খালেদার ভিশন-২০৩০ জঙ্গিবাদকে আড়াল করার অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছু না : ইনু

প্রকাশিত: ১০:৩৫ অপরাহ্ণ, মে ১২, ২০১৭

খালেদার ভিশন-২০৩০ জঙ্গিবাদকে আড়াল করার অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছু না : ইনু

জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জাসদ সভাপতি ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এবং সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার এমপি শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেছেন, খালেদা জিয়ার ভিশন-২০৩০ গালভরা বুলি দিয়ে জঙ্গিবাদকে আড়াল করার অপপ্রয়াস ছাড়া আর কিছুই না।

তারা বলেন, খালেদা জিয়া তার ২৫৬ দফার ভিশন-২০৩০ এর কোথায়ও জঙ্গিবাদের রাজনৈতিক আদর্শ-দর্শন নিয়ে একটা কথাও না বলে জঙ্গিবাদকে নিছক বেকার সমস্যা হিসেবে চিহ্নিত করে জঙ্গিবাদের বিপদকে আড়াল করেছেন।

খালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের বিষয়ে একটি শব্দও খরচ করেননি উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, খালেদা জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের মন্ত্রীসভার সদস্য বানানোর জন্য ক্ষমা না চেয়ে মুক্তিযুদ্ধের সম্মান দেয়ার যে কথা বলেছেন, তা ভুতের মুখে রাম নাম ছাড়া আর কিছুই না।

তারা বলেন, খালেদা জিয়া তার আমলে হাওয়া ভবন কেন্দ্রীক অর্গানাইজড, সিস্টেম্যাটিক, সিন্ডিকেটেড দুর্নীতির জন্য ক্ষমা না চেয়ে দুর্নীতির বিরুদ্ধে গালভরা বুলি আউড়েছেন।

জিয়া ধর্মভিত্তিক বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের মোড়কে কুখ্যাৎ দ্বি-জাতিতত্ত্ব পুনপ্রবর্তন করে ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে গড়ে ওঠা জাতীয় ঐক্যকে শুধু আঘাতই করেননি, বাঙালী জাতির হাজার বছরের ইতিহাস-ঐতিহ্য-সংস্কৃতিকে অস্বীকার করেছেন, ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘুেেদর দ্বিতীয় শ্রেনীর নাগরিকে পরিনত করেছেন।

জাসদ নেতৃদ্বয় বলেন, সুশাসন ও আইনের শাসনের কথা বলার আগে বেগম খালেদা জিয়ার উচিত ছিল তাদের আমলের দু:শাসন-অপশাসনের জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া। তারা বলেন,ডেনিয়েল অব জাসটিস এর মত বুলি আওড়ানোর আগে বেগম জিয়ার উচিত ছিল বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার তারা কেন বন্ধ করে রেখেছিলেন তার জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া।

তারা বলেন, ভিশন-২০৩০এ খালেদা জিয়ার নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার, নিরপেক্ষ সরকার, সংসদের উচ্চ কক্ষ, ন্যায়পাল, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার ভারসাম্য ইত্যাদি বুলি আওড়ালেও এসবের কোন ব্যাখ্যা তিনি না দিয়ে সংবিধান কাটা ছেড়ার ইশারা দিয়ে অসাংবিধানিক অস্বাভাবিক পথে দেশকে ঠেলে দেয়ার জন্য জলঘোলা করার অপপ্রয়াস পেয়েছেন।

খালেদা জিয়া ১৫দশ সংশোধনী পর্যালোচনার কথা বলে সংবিধানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও রাষ্ট্রীয় চার মূলনীতি গণতন্ত্র, সমাজতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা ও জাতীয়তাবাদ পুনপ্রতিষ্ঠাকে বাতিল করার ইঙ্গিত দিয়েছেন অভিযোগ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, অর্থনীতিতে কি কি পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে দেশে ‘উচ্চ মধ্য আয়ের’ দেশে পরিণত হবে তার কোন রূপরেখা না দিয়ে ‘যে মুরগী ডিম দেয় না, কড় কড় বেশী করা’র মত আওয়াজ দিয়েছেন।

তারা বলেন, আইসিটি নিয়ে বেগম জিয়ার কোন কথা বলার আগে তিনি ইন্টারনেট যোগাযোগের মেরুদন্ড সাবমেরিন কেবল সংযোগ থেকে কেন দেশকে পাঁচ বছর বিচ্ছিন্ন রেখেছিলেন তার জন্য ক্ষমা চাওয়া উচিত। বেগম খালেদা জিয়া যে জঙ্গিবাদ ও যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গ ত্যাগ করবেন তার কোন ঘোষণাই ভিশন-২০৩০ তে নেই। তার ভিশন-২০৩০ নামে বড় বড় বুলিতে দেশবাসী এতটুকু বিভ্রান্ত হবে না বলেও বিবৃতিতে উল্লেখ করেন জাসদ নেতৃবৃন্দ।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট