সাইয়্যিদুল মুরসালীন হযরত মুহাম্মদ সা. সকল রহমত, বরকত ও নিয়ামতের উৎস

প্রকাশিত: ১১:২৩ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৬

সিলেটের জকিগঞ্জ উপজেলার ‘বালাউট পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী সা. উদযাপন কমিটি’র উদ্যোগে গত ২৫ ডিসেম্বর বালাউট ছাহেব বাড়ি সংলগ্ন মাঠে ঈদে মিলাদুন্নবী সা. উদযাপন ও আল্লামা ফুলতলী ছাহেব রহ.’র ঈসালে সাওয়াব মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
প্রিন্সিপাল আল্লামা শুয়াইবুর রহমান বালাউটি ছাহেবের সভাপতিত্বে মাহফিলে প্রধান অতিথি আরব আমিরাতের সাবেক বিচারপতি শায়খুল হাদীস অধ্যক্ষ আল্লামা হবিবুর রহমান ছাহেব, প্রধান মেহমান আওলাদে রাসূল সাইয়্যিদ আল্লামা খালেদ আহমদ মাদানী উজান্ডিহী ভারত, প্রধান আলোচক দৈনিক ইনকিলাবের নির্বাহী সম্পাদক আল্লামা কবি রুহুল আমীন খান বয়ান পেশ করেন।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল হাকিম, বাংলাদেশ বেতার ও টেলিভিশনের ভাষ্যকার মাওলানা আবুল কালাম আজাদ, ইছামতি দারুল উলূম কামিল মাদরাসার প্রাক্তন মুহাদ্দিস মাওলানা আব্দুল মজিদ, অধ্যক্ষ মাওলানা আব্দুল মুক্তাদির খান, প্রভাষক মাওলানা উবায়দুর রহমান, মাওলানা নূরুল ইসলাম জিহাদী, মাওলানা খাজা মঈন উদ্দিন জালালাবাদী, মাওলানা আবুল কালাম, মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মাসুক উদ্দিন আহমদ, সিলেট ব্যবসায়ী ঐক্য কল্যাণ পরিষদের সভাপতি আলহাজ¦ শেখ মোঃ মকন মিয়া চেয়ারম্যান, বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব তুরন মিয়া, আলিফ সিটির চেয়ারম্যান হাজী মোতাহির আলী, জকিগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ, বিরোধীদলীয় হুইপ সিলেট-৫ আসনের এমপির সচিব রুহুল আমিন রাজু, জকিগঞ্জ থানার ওসি হাবিবুর রহমান, তদন্ত কর্মকর্তা শওকত হোসাইন, দারুল হাদীস লতিফিয়া লন্ডনের সিনিয়র শিক্ষক কবি আবদুল আউয়াল হেলাল, জকিগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল খয়ের চৌধুরী, সাবেক সভাপতি বদরুল হক খসরু, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুর রশিদ বাহাদুর, মাওলানা শফিকুর রহমান, মাওলানা হাবিবুর রহমান, আল ইসলাহ নেতা মাওলানা আব্দুস সবুর ও মাওলানা কায়েস মাহমুদ চৌধুরী, সাংবাদিক আল হাছিব তাপাদার ও এনামুল হক মুন্না, মাওলানা খালেদ আহমদ, হাফিজ ওলিউর রহমান প্রমূখ।
মাওলানা মাহবুবুর রহীম, মাওলানা জমির উদ্দিন ও আল ইমরানের উপস্থাপনায় সকাল ১০টা থেকে পরদিন ফজর পর্যন্ত অনুষ্ঠিত মাহফিলে সভাপতির বক্তব্যে বলেন- সাইয়্যিদুল মুরসালীন হযরত মুহাম্মাদুর রাসূলুল্লাহ সা. যেমন ছিলেন আল্লাহ তায়ালার সকল রহমত, বরকত ও নিয়ামতের উৎস, সেরূপ তাঁর পরশে ধন্য সংশ্লিষ্ট স্থান, বস্তু এবং সময়। কিন্তু তথাকথিত সুন্নি নামধারীরা এভাবে বরকতময় হওয়াকে অযৌক্তিকভাবে অস্বীকার করে থাকে। আশিকে রাসূলগণ এদের মুখোশ উম্মোচন করতে হবে।
প্রধান অতিথি বলেন- নবী করিম সা. এরশাদ করেছেন, যতোদিন তোমরা আল্লাহর কোরআন ও রাসূলের সুন্নাহ আঁকড়ে থাকবে ততোদিন তোমাদের পতন হবে না। কিন্তু আজ মুসলিম বিশ্বের দিকে তাকালে দেখা যায় কতোখানি দূরাবস্থা বিদ্যমান। কোরআন-সুন্নাহ থেকে আমাদের সরে পড়ার কারণেই এই অবস্থা। এ থেকে উত্তোরণ ঘটাতে হবে। -বিজ্ঞপ্তি

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট