সিলেটে প্রধান শিক্ষক কর্তৃক ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে শারীরিক নির্যাতন : থানায় অভিযোগ

প্রকাশিত: ৯:১৫ অপরাহ্ণ, মে ৫, ২০১৭

সিলেটে প্রধান শিক্ষক কর্তৃক ৮ম শ্রেণির ছাত্রীকে শারীরিক নির্যাতন : থানায় অভিযোগ

সিলেট শহরতলীর কান্দিগাঁও ইউনিয়নের মোল্লারগাঁও উচ্চ বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক কতৃক ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রীকে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে প্রধান শিক্ষক জামাল আহমদের বিরুদ্ধে। ঐ ছাত্রী সিলেট এম.এ.জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এ ব্যাপারে সিলেট সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ছাত্রীর বাবা লালু মিয়া। এ ঘটনায় এলাকায় নিন্দার ঝড় উঠেছে।
লিখিত অভিযোগপত্রে মোঃ লালু মিয়া অভিযোগ করেন গত ২৯ এপ্রিল দেড়টার দিকে ক্লাস চলাকালীন সময়ে তার মেয়ে হাবিবাকে পাশের এক সহপাঠি ডাকছিলো। এ সময় সে দাঁড়িয়ে কারণ জানতে চাইলে ক্লাস টিচার ক্ষেপে গিয়ে প্রথমে ডাস্টার দিয়ে মারেন। এরপর প্রধান শিক্ষককে নিয়ে আসেন। প্রধান শিক্ষক জামাল আহমদ হাবিবাকে গলায় ধরে উপর্যোপুরি গালে এবং দুই কানে তাপ্পর মারতে থাকেন। এক পর্যায়ে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। সেই অবস্থা থেকে তুলে লাথি উস্টা মারতে থাকেন। বিষয়টি ক্লাসের সকল ছাত্রী প্রত্যক্ষ করেছে। হাবিবা বাড়িতে যাওয়ার পর অসুস্থ হয়ে পড়্। গলা ও মুখ ফুলে যায়। স্থানীয় ডাক্তারের কাছে গেলে তিনি ওসমানী হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন। বর্তমানে হাবিবা সিলেট ওসমানী হাসপতালের ৩ তলা ৮নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে।
ছাত্রীর পিতা লালু মিয়া জানান, জামাল আহমদ কেবল হাবিবা নয়, আরো অনেক ছাত্রীকে এভাবে নির্যাতন করেছে। লালু মিয়া অভিমান করে বলেন ‘যে শিক্ষক ৮ম শ্রেনিতে পড়–য়া মেয়েকে চড় তাপ্পর মারে সে স্কুলে আমি আর মেয়েকে দিতে চাইনা’। তিনি জামাল আহমদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
স্কুল মেনেজিং কমিটির সাভাপতি হাজী মান্নান এর সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, ঘটনাটি সত্য প্রধান শিক্ষক ভুল করেছে। বিষয়টি শেষ করার জন্য ছাত্রী হাবীবার বাবার কাছে গিয়ে ছিলাম এবং বলেছিলাম এ বিষয়টার জন্য আমি দুঃখিত। হাবীবার বাবা তাতে খুশি হননি।
সিলেট সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার কাইজার মোহাম্মদ ফারবি বলেন, গতকাল আমার কাছে অভিযোগ এসেছে। আজ ও কাল স্কুল ছুটি থাকায় যেতে পারিনি। রোববারে আমরা তদন্ত করে দেখবো।
এ বিষয় হাবিবার বাবা বাদী হয়ে জালালাবাদ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছে বলে জানিয়েছেন জালালাবাদ থানার সেকেন্ড অফিসার প্রদীপ সরকার। গতকাল শুক্রবার বিকেলে জালালাবাদ থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন ও তদন্ত শুরু করেছে। -বিজ্ঞপ্তি

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট