হাসপাতালের বিলের কারচুপি থেকে সতর্ক থাকুন

প্রকাশিত: ৪:৩৫ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৬, ২০১৭

হাসপাতালের বিলের কারচুপি থেকে সতর্ক থাকুন

হাসপাতালের বিলে কারচুপি করে রোগী ঠকানোর প্রবণতা রয়েছে বিভিন্ন হাসপাতালের। ফলে বিল মেটানোর সময় রোগী এবং তাদের পরিবারের লোকেদের এই বিষয়ে সতর্ক থাকা একান্ত জরুরী। কেননা হাসপাতাল যেভাবে টাকা দাবি করে তাতে রোগীর স্বাস্থ্য বিমা থাকলেও সব টাকা বিমার আওতায় পাওয়া যাবে না।

তাই চিকিৎসা পরিষেবা নিতে গিয়ে প্রতারণার হাত থেকে বাঁচতে হলে কিছু বিষয় খেয়াল রাখুন।

হাসপাতাল থেকে রোগী ছাড়ার সময়ে সব কাগজ পত্র বুঝে নেয়া দরকার। দেখে নেবেন কী কী খরচের জন্য বিল করা হয়েছে এবং সব সময়ে ‘আইটেমাইজড বিল’ চাইবেন।

কোনো রকম কারচুপির সন্দেহ হলেই হাসপাতালের কাছে অবশ্যই ব্যাখ্যা চাইবেন এবং দরকারে লিখিত কারণ চাইবেন।

চিকিৎসার প্রয়োজনে কখন কোন ঘরে রোগীকে রাখা হচ্ছে তা আগেই জেনে নিন। জানতে চাইবেন আদৌ দামি কেবিনে রাখার প্রয়োজন আছে কি না। দরকার হলে এজন্য লিখিতভাবে ব্যাখ্যা চাইবেন।

যেসব পরীক্ষা করতে বলা হচ্ছে তা যেন প্রেসক্রিপশনে লেখা থাকে এবং নজন রাখতে হবে কোথাও একই পরীক্ষার খরচ বিলে একাধিক বার দেখানো হয়েছে কি না।

রোগীকে ঠিক কোন কোন ওষুধ দেওয়া হয়েছে এবং দাম ঠিক মতো বিলে ধরা হয়েছে নাকি বাজারের দামের চেয়ে বেশি ধরা হচ্ছে তা মিলিয়ে দেখুন।

কোনো পরীক্ষা হাসপাতালের বাইরে করানো হলে এবং তা না জানিয়ে করলে প্রশ্ন তুলুন কারণ তা আগে থেকে জানানো উচিত।

একই রকম ভাবে সব সময় নিজেরা নোট রাখবেন রোগী ভর্তির পর কতবার বাইরে থেকে চিকিৎসক দেখতে এসেছেন। এক্ষেত্রে ভুয়ো বিল করার একটা প্রবণতা থাকে।

রাত বারোটার পর হাসপাতালে ভর্তি হলে সতর্ক থাকা দরকার আগের দিনকেও বিলের ঢুকিয়ে দেয়া হচ্ছে কি না? তাছাড়া রোগীর খাবার, স্যানিটাইজার, বিছানার চাদর, টুথ পেস্ট, ব্রাশ ইত্যাদি বেড ভাড়ার সঙ্গে যুক্ত থাকলেও সেগুলো আলাদা করে ফের চার্জ করা হচ্ছে কি না।

ওটি ভাড়া কত আগেই জেনে নিন এবং দেখে নেবেন যতক্ষণ অপারেশন হয়েছে তারজন্যই বিলে চার্জ করা হয়েছে নাকি বেশি নেয়া হয়েছে। কারণ হাসপাতালের বিলে কারচুপির এটিও একটা অন্যতম স্থান।

সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টা মাথায় রাখা উচিত সেটা হল- একেবারে রোগী ছাড়া পাওয়ার সময় শুধু নয় প্রতিদিনই বিলের অবস্থা জানতে চাওয়া উচিত। কারণ রোগী ছাড়া পাওয়ার দিন অথবা রোগীর মৃত্যু হলে তাকে নিয়ে যাওয়া নিয়ে একটা অন্য দু:শ্চিন্তা থাকে ফলে তাড়াহুড়োয় ওই বিল তেমন ভাবে দেখা সম্ভব হয় না। সেজন্য প্রতিদিন বিলের অবস্থা জেনে নিয়ে তাতে কোনো কারচুপি নজরে এলেই অবিলম্বে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে তার জবাব চাইবেন।

  •