জাপানি নাগরিকসহ ২২ হত্যা ও হত্যাচেষ্টার কথা স্বীকার করেছে রাজীব গান্ধী

প্রকাশিত: ১:৪১ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১৪, ২০১৭

জাপানি নাগরিকসহ ২২ হত্যা ও হত্যাচেষ্টার কথা স্বীকার করেছে রাজীব গান্ধী

পুলিশের কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান নিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, জাপানি নাগরিক হোশি কুনিও হত্যা ও রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক রেজাউল করিমসহ ২২টি হত্যা ও হত্যা চেষ্টার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছে গুলশান হামলার অত্যতম পরিকল্পনাকারী জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী।

শনিবার সাংবাদিকদের তিনি এ তথ্য জানান।

এরআগে শুক্রবার রাতে রাজীব গান্ধীকে টাঙ্গাইলের অ্যালেঙ্গা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানিয়েছে পুলিশ।

ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মাসুদুর রহমান জানান, রাজীব অন্তত ২২টি হত্যা মামলার আসামি। তার সাংঠনিক নাম রাজীব গান্ধী, ওরফে সুভাষ গান্ধী, ওরফে গান্ধী, ওরফে শান্ত ওরফে আদিল। গুলশান ও শোলাকিয়া হামলায় তিন জঙ্গিকে সে উত্তরাঞ্চল থেকে পাঠিয়েছিল বলে তাদের কাছে তথ্য রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত বছর গুলশান হামলার পর রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একের পর এক অভিযানে জেএমবির কমান্ডার গ্রেপ্তার এবং নিহত হওয়ার পর রাজীব গান্ধীর ওপরে ঢাকায় হামলা চালানোর দায়িত্ব আসে।

গুলশান হামলার আগে একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনেও রাজীব গান্ধীর কথা বলা হয়েছিল। গত ২৭ জুন দেওয়া এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, উত্তরাঞ্চলের জঙ্গি অধ্যুষিত জেলায় পুলিশের টানা অভিযানে জেএমবির সদস্যরা ওই অঞ্চল ছাড়তে বাধ্য হয়। এ সময় একটি গ্রুপ ঢাকা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ অঞ্চলে আশ্রয় নেয়। এই গ্রুপের দলনেতা রাজীব গান্ধী ওরফে শান্ত ওরফে সুভাষ ওরফে আদিল।

  •