে। এই অবস্থা থেকে জনগন মুক্তি চায়। আর মুক্তি আন্দোলনের নেতৃত্ব দিচ্ছে দেশমাতা খালেদা জিয়া।

আহসান হাবিব লিংকন বলেন, জাতীয়তাবাদী শক্তিকে শহীদ জিয়ার প্রদর্শিত পথেই সংগ্রাস করে যেতে হবে। সংগ্রামের মাধ্যমেই অধিকার প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।

সভাপতির বক্তব্যে শরীফ মোস্তফা জামান লিটু বলেন, শহীদ জিয়ার অসমাপ্ত বিপ্লব সফল করতে আমাদের দেশনেত্রী খালেদা জিয়া ও দেশনায়ক তারেক রহমানের নেতৃত্বে চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে সফল করতে হবে।

  •