বেগম খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থন ২৬ জানুয়ারি

প্রকাশিত: ২:৩৩ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১২, ২০১৭

বেগম খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থন ২৬ জানুয়ারি

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থনের সময় ফের পেছাল। অসমাপ্ত বক্তব্য উপস্থাপনের জন্য আগামী ২৬ জানুয়ারি দিন ধার্য করেছে আদালত।

মামলার সাক্ষীদের শপথকে চ্যালেঞ্জ করে খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে উচ্চ আদালতে আবেদন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে তার আইনজীবীদের সময় চেয়ে করা আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত এ দিন ধার্য করে।

পুরান ঢাকার বকশীবাজারে আলিয়া মাদ্রাসাসংলগ্ন মাঠে স্থাপিত ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৩-এর অস্থায়ী এজলাসে এই মামলার পাশাপাশি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতির মামলার বিচারকাজও চলছে।

বৃহস্পতিবার খালেদা জিয়ার আবেদনে পঞ্চমবারের মতো অসমাপ্ত আত্মপক্ষ সমর্থন পিছিয়ে নতুন দিন ধার্য করে রাজধানীর বকশীবাজারে কারা অধিদফতরের প্যারেড মাঠে স্থাপিত তৃতীয় বিশেষ জজ আবু আহমেদ জমাদ্দারের অস্থায়ী আদালত।

খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা আদালতকে বলেন, জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাক্ষীদের শপথসংক্রান্ত বিষয় চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে একটি আবেদন করা হয়েছে। সেই আবেদনের ওপর বৃহস্পতিবার শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে। যে কারণে খালেদা জিয়ার আত্মপক্ষ সমর্থন করে বক্তব্য দেয়ার নতুন দিন ধার্য করা হোক।

পরে দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল আদালতকে বলেন, মামলাটি এখন আত্মপক্ষ সমর্থনের শুনানির পর্যায়ে রয়েছে। আসামিপক্ষ আত্মপক্ষ সমর্থনের কোনো কার্যক্রম চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালতে যাননি। তাই আত্মপক্ষ সমর্থনের কার্যক্রম চালানো হোক।

উভয় পক্ষে শুনানি শেষে আদালত প্রথমে ১৯ জানুয়ারি মামলার শুনানির দিন ঠিক করেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার আইনজীবী সানাউল্লাহ মিয়া আদালতকে বলেন, আগামী ১৯ তারিখ জিয়াউর রহমানের জন্মদিন। তাই শুনানির জন্য ওই দিন বাদে অন্য যেকোনো দিন ধার্য করা হোক। আদালত তারপরও ১৯ জানুয়ারি শুনানির কথা বলেন।

একপর্যায়ে খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নাল আবেদীন আদালতকে বলেন, ১৯ জানুয়ারি বাদে যেকোনো দিন শুনানির তারিখ ধার্য করলে তারা চিরকৃতজ্ঞ থাকবেন। পরে আদালত ২৬ জানুয়ারি মামলার শুনানির দিন ধার্য করেন।

এদিকে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট-সংক্রান্ত দুর্নীতি মামলার বিচারকাজও একই আদালতে চলছে। এই মামলায় সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দুদকের তৎকালীন পরিচালক নূর আহমেদের সাক্ষ্য গ্রহণ শুরু হয়। সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে তাকে জেরা শুরু করেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট