সিলেটের ইজতেমায় সর্ব বৃহৎ জুমার নামাজ আদায় করবেন মুসল্লিরা

প্রকাশিত: ১:৫৩ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৬

আফরোজ খান : সিলেটের ইজতেমায় শুক্রবার দেশ-বিদেশের প্রায় ১১ লাখের বেশি ধর্মপ্রাণ মুসল্লি পবিত্র জুমার নামাজে অংশ নেবেন বলে জানা গেছে। শুক্রবার বাদ ফজর তাবলিগের মুরব্বিরা বয়ান করবেন। তাবলীগ জামাতের আয়োজনে সিলেটের ইজতেমার দ্বিতীয় দিন জুমার নামাজে বিশ্ব শান্তি ও মুসলিম উম্মাহর কল্যাণ কামনা করে মোনাজাত করা হবে।

বৃহস্পতিবার ইজতেমা শুরু হয়েছে। শনিবার বেলা ১১টায় আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ইজতেমা। মুসল্লিদের জন্য জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে ৩ স্থরের নিরাপত্তার ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। বিভিন্ন স্থান থেকে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ ও পানির ব্যবস্থার পাশাপাশি একাধিক চিকিৎসক দল মুসল্লিদের সেবা দিচ্ছে।

ইজতেমা মাঠ ও এর আশপাশের এলাকায় রাস্তার দুই ধারে অনেক দোকান বসেছে। এসব দোকানে শীতের কাপড়, ইসলামি বইপত্র, টুপি, তসবিহ এবং শুকনা ও রান্না করা খাবার বিক্রি হচ্ছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ইজতেমায় অংশগ্রহনকারী ২ জন মুসল্লির মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে।

সিলেটের ইজতেমায় অংশ নিলেন ১১লাখ মুসল্লি।

সিলেটের ইজতেমার নকশা অনুযায়ী প্রতিটি খিত্তায় ১লাখ মানুষের ধারন ক্ষমতা সে হিসাবে ১১টি খিত্তায় ১১ লাখ মুসল্লি অংশ নিলেন ইজতেমায়।

সিলেটের ইজতেমায় প্রথম দিন যারা বয়ান করেছেন

ইজতেমার প্রথমদিন আম বয়ানের মধ্যদিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হয় সিলেট জেলা ইজতেমা। শুরুতে সকালে বয়ান করেন সুনামগঞ্জের মাওলানা আনোয়ার হোসেন। বাদ জোহর বয়ান করেন হবিগঞ্জের মাওলানা আব্দুল মতিন। বাদ আছর ঢাকার মোঃ নাছিম আহমদ এবং বাদ মাগরিব ঢাকার মাওলানা রবিউল ইসলাম।

ফ্রি মেডিকেল টিম

অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘সিলেট নিউজ ওয়ার্ল্ড ডটকম’ এর উদ্যোগে ও সিলেটের সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের সার্বিক সহযোগিতায় রয়েছে ফ্রি মেডিকেল টিম। আছে সূর্যের হাঁসি ক্লিনিক। রেডক্রিসেন্ট। এছাড়াও এপেক্স ক্লাব অব গ্রীন হিলস। মুসল্লিদের সার্বক্ষণিক নিরাপত্তায় র্যাব পুলিশের সাথে রয়েছে অন্যান্য বাহিনীর সদস্যরা।

  •