বগুড়ায় নকল দুধ তৈরি কারখানার সন্ধান, আটক ৩

প্রকাশিত: ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৬

বগুড়ায় গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের অভিযানে গরুর নকল দুধ তৈরির কারখানার সন্ধান মিলেছে।  রবিবার ভোরে  জেলার সোনাতলা উপজেলার শিহিপুর গ্রামে  নকল দুধ তৈরির সন্ধান পাওয়া যায়।
 এই কারখানা থেকে প্রতিদিন প্রায় ২০০ থেকে ৫০০ লিটার নকল দুধ তৈরি করে জেলার বিভিন্ন হাটবাজারসহ বড় বড় দুধ বিক্রি কোম্পানির কাছে সরবরাহ করা হতো। অবশেষে জেলা পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগ অভিযান চালিয়ে নকল ১০০ লিটার দুধ জব্দ এবং দুধ তৈরির কাজে ব্যবহৃত কেমিকেল উদ্ধার করেছে। এ সময় তিনজনকে আটক করা হয়েছে।
 আটককৃতরা হলেন পাবনার বেড়া উপজেলার নাকাইল্লা গ্রামের অজিত ঘোষের পুত্র শ্রী সরজিদ ঘোষ (২০) ও একই উপজেলার তাটুরিয়া পশ্চিমপাড়ার মনতাজ মল্লিকের পুত্র আব্দুল হান্নান (২০) এবং বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার পাকুল্লুয়া গ্রামের আশ্বিনী ঘোষের পুত্র সজিব কুমার ঘোষ (২২) ।
 রবিবার দুপুরে বগুড়া পুলিশ সুপার আসাদুজ্জামান সংবাদ সম্মেলনে জানান, বগুড়ার সোনাতলা উপজেলার শিহিপুর গ্রামের মৃত আছমতউল্লা ব্যাপারীর পুত্র আলহাজ্ব আ. মান্নান বাড়িতে গরুর দুধ বিক্রির ব্যবসা খুলে বসে। সেখানে তেমন গরু না থাকলেও বিভিন্ন এলাকা থেকে দুধ সংগ্রহ করে তারা প্রক্রিয়াজাত করে আবার হাটে হাটে বিক্রি করা হয় বলে এলাকায় প্রচারণা চালানো হয়। কিন্তু এলাকার বাসিন্দারা তেমনভাবে দুধ সংগ্রহ করতেও দেখেনি। অথচ মান্নানের বাড়ি থেকে বিভিন্ন হাটে বাজারে শতশত লিটার দুধ বিক্রি করা হয়ে থাকে। বিষয়টি পুলিশের কানে পৌঁছালে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে  ৩ জনকে আটক করে।
 এ সময় মান্নানের বাড়ি থেকে নকল দুধ তৈরির কেমিকেল হুয়ে পারমিট পাউডার ২৫ কেজি, কন্টেইনারসহ ৫০ কেজি মাই মিল্ক পাউডার, জারকিনের ভেতর থাকা ১০ কেজি পারঅক্সাইড,  ১০ কেজি গ্লুকোজ পাউডার, ৫টি ব্লেন্ডার মেশিন, ২০ লিটার সোয়াবিন তেল, ৪টি মাঝারি সাইজের এ্যালমুনিয়ামের পাতিল, ১০০ লিটার তৈরিকৃত নকল দুধ জব্দ করা হয়। আটককৃতরা নকল দুধ তৈরির বিষয়টি স্বীকার করেছেন।
  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট