নতজানু সরকার দিয়ে ভারত থেকে স্বার্থ আদায় হবে না : ফখরুল

প্রকাশিত: ৪:১৬ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৭, ২০১৭

নতজানু সরকার দিয়ে ভারত থেকে স্বার্থ আদায় হবে না : ফখরুল

নতজানু সরকার দিয়ে ভারত থেকে স্বার্থ আদায় করা সম্ভব নয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

দেশের মানুষ কৃষির উপর নির্ভরশীল জানিয়ে ফখরুল বলেন, আমাদের ৫৪টি অভিন্ন নদীর পানি চুক্তি দরকার। নতজানু সেবাদাস সরকারকে দিয়ে জনগণের সমস্যার সমাধান হবে না। ন্যায্য হিস্যা পাওয়া যাবে না।

সোমবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস আলী গুমের পাঁচ বছরপূর্তিতে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

বর্তমান সরকারের গণভিত্তি নেই, তাই তিস্তার পানি আনারও ক্ষমতা নেই উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, আপনি (প্রধানমন্ত্রী) জনগণের ভোটে নির্বাচিত হলে বলতে পারতেন, তিস্তা দিতে না পারলে অন্য চুক্তি সই করতে পারবো না।

ইলিয়াস আলীর গুমের প্রসঙ্গে বিএনপির এই নীতি নির্ধারক বলেন, ইলিয়াস আলীর শোককে শক্তিতে পরিণত করে এই সরকারের বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে।

তিনি বলেন, ইলিয়াস ইস্যুতে আমরা আরো শক্ত ভূমিকা নিতে পারতাম। তাকে গুম করার পর যে অবরোধ ডাকা হয়েছিল তা সফল ছিল। এরপর কেন জানি আস্তে আস্তে থিতিয়ে গেলাম।

মির্জা ফখরুল বলেন, কেন জানি মনে হচ্ছে আমরা বারবার ব্যর্থ হচ্ছি। কোথায় যেন সমস্যা হচ্ছে। আমরা যদি বিষয়টি নিয়ে আন্তর্জাতিক মহলের কাছে বার বার যেতাম তাহলে ইলিয়াস আলীকে খুঁজে না পেলেও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সরকারের মুখোশ উন্মোচিত হতো।

এ সময় তিনি আয়োজক সংগঠনের সভাপতি আবদুল কাইউমকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনারা ইলিয়াস আলীকে গুম করার বিষয়টি আন্তর্জাতিক পর্যায়ে নিয়ে যান। আমরা সহযোগিতা করার চেষ্টা করবো।

সম্প্রতি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত নেত্রকোনার হাওর অঞ্চল পরিদর্শনের অভিজ্ঞতা বর্নণা করতে গিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, হাওর অঞ্চলের মানুষের মধ্যে যে আগ্রহ দেখেছি, আমি বিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারি আমরা ঐক্যবদ্ধ হতে পারলে কোনো অপশক্তি ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারবে না বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যান এনাম আহমেদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদী লুনা, যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল প্রমুখ।

  •