নামাজ ছাড়া জান্নাতে যাওয়া যাবেনা

প্রকাশিত: ১২:৩৬ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৩, ২০১৬

মুসলিম বিশ্বের আধ্যাত্মিক রাহবার, দারুল উলুম দেওবন্দের সিনিয়র মুহাদ্দিস ও জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সভাপতি, ক্বাঈদে মিল্লাত আওলাদে রাসুল (সা.) আল্লামা সায়্যিদ আরশাদ মাদানী বলেছেন, মানুষ আল্লাহর সৃষ্টির সেরা জীব। মানব হত্যা, কষ্ট দেয়া সম্পূর্ণ হারাম। তিনি বলেন, আশরাফুল মাখকুখাত হিসেবে মানুষের উচিত শুধুমাত্র এক আল্লাহর উপাসনা করা। ইহ-পরকালীন শান্তি ও মুক্তির জন্য ইসলাম ছাড়া ভিন্ন কোন মত ও পথ নেই। যারা ইসলাম থেকে বিচ্ছুত তারা জাহান্নামী। আল্লামা আরশাদ মাদানী পাচঁ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করাকে সত্যিকারের মুসলমানের আলামত উল্লেখ করে বলেন, নামাজ ছাড়া জান্নাতে যাওয়া যাবেনা। তিনি পূর্ণাঙ্গ ইসলামী অনুশাসন মেনে চলার জন্য সর্বস্তরের মুসলমানদের প্রতি আহবান জানান।
২২ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার বাদ জোহর সিলেটের গোলাপগঞ্জ উপজেলার শরীফগঞ্জে আল ইহসান পরিষদ আয়োজিত এক যুগপূর্তি উপলক্ষে আন্তর্জাতিক ইসলামী মহাসম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
জমিয়তে উলামায়ে ইসলাম বাংলাদেশ এর কেন্দ্রীয় সহ সভাপতি মাওলানা শায়খ জিয়া উদ্দীন, মাওলানা শায়খ আব্দুল মতিন নাদিয়া ও আলহাজ¦ শামসুদ্দিনের যৌথ সভাপতিত্বে এবং পরিষদের সভাপতি মাওলানা হিফজুর রহমান, সিনিয়র সহ সভাপতি মওলানা কবির আহমদ ও সাধারণ সম্পাদক হাফিজ মুনওয়ার হোসাইন ও সাংগঠনিক সম্পাদক সাদিকুর রহমানের যৌথ পরিচালনায় অনুষ্ঠিত মহাসম্মেলনের বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন প্রফেসর মাওলানা আব্দুর রশীদ- ভারত, হাফিজ মাওলানা মুহসিন আহমদ কৌড়িয়া, মাওলানা রিয়াজ উদ্দিন, মাওলানা হাফিজ আব্দুল ফাত্তাহ, মাওলানা মুফতি মুহিবুর রহমান দেওবন্দী, মাওলানা আমিনুর রশিদ, মাওলানা আব্দুল বাছিত, মাওলানা শরীফ উদ্দিন, মাওলানা হেলাল আহমদ, মাওলানা এনামুল হক বহরগ্রামী, মাওলানা নজরুল ইসলাম। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মাওলানা আব্দুল গফফার, মাওলানা নুর উদ্দিন, মাষ্টার আজির উদ্দিন, শরীফগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল মুহিত হিরা, সাবেক চেয়ারম্যান এম.এ মুছাব্বির, আবুল কালাম, হাফিজ মাওলানা আলী আহমদ, মাওলানা সাইফুর রহমান, মাওলানা এনামুল ইসলাম কলিম, মাওলানা সাইফুর রহমান, মাওলানা সালেহ আহমদ শাহবাগী, মাওলানা এমাদ উদ্দিন সালিম, মাওলানা তাজ উদ্দিন, মাওলানা আব্দুল হামিদ, মাওলানা তোফায়েল আহমদ, হাফিজ মাওলানা আব্দুর রব, মাওলানা ফখরুল ইসলাম, মাওলানা ওলিউর রহমান, মৌলভী মুহিব উদ্দিন মুন্সি, মাওলানা আবুল কাশেম, মাওলানা নুরুল ইসলাম, মাওলানা আলাউদ্দিন আল হাদী, মাওলানা এনাম, মাওলানা আব্দুস সবুর, মাওলানা হাফিজ আলী আহমদ, মাওলানা লোকমান হাকিম, ইয়াহইয়া হামিদী, মাওলানা আজিজুর রহমান।
আল্লামা আরশাদ মাদানী দুপুর ১২ টায় সিলেট বিমাবন্দর থেকে সড়ক পথে শরীফরগঞ্জ এসে জোহরের নামাজ আদায় করেন। বাদ জোহর বয়ান ও বায়াত শেষে বিকেল ৩টায় হেলিকপ্টার যোগে জগন্নাথপুরের কাতিয়া মাদ্রাসার উদ্দেশ্যে শরীফগঞ্জ ত্যাগ করেন। রাতে সিলেট নগরীর নয়াসড়ক মাদরাসায় বয়ান পেশ করবেন।
শুক্রবার সকালে জগন্নাথপুরের সৈয়দপুর, শনিবার সকালে তিনি নেত্রকোণা জেলার মোহনগঞ্জে জামিয়া কাসিমিয়ার সম্মেলনে প্রধান অতিথির বয়ান রাখবেন, একই দিন বিকেলে ময়মনসিংহে খানকায়ে মাদানীয়া হোসাইনিয়ায় বয়ান করবেন। অতপর রোববার নয়াদিল্লীর উদ্দেশ্যে ঢাকা ত্যাগ করার কথা রয়েছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট