সারা দেশে বিএনপির বিক্ষোভ কাল

প্রকাশিত: ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ৭, ২০১৭

৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ উপলক্ষে শনিবার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের পরিবর্তে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করতে চাইলেও শুক্রবার রাত পর্যন্ত অনুমতি পায়নি দলটি।

শনিবার সকাল থেকেই নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয় ও সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘিরে রেখেছে পুলিশ। সেই সঙ্গে রয়েছে জলকামান, আর্মার্ড কার, প্রিজন ভ্যানসহ পুলিশের গাড়ি রয়েছে।

এ সময় তিন কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলেও দাবি করছে দলটি।

কার্যালয়ের সামনে দুই সারিতে পুলিশ দাঁড়িয়ে আছে। সাদা পোশাকেও রয়েছে বাহিনীর সদস‌্যরা।

জানা গেছে, কার্যালয়ের ভেতরে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সহ দপ্তর সম্পাদক বেলাল আহমেদসহ কয়েকজন কর্মী অবস্থান করছেন। আশপাশ দিয়ে সাধারণ পথচারীদেরকেও যেতে বাধা দিচ্ছে পুলিশ।

সমাবেশের অনুমতি না পাওয়ায় বিএনপির পরবর্তী কর্মসূচি কী হবে তা নিয়ে নতুন করে বিপাকে পড়েছে দলটি।

এর আগে, ৫ জানুয়ারি আওয়ামী লীগের সমাবেশ থেকে বিএনপির ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ পালনের কর্মসূচি প্রতিহতের ঘোষণা দেয়া হয়। এর ফলে অনুমতি না পাওয়ায় দলটির পরবর্তী কর্মসূচি কী হবে তা নিয়েও নতুন করে শুরু হয়েছে আলোচনা।

বিএনপি জোটের অংশগ্রহণ ছাড়াই ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এরপর থেকে দিনটিকে ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ হিসেবে পালন করে আসছে বিএনপি। দিনটি উপলক্ষে শনিবার সোহরাওয়ার্দী সমাবেশ কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দেয় দলটি।

কর্মসূচি ঘোষণার পরপরই অনুমতি চেয়ে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কাছে আবেদন করে বিএনপি। তবে এ বিষয়ে কোনো অনুমতি না আসায় শুক্রবার সকালে ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যায় দলটির একটি প্রতিনিধিদল। কিন্তু তারা ডিএমপি কমিশনারের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে পারেননি।

পরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘আমরা আশা করি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি দিয়ে সরকার সৌহার্দ্যপূর্ণ আচরণ করবে। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান না হলেও বিএনপি কার্যালয়ের সামনে হলেও সমাবেশ করতে দিবে।’

শুক্রবার মধ্যরাত পর্যন্ত এ ব্যাপারে দলের পক্ষ থেকে স্পষ্ট কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি। তবে শনিবার সকাল সাড়ে ১০টায় সংবাদ সম্মেলন করা হবে বলে জানিয়েছে বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তর। শোনা যাচ্ছে, সেখান থেকেই নতুন কোনো কর্মসূচি দেয়া হবে কি না সে ব্যাপারে জানা যাবে।

এদিকে শনিবার সকাল থেকেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে কঠোর অবস্থানে রয়েছে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একজন পুলিশ কর্মকর্তা জানান, আজ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ ডেকেছে বিএনপি। এখন পর্যন্ত অনুমতি পায়নি দলটি। সোহরাওয়ার্দী উদ্যান রাষ্ট্রীয় গুরত্বপূর্ণ স্থান। বিএনপির নেতাকর্মীরা যাতে কোনো ধরনের নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড না চালাতে পারে সেজন্য উদ্যানে আগামী দুই-তিনদিন কাউকে প্রবেশ করতে দেয়া হবে না বলে মন্তব্য করেন ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট