জীবনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে, এই ঋণ কোনোদিন শোধ হবার নয় : আরিফ

প্রকাশিত: ১:০০ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৪, ২০১৭

জীবনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে, এই ঋণ কোনোদিন শোধ হবার নয় : আরিফ

আরিফুল হক চৌধুরীর করা এক রিটের প্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের বরখাস্তের আদেশ স্থগিত করেছে হাইকোর্ট। এর ফলে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে ফের বহাল হয়েছেন আরিফুল হক চৌধুরী।

হাইকোর্টের রায়ে নতুনভাবে মেয়র পদে বহাল হওয়ার পরপরই সোমবার বিকেলে গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন আরিফুল হক চৌধুরী।

বিবৃতিতে তিনি বলেন- ‘সিলেট সিটি কর্পোরেশনের জনগণের নির্বাচিত মেয়র হিসেবে আমি ২ এপ্রিল রোববার ২০১৭ মহামান্য আদালতের নির্দেশ এবং মন্ত্রনালয়ের প্রেরিত চিঠি মোতাবেক দীর্ঘ প্রায় ২৭ মাস পর পুণরায় মেয়র হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব গ্রহণ করি। পুনরায় দায়িত্ব গ্রহণকালে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের আপামর জনগনের মধ্যে আমি যে উচ্ছাস ও আবেগ দেখেছি এবং তাদের স্বতঃফ‚র্ত সহযোগিতার বহিঃপ্রকাশ দেখে আমি অভিভ‚ত হয়েছি, এজন্য আমার সুখ-দু:খের সাথী আমার সম্মানিত নগরবাসীর প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি।

‘আমি পুনরায় দায়িত্ব গ্রহনের উদ্দেশ্যে যখন পায়ে হেঁটে কুমারপাড়ার বাড়ি থেকে রওয়ানা হয়েছিলাম তখন সিটি কর্পোরেশন এলাকার প্রতিটি পাড়া মহল্লার প্রবীণ মুরব্বীয়ান, বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, আমার দলের সিলেটের শীর্ষ নেতৃবৃন্দ ও তরুন নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ, সিলেটের বরেণ্য শিক্ষাবিদ ও শিক্ষানুরাগীরা, পাড়া মহল্লার মসজিদের মোতওয়াল্লী, ইমামসহ বিভিন্ন ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের গুরুজনেরা, বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মী, হিন্দু-মুসলিম-বৌদ্ধ-খ্রিস্টানসহ ধর্ম বর্ণ দলমত নির্বিশেষে আমাকে শুভাকামনা জানিয়েছেন এবং স্বত:ফূর্তভাবে পদযাত্রায় অংশ নিয়েছেন। তাদের প্রতি আমি ধন্যবাদ এবং বিনম্র কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। এমনকি অনেক বয়োজৈষ্ঠ্য শুভাকাংখীরা আমার সাথে পায়ে হেঁটে নগর ভবন পর্যন্ত গিয়েছেন, যা আমার জীবনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে। এই ঋণ কোনদিন শোধ হবার নয়।’

‘পদযাত্রাকালে রাস্তার দুই পাশের শত শত নগরবাসী হাত নেড়ে এবং অনেকে কাছে এসে এবং অনেকে জড়ো হয়ে রাস্তায় এসে ফুলেল শুভেচ্ছার পাশাপাশি তাদের ভালোবাসার কথা জানিয়েছেন, পুনরায় দায়িত্ব গ্রহন করায় তাদের স্বস্তির কথা জানিয়েছেন- যা আমার জীবনের অনেক বড় পাওয়া।’

‘সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সকল পর্যায়ের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং কাউন্সিলরবৃন্দ পুনরায় দায়িত্ব গ্রহণকালে যে অভাবনীয় অর্ভ্যথনা জানিয়েছেন তা আমাকে আরও বেশি আবেগাপ্লুত করেছে। কর্মকর্তাদের ফুলেল অর্ভ্যথনার পাশাপাশি সিলেট জেলা বার এসোসিয়েশনসহ বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন এবং গণমাধ্যমে কর্মরত সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ যেভাবে অকুন্ঠ সমর্থন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সেজন্য আমি আমার অন্তরের অন্তস্থল থেকে সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ প্রকাশ করছি।’

তিনি বলেন- ‘সবশেষে আমি এটুকু বলতে চাই, আমি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে দলমতের উর্ধ্বে উঠে সিলেট মহানগরীর উন্নয়নের জন্য নিজেকে সঁপে দিয়েছিলাম। আমার ধ্যানজ্ঞান ছিল সিলেটের উন্নয়ন। নিজের জীবনের তোয়াক্কা না করে অসুস্থ শরীর নিয়েও আমি মহানগরীর এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ছুটে গেছি।’

‘মাত্র একটি বছর কাজ করার পর থেকেই আমার উপর শুরু হলো ষড়যন্ত্র। সেই ভয়াল, ঘৃন্য ষড়যন্ত্র, এবং আমার উপর যে একের পর এক অন্যায়-অবিচার করা হচ্ছে সেই সম্পর্কে আমার প্রিয় নগরবাসী অবগত আছেন। এসব অন্যায় অবিচারের সর্বশেষ উদাহরণ গত রবিবারের (২ এপ্রিল) ঘটনা।’

নিজের ভবিষ্যত কর্মকান্ডের জন্য তিনি সৃষ্টিকর্তার প্রতি শুকরিয়া আদায় করে বলেন-‘সর্বশক্তিমান আল্লাহর প্রতি আমার অগাধ বিশ্বাস আছে, জনগণের দেয়া দায়িত্ব আমি আবারো ফিরে পাব, আপনাদের মেয়র আরিফ আপনাদের সুখে-দুঃখে, কাজে কর্মে আমৃত্যু যাতে আপনাদের সাথে থাকতে পারি আপনাদের কাছে আমি এই দোয়াটুকু চাই। সর্বশক্তিমান আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আমাদের সকলকে সুখী ও সমৃদ্ধ রাখুন আমি এটাই চাই সবসময়।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট