২৫ দফা ইশতেহার ঘোষণা : গণরায় নিশ্চিত করতে পাড়ায় পাড়ায় পাহারা বসান

প্রকাশিত: ১:২৬ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ২০, ২০১৬

এম আর কামাল/নজরুল ইসলাম বাবুল ।। বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বিএনপি প্রার্থীর ইশতেহার ঘোষণা অনুষ্ঠানে অভিযোগ করে বলেন, বেগম খালেদা জিয়া নারায়ণগঞ্জবাসীর কাছে যাতে ভোট চাইতে না পারেন তার জন্য পরিকল্পিতভাবে নির্বাচন কমিশন ও সরকার ষড়যন্ত্র করে ৭২ ঘন্টা আগে বহিরাগতদের প্রবেশের ক্ষেত্রে বিধি নিষেধ আরোপ করেছেন। যা কোনোভাবেই প্রত্যাশিত ছিল না। তিনি বলেন, যদি নারায়ণগঞ্জ নির্বাচনের ফলাফল পাল্টে দেয়ার চেষ্টা করা হয় তার জন্য সরকারই দায়ী থাকবে। নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন ২৫ দফা ইস্তেহার প্রকাশ করেন এবং অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন বলেন, আমি নির্বাচিত হলে নারায়ণগঞ্জবাসীকে সন্ত্রাসমুক্ত, যানজটমুক্ত, মাদকমুক্ত বসবাস উপযোগী মহানগরী উপহার দেব। আমার এই লক্ষ্য অর্জনের জন্য সবাই আমাকে সমর্থন করে। সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দিন (বীর বিক্রম), বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, আব্দুস সালাম, তৈমূর আলম খন্দকার, খায়রুল কবির খোকন, ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, খুলনা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, ফরিদপুর বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, কেন্দ্রীয় বিএনপির শ্রমবিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, কেন্দ্রীয় বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু, সাবেক এমপি আবুল কালাম, জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট তৈমূর আলম খন্দকার, সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুজ্জামান, শহিদুল ইসলাম বাবুল, সেলিমুজ্জামান সেলিম, হারুন অর রশিদ, এটিএম কামাল, আমিরুল ইসলাম শিমুল, হাসান মামুন, হায়দার আলী লেলিন, ওমর ফারুক সাফিন, শেখ মোঃ শামীম, ওবায়দুল হক নাসির, নরসিংদী জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি সুলতান উদ্দিন মোল্লা প্রমুখ। : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র আজ অবরুদ্ধ। দেশের মানুষের ভোটাধিকার হরণ করেছে আওয়ামী লীগ সরকার। হরণকৃত গণতন্ত্র উদ্ধার করার জন্য বিএনপি মনোনীত নাসিক মেয়র প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াতকে ধানের শীষে ভোট দিয়ে অবরুদ্ধ গণতন্ত্র মুক্তির আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ থেকে গড়ে তুলুন। : গতবারের মত এবারও শেখ হাসিনার প্রার্থীকে প্রতিরোধ করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন বিএনপির প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান। তিনি বলেন, গতবার শেখ হাসিনার প্রার্থী ছিল শামীম ওসমান। তাকে প্রতিরোধ করেছিল বিএনপি। এবার শেখ হাসিনার প্রার্থী সাবেক মেয়র আইভী। তাকেও এবার প্রতিরোধ করা হবে। গতকাল সকালে সিদ্ধিরগঞ্জের কদমতলী এলাকায় গণসংযোগকালে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন সাখাওয়াত হোসেন। : নির্বাচনে যাতে ভোটাররা ভোট কেন্দ্রে গিয়ে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট দিয়ে নির্বিঘেœ বাড়ি ফিরে আসতে পারে নির্বাচন কমিশনকে সে ব্যবস্থা নিতে হবে। নির্বাচনে স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিজিবি মোতায়েন করা হচ্ছে। কোনো কেন্দ্রে ঘটনা ঘটার খবর পেলে তারা সেখানে যাবে। ঘটনা ঘটে গেলে সেখানে যাওয়াতো মূল্যহীন। তার জন্য অবিলম্বে সেনা মোতায়েনের দাবি আবারো জানান সাখাওয়াত হোসেন। সাখাওয়াত হোসেন বলেন, সরকারি দল নির্বাচনকে বিতর্কিত করার চেষ্টা করছে। তারা তাদের পরাজয় টের পেয়ে নির্বাচনে প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা করছে। গত সোমবার যুবলীগের চেয়ারম্যান ওমর ফারুকের একটি বক্তব্য তুলে ধরে তিনি বলেন, যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেছেন আমাকে ২২ তারিখ সকাল ৮টায় কোরবানি দেয়া হবে। এই বক্তব্য উস্কানিমূলক এবং গণতন্ত্র বিরোধী বলে দাবি করে সাখাওয়াত বলেন, আমার পক্ষে গণজোয়ার দেখে ভোটারদেরকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তার মত একজন দায়িত্বশীল নেতা দায়িত্বশীল পর্যায়ে থেকে এ ধরনের বক্তব্য দেবেন আশা করিনি। এ ধরনের বক্তব্য দেয়া থেকে তিনি (ওমর ফারুক) বিরত থাকবেন বলে আশা করি। সাখাওয়াত বলেন, নারায়াণগঞ্জের বিএনপি, তৃণমূল আওয়ামী লীগসহ সকল দল, জনগণ আমার পক্ষে, ধানের শীষের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। ধানের শীষের পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। : সিদ্ধিরগঞ্জের ওসিকে প্রত্যাহারে আইভীর দাবি সম্পর্কে সাখাওয়াত হোসেনের মন্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, সিদ্ধিরগঞ্জের সকল মানুষ ধানের শীষের পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। এই গণজোয়ারে ভীত হয়ে জনমতকে বিভ্রান্ত করার জন্যই ওসিকে প্রত্যাহার চেয়েছে আইভী। আইভীর ওই দাবি অমূলক বলে দাবি করেন তিনি। গতকাল সিদ্ধিরগঞ্জের ৭, ৮ ও ১০ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগকালে সাখাওয়াত হোসেন খানের সাথে ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির ফরিদপুর বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক শামা ওবায়েদ, খায়রুল কবির খোকন, নাজিমুদ্দিন আলম, হাবিবুর রহমান হাবিব, মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দন, রফিক শিকদারসহ জাতীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। : মিজানুর রহমান মিনুর নেতৃত্বে শহরের ১৩ নং ওয়ার্ডে বিশাল মিছিল : বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও রাজশাহীর সাবেক সফল মেয়র এবং শহরের ১৩ নং ওয়ার্ডে দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রধান সমন্বয়ক মিজানুর রহমান মিনুর নেতৃত্বে গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় কেন্দ্রীয় ঈদগাহ এলাকা থেকে ধানের শীষের পক্ষে বিশাল মিছিল ওয়ার্ডের বিভিন্ন মহল্লা প্রদক্ষিণ করে। এ সময় তার সাথে ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান খন্দকার, স্থানীয় বিএনপি নেতা কাজী আসলাম ও আবুল কালাম আজাদ। মিছিলের আগে বক্তব্যে মিজানুর রহমান মিনু বলেন, দেশের মানুষ আজ ভোটের অধিকার থেকে বঞ্চিত। আমরা বিশ্বাস করি, জনগণের ঐক্যবদ্ধ অবস্থানের ফলে অবশ্যই জনগণের বিজয়ী হবে এবং আগামী দিনগুলোতে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে। এই নির্বাচনের মধ্য দিয়ে নারায়ণগঞ্জের মানুষ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার প্রার্থী, ধানের শীষের প্রার্থীকে বিজয়ী করবেন। তিনি বলেন, এ নির্বাচনে বিশ দলীয় জোটের প্রার্থী তথা খালেদা জিয়ার প্রার্থী হলেন সাখাওয়াত। এ সরকারের আমলে কেউ নিরাপদ না। এ সরকার গণতন্ত্র, মৌলিক অধিকার, ভোটের অধিকার হরণ করেছে। মানুষ ভোটের অধিকার থেকে বঞ্চিত হয়েছে। কিন্তু দেশে মানবাধিকার নেই। হত্যা, খুন, গুম সবই চলছে দেশে। শুধু বিএনপির নেতাকর্মী না সাধারণ মানুষও মামলায় জর্জরিত। : নাসিকের বন্দরে রুহুল কবির রিজভীর গণসংযোগ : বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বাংলাদেশের গণতন্ত্র আজ অবরুদ্ধ। দেশের মানুষের ভোটের অধিকার হরণ করেছে আওয়ামী লীগ সরকার। হরণকৃত গণতন্ত্র উদ্ধার  করার জন্য বিএনপি মনোনীত নাসিক মেয়র প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াতকে ধানের শীষে ভোট দিয়ে অবরুদ্ধ গণতন্ত্র মুক্তির আন্দোলন নারায়ণগঞ্জ থেকে গড়ে তুলুন। গতকাল সোমবার দুপুরে নাসিক ১৯ ওয়ার্ডে ধানের শীষের পক্ষে গণসংযোগ শেষে পথসভায় তিনি এ কথা বলেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাড. সানাউল্লাহ মিয়া, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর শরাফত আলী সপু, সহ-প্রচার সম্পাদক আসাদুল করিম শাহীন, আমিরুল ইসলাম আলীম, ইঞ্জিনিয়র গালিব, নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম, ঢাকা বিভাগ স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা উজ্জল, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক আকরাম প্রধান, যুগ্ম আহবায়ক রিয়াদ চৌধুরী ও সালেহ আহাম্মেদ ওপেল প্রমুখ। এ সময় বিএনপির হাজার হাজার কর্মী গণসংযোগে অংশগ্রহণ করে মিছিলের মতো শ্লোগান দেয়ায় ১৯ নং ওয়ার্ডের মোবাইল কোর্টের ম্যাজিস্ট্রেট অ্যাড. রুহুল কবির রিজভীকে মিছিল না করার জন্য সতর্ক করে দেন। অপরদিকে বিএনপির উপদেষ্টা ও স্থায়ী কমিটির সদস্য আমান উল্লাহ আমান মেয়র প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াতের পক্ষে ধানের শীষে ভোট চেয়ে ২২ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেছেন। এ সময় তার সাথে ছিলেন নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য অ্যাড. আলহাজ আবুল কালাম, বন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ আতাউর রহমান মুকুল, বিএনপি নেতা হাজী নুরুদ্দিন প্রমুখ। বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ হেঁটে ভোটারদের কাছে ভোট চেয়ে বেড়ান। : শামসুজ্জাম দুদুর নেতৃত্বে ১১ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ : বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদুর নেতৃত্বে নাসিক নির্বাচনে ১১ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেছে বিএনপির নেতাকর্মীরা। এ সময়ে দুদু পথসভায় বলেন, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে সাধারণ ভোটারদের সাথে নির্বাচন কমিশন এবং সরকারের আচরণ নাসিক নির্বাচনে আবার প্রকাশ পাবে। বিএনপি আশা করে, বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ শেষের এই নির্বাচন অন্তত সুষ্ঠু হবে। নাসিকবাসী নাগরিক অধিকার ফিরে পাবার এই নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীকে বেছে নিয়েছেন। এখন পর্যন্ত সাখাওয়াত হোসেনের পে যে জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে এটি ধরে রাখতে পারলে এবং সরকার ও নির্বাচন কমিশন নিরপে ভূমিকা পালন করলে তিনি বিপুল ভোটে বিজয়ী হবেন। ১১নং ওয়ার্ডের সভাপতি ফারুক হোসেনের সভাপতিত্বে এ সময় পথসভায় সাবেক সংসদ সদস্য হারুনুর রশিদ, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম মাষ্টার, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় নেতা নাসির উদ্দিন হাজারী, ছাত্রদলের দফতর সম্পাদক আব্দুস ছাত্তার পাটোয়ারী, কৃষক দলের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য অধ্যাপক সেলিম হোসেন ও আলীম হোসেন প্রমুখ। : ডা. এজেড এম জাহিদের নেতৃত্বে গণসংযোগ : নাসিক নির্বাচনে ৩ নং মাদানী নগর, মুবধী নগর ও শানারপাড় এলাকায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেনের নেতৃত্বে গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। এ সময় ডা. সিরাজ উদ্দিন, ডা.  আব্দুস কুদ্দুস, ডা. মোস্তাক রহিম স্বপন, জাহানারা বেগম, ডা. সাইফুদ্দিন, ডা.  নেছার আহমেদ, ডা. শোয়েব আলম, ডা. জন, ডা. ফারুক, ডা. আরিফ, ডা. পারভেজ রেজা, ডা. নিলু, ডা. বিপ্লব, ডা. ওয়াসিম, ডা. রানা প্রমুখ। : নাসিকের শহর ও বন্দর থানা এলাকায় কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতাদের গণসংযোগ ও মিছিল : ৯নং ওয়ার্ডে ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, ব্যাপক গণসংযোগ করেন। উপস্থিত ছিলেন জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আলী নেওয়াজ খান খৈয়াম, বাবুল আহমেদ। ১০নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহাবুব উদ্দিন খোকন। ১১নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অবঃ) হাফিজ উদ্দিন আহম্মেদ বীর বিক্রম, উপস্থিত ছিলেন বিএনপির কোষাধ্যক্ষ মিজানুর রহমান সিনহা, নির্বাহী সদস্য নুরজাহান মাহবুব, রহিমা সিকদার, ছাত্রদল নেত্রী নিশিতা সুলতানা। ১২নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন ছাত্রদল সভাপতি রাজিব আহসান, সহ-সভাপতি মামুনুর রশিদ, আবু আল আতিক হাসান মিন্টু, মনিরুল ইসলাম মনির, আলমগীর হাসান সোহান, উপস্থিত ছিলেন সাবেক কমিশনার নবিউল্লাহ নবি, ফারুক, সরকার আলম।  : ১৩নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিল মিজানুর রহমান মিনু, সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক কামরুজ্জামান রতন, নির্বাহী সদস্য সাইদ সোহরাব। ১৪নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন সাংগঠনিক সম্পাদক-খুলনা বিভাগ নজরুল ইসলাম মঞ্জু, প্রকাশনা সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব, ছাত্রদল নেতা মামুন হোসেন ভূইয়া। : এছাড়া ১৫নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন সাংগঠনিক সম্পাদক, রাজশাহী বিভাগ রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, সদস্য-জাতীয় নির্বাহী কমিটি-নুর মোহম্মদ মন্ডল, ছাত্রনেতা ইয়াছিন ফেরদাউস মুরাদ, মোস্তাকুর রহমান মোস্তাক। ১৬নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য লেঃ জেঃ (অবঃ) মাহবুবুর রহমান, অধ্যাপক ড. সুকুমার বড়–য়া, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক, বরিশাল বিভাগ আ ক ন কুদ্দুসুর রহমান কুদ্দুস, নির্বাহী কমিটির সদস্য হায়দার আলী লেলিন, সুরুজ আহম্মেদ, যাত্রবাড়ী থানা বিএনপির সভাপতি নবী উল্লাহ নবী, সাবেক কমিশনার হাজী মো. মোহন, বিএনপি নেতা আকবর হোসেন ভূইয়া নান্টু, কদমতলী থানা যুবদলের সভাপতি মো. আলমগীর। : ১৭নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন বিএনপির যুুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, উপস্থিত ছিলেন ঢাকার কমিশনার মোঃ মোহন। ১৮নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন বিএনপির সহ-প্রচার সম্পাদক আমিরুল ইসলাম আলীম, কেন্দ্রীয় জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান ভূইয়া দিপু, ফারুক চৌধুরী, ছাত্র নেতা শ্যামল। ১৯ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন জিয়া শিশু কিশোর সংগঠনের সাবেক সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, বন্দর থানার মহিলা দল নেত্রী কানিজ ফাতেমা, আয়েশা ছাত্তার, মমতাজ ইউসুফ। ২০ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক বদরুজ্জামান খসরু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক, কুমিল্লা বিভাগ মোস্তাক মিয়া, শ্রমিক দলের সভাপতি আনোয়ার হোসাইন, শ্রমিকদল দক্ষিণের সভাপতি আমির খসরু, সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হক বাদল, বিএনপি নেতা মেহেদী, মোস্তাফিজ। ২১নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন ঢাকা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, সহ-তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক-আমিরুজ্জামান খান শিমুল, সদস্য-জাতীয় নির্বাহী কমিটি-জামাল শরীফ হিরু, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য-ওমর ফারুক সাফিন, আবু বক্কর সিদ্দিক। ২২নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ফরিদপুর বিভাগ-মাশুকুর রহমান মাসুক, সদস্য-জাতীয় নির্বাহী কমিটি আবুল হোসেন খান, ঢাকা মহানগর বিএনপি সাইদুর রহমান মিন্টু, খন্দকার ওসমান গনি টুটুল, কমিশনার কাদির, লিয়াকত আলী, সাব্বির আহম্মেদ আরিফ। ২৩ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ময়মনসিংহ বিভাগ শরিফুল আলম, সহ-পরিবার কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল, সাবেক ছাত্র নেতা নুরুল ইসলাম নয়ন, ব্যারিস্টার মীর হেলাল উদ্দিন। ২৪নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিল মনিরুল হক চৌধুরী সদস্য, যুগ্ম মহাসচিব  হারুন অর রশিদ, মহিলা দল কেন্দ্রীয় সংসদের যুগ্ম সম্পাদিকা হেলেন জেরিন খান, ফরিদা মনি সহিদুল্লাহ, রাজিয়া আলী, ২৫ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন সম্পাদক-বিশেষ দায়িত্বে ড. আসাদুজ্জামান রিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক জাতীয় নির্বাহী কমিটি মাহবুবের রহমান শামিমসহ আরও সাবেক ছাত্রনেতা বিল্লাল হোসেন তারিক, শ্রমিক নেতা মোস্তাফিজুর রহমান মজুমদার। ২৬ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন তথ্য বিষয়ক সম্পাদক আজিজুল বারী হেলাল, কিশোরগঞ্জ জেলা সভাপতি শরীফুল আলম, ফজলুল হক, কাজী হযরত আলী, জামির হোসেন। ২৭নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন চেয়ারপারসনর উপদেষ্টা কাউন্সিল সদস্য অধ্যাপক জয়নাল আবেদিন ভিপি, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক রাশেদা বেগম হীরা। : আ ক ম মোজাম্মেলের নেতৃত্বে যুবদলের গণসংযোগ : নাসিক নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেনের পে কেন্দ্রীয় যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ক ম মোজাম্মেল হকের নেতৃত্বে দিনভর ১৭-১৮ নং ওয়ার্ডে ব্যাপক গণসংযোগ করে স্থানীয় বিএনপি, যুবদল, ছাত্রদলসহ অংগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ । : ১৭-১৮ নং ওয়ার্ডের অলিতে গলিতে গণসংযোগকালে উপস্থিত ছিলেন জেলা যুবদলের সভাপতি মোশাররফ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম মুকুল, মহানগর যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক মানোয়ার হোসেন সোকন, মাসুদ, জুয়েল আহমেদ, ফারুক আহমেদ তপন, আরিফ আহমেদ গোগা, নুর এ ইয়াছিন নোবেল, আতাউর রহমান, মনিরুজামান ও আরিফু জামান। এ সময় উপস্থিত নেতাকর্মীরা  মুহুর্মুহু শ্লোগানের মাধ্যমে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট চান। এ সময় এক পথ সভায় মোজ্জামেল হক বলেন, নারায়ণগঞ্জবাসী নাগরিক অধিকার ফিরে পাবার এই নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থীকে বেছে নিয়েছেন। এখন পর্যন্ত সাখাওয়াত হোসেনের পে যে জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে। সরকার ও নির্বাচন কমিশন নিরপে ভূমিকা পালন করলে তিনি লক্ষাধিক ভোটে বিজয়ী হবেন। : বাদরু ও এসএম জাহাঙ্গিরের নেতৃত্বে গণসংযোগ : নাসিক নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেনের পে ব্যাপক গণসংযোগ ও লিফলেট বিতরণ করেছে যুবদল। এ সময়ে ঢাকা মহানগর যুবদল দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক, যুবদলের সহ- সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শহীদ উল্লাহ তালুকদার, গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মাহবুবুল আলম পিংকু, সহ-সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনু, কেন্দ্রীয় সদস্য গিয়াস উদ্দিন মামুনসহ পাঁচ শতাধিক নেতাকর্মী গণসংযোগ করেন। : নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ১৫ নং ওয়ার্ডে বিএনপির সহ-যুব বিষয়ক সম্পাদক মীর নেওয়াজ আলী নেওয়াজের নেতৃত্বে গণসংযোগ করেছে যুবদলের একটি টিম। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সহ-তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আফজাল হোসেন সবুজ, যুবদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোনায়েম মুন্না, যুবদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আমজাদ হোসেন, অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর হোসেন, যুবনেতা কাদের সিদ্দিকী প্রমুখ। : কেন্দ্রীয় নেতাদের শেষ দিনের প্রচারণায় মুখরিত সিদ্ধিরগঞ্জ : নাসিক নির্বাচনে আনুষ্ঠানিক প্রচারণার শেষ দিনে গতকাল সোমবার ধানের শীষের পক্ষে বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের প্রচারণায় সিদ্ধিরগঞ্জের প্রতিটি ওয়ার্ড এলাকা মুখরিত হয়ে উঠেছিল। প্রতি ওয়ার্ডে দুই জন করে কেন্দ্রীয় নেতার সমন্বয়ে গঠিত টিমগুলো ছাড়াও জাতীয় নেতারা শেষ দিনের প্রচারণায় সকাল থেকেই ব্যস্ত ছিলেন। কোনো সময় অপচয় না করেই স্থানীয় নেতা-কর্মীদের সাথে নিয়ে সকাল থেকেই নেমে পড়েছেন মহল্লাগুলোতে। তারা বেশ কয়েকটি মহল্লায় ব্যাপক সংখ্যাক ভোটার-সমর্থকদের নিয়ে মিছিল করেছেন। : নির্বাচনে সিদ্ধিরগঞ্জের প্রধান সমন্বয়কারী বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশনের বেধে দেয়া সময় অনুযায়ী গতকাল সোমবার রাত ১২টা পর্যন্ত জাতীয় ও অন্য এলাকার নেতাদের নারায়ণগঞ্জে প্রচারণার শেষ দিন। এ কারণে তারা শেষ সময়টুকু প্রচারণায় কাজে লাগিয়েছেন। সিদ্ধিরগঞ্জে কেন্দ্রীয় নেতাদের সমন্বয়ে গঠিত টিমগুলো ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে কাজ করেছে।  তিনি জানিয়েছেন, গতকাল বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা: এ জেড এম জাহিদ হোসেন, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা জয়নাল আবেদিন ফারুক, আবুল খায়ের ভুইয়া, হাবিবুর রহমান হাবিব, আতাউর রহমান ঢালী, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খান, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিমউদ্দিন আলম, মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, আলী নেওয়াজ খান খৈয়াম, আবুল কালাম আজাদ, ডা: দেওয়ান সালাহ উদ্দিন বাবু, হাবিবুর রহমান হাবিব, অ্যাডভোকেট রফিক সিকদার, বাবুল আহম্মেদ, একরামুল হক বিপ্লব, গণ শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ সেলিম ভুইয়া, সহ-স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক ডা: রফিকুল ইসলাম, সহ-বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক রনলক ইসলাম টিপু, যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যালবার্ট পি কস্তা, মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহম্মেদ, মুক্তিযোদ্ধা দলের যুগ্ম সম্পাদক শহীদুল ইসলাম মিলন, কৃষক দলের জাহাঙ্গীর আলমসহ যুবদল, ছাত্রদল, মহিলাদল, মুক্তিযোদ্ধা দলের নেতারা গণসংযোগ করেছেন। : এ সময় স্থানীয় নেতাদের মধ্যে ছিলেন থানা বিএনপির সদস্য সচিব অধ্যাপক মামুন মাহমুদ, যুগ্ম আহ্বায়ক মনিরুল ইসলাম রবি, সাবেক সভাপতি আব্দুল হাই রাজু, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এমএ হালিম জুয়েল, যুগ্ম আহ্বায়ক আলী আহম্মেদ লালা প্রমুখ। ২নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা- আতাউর রহমান ঢালি। আরও উপস্থিত ছিলেন শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ এম নাজিমুদ্দিন, যুবদল নেতা মোরতাজুল করিম বাদরু, মনিরুল আলম সেন্টু, আমিনুল ইসলাম মহসিন। ৩নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা- কাজী আসাদ, উপদেষ্টা আবুল খায়ের ভূইয়া, উপস্থিত ছিলেন গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক- অধ্যক্ষ সেলিম ভূইয়া। : ৪নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক, কুমিল্লা বিভাগ, আবদুল আউয়াল খান, সহ-সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক-মনির খান, সালাউদ্দিন শিশির, একরামুল হক বিপ্লব। ৫নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন ডাকসুর সাবেক এজিএস নাজিম উদ্দিন আলম, উপস্থিত ছিলেন-ঢাকা বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. আব্দুস সালাম, নির্বাহী কমিটির সদস্য রফিক সিকদার, যুবদলের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যালবার্ড ডি কষ্টা, ওলামা দলের সভাপতি-হাফেজ আব্দুল মালেক। ৬নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন জাতীয় নির্বাহী কমিটি হাবিবুর রশিদ হাবিব ও ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আক্রামুল হাসান। ৭নং ওয়ার্ডে গণসংযোগ করেন সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ গিয়াস উদ্দিন, সদস্য-জাতীয় নির্বাহী কমিটি শাহ মোঃ আবু জাফর। : নাসিক নির্বাচনে বিজিবি মোতায়েন হাস্যকরÑ সাখাওয়াত : নাসিক নির্বাচনে ‘স্ট্রাইকিং ফোর্স’ হিসেবে বিজিবি মোতায়েনকে হাস্যকর বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খান। গতকাল সোমবার সকালে শহরের মিশনপাড়া ও চাষাড়া এলাকায় গণসংযোগের সময় এমন মন্তব্য করে তিনি পুনরায় সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানান। সাখাওয়াত হোসেন বলেন, স্ট্রাইকিং ফোর্স মানে কী? কোথাও কোনো ঘটনা ঘটার পরে তারা সেখানে উপস্থিত হবে। ঘটনা ঘটে যাওয়ার পর উপস্থিত হলে সেটা তো কার্যকর হল না। ঘটনা যাতে না ঘটতে পারে, সেই ব্যবস্থার দাবি ছিল আমাদের। তাই স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিজিবি মোতায়েন করাকে আমি হাস্যকর বলে মনে করি। : তিনি আরো বলেন, নাসিক নির্বাচনে প্রথম থেকেই সেনা মোতায়েনের দাবি ছিল আমাদের। নির্বাচনকে সুষ্ঠু করতে হলে সেনাবাহিনী মোতায়েন দরকার। এখানে সেনাবাহিনী মোতায়েন হলে মানুষের মধ্যে স্বস্তি ফিরে আসত। আমি মনে করি, সেটা এখনো সম্ভব, সেটা অবিলম্বে করা উচিত। : নজরুল ইসলাম মঞ্জুর নেতৃত্বে ১৪নং ওয়ার্ডে ধানের শীষ প্রতীকের পক্ষে  প্রচারণা :  নাসিক নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খানের পক্ষে শহরের ১৪নং ওয়ার্ড এলাকায় ব্যাপক প্রচারণা চালিয়েছেন সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জুসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ। গতকাল সোমবার বেলা ১১টায় নেতৃবৃন্দ ধানের শীষ প্রতীকে ভোট চেয়ে প্রচারণা শুরু করেন। ওয়ার্ডের প্রতিটি পাড়া-মহল্লায় গিয়ে নেতৃবৃন্দ ধানের শীষের প্রার্থীকে বিজয়ী করার আহ্বান জানিয়ে লিফলেট বিতরণ করেন। এ সময় ভোটারদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া পড়ে। তারাও নেতৃবৃন্দের সঙ্গে ধানের শীষের প্রচারণায় অংশ নেন। প্রচারণাকালে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি নেতা মনির হোসেন খান, আব্দুস সবুর খান সেন্টু, মোবরাক হোসেন, শাহজাহান, যুবদল নেতা পারভেজ, আল আমিন খান, মহানগর ছাত্রদল নেতা শেখ মাগফুর ইসলাম পাপন, শরিফুল ইসলাম শাফিন, লিংরাজ খান, হিরণ মল্লিক, বদিউজ্জামান ইমন, মারুফ হোসেন, আরাফাত নেওয়াজ সানজি, সৌরভ দে সেতু, শফিকুল ইসলাম রাফিন, শ্রমিকদল নেতা কামাল হোসেন, জুয়েল প্রমুখ। : ধান লাগা, নৌকা ডুবা : নাসিক নির্বাচনে গতকাল ছিল মিছিলের নগরী। ধানের শীষের পক্ষে শহরে বিশাল বিশাল একাধিক মিছিল শহরের প্রধান প্রধান শহর প্রদক্ষিণ করে। সেøাগানে সেøøাগানে মুখরিত হয়ে উঠছে নগরীর পাড়া মহল্লা। দলীয় প্রতীকে নির্বাচন হওয়ায় বিএনপি দলীয় নেতৃবৃন্দদের সেøøাগানের উত্তাপ যেন দিন দিন ভিন্ন মাত্রা যোগ করছে প্রচারণার েেত্র। এমনটাই দেখা গেছে রবিবার দুপুরে শহরের ২নং রেল গেটস্থ ডায়মন্ড হলের সামনে। যেখানে হ্যান্ড মাইক হাতে নিয়ে কেন্দ্রীয় বিএনপির ঢাকা বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন। তার সাথে ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব:) হাফিজ উদ্দিন আহাম্মদ। ফজলুল হক মিলন শ্লোগান দেন, ‘ধান লাগা, নৌকা ডুবা’, খালেদা জিয়ার মার্কা ধানের শীষ, সাখাওয়াতের মার্কা ধানের শীষ ইত্যাদি। তবে নেতাকর্মী ও শহরবাসীর কাছে সবচেয়ে বেশি আকর্ষণীয় ছিল, ‘ধান লাগা, নৌকা ডুবা’ শ্লোগানটি বলে জানান নারায়ণগঞ্জ বিএনপির নেতৃবৃন্দ। : সাখাওয়াতে প্রচারে সাবেক এমপি লালু : নারায়ণগঞ্জের ধানের শীষের জোয়ার বইছে : বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সাবেক এমপি মোঃ হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু বলেন, নারায়ণগঞ্জে ধানের শীষের জোয়ার বইছে। গতকাল সোমবার নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি দলীয় মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খানের পে ১৭ নং ওয়ার্ডে গণসংযোগকালে তিনি এ কথা বলেন। লালু বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে ভোট হলে ও ভোটাররা যদি কেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারলে ধানের শীষের বিজয় নিশ্চিত। তিনি আরো বলেন, আমরা স্বতঃস্ফূর্তভাবে ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। আমার বিশ্বাস যদি জনগণ সঠিকভাবে ভোট দিতে পারে, ভোটকেন্দ্রে যেতে পারে ইনশাল্লাহ বিজয় আমাদের সুনিশ্চিত। গণসংযোগকালে তার সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন ১৭ নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আবুল হোসেন সরদার, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোসেন কাজল, সহ-সভাপতি আক্তার হোসেন, মাহাবুব হোসেন, হাজী ময়েন উদ্দিন, হারুন আর রশিদ, যুবদলের সভাপতি আল মামুন, যুবনেতা আমির হোসেন, মামুন হোসেন, জিয়া উদ্দিন জিয়া, মাসুম, বাবু, রিপন প্রমুখ। সফর সঙ্গী হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বগুড়ার গাবতলী থানা যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক আরিফুর রহমান মজনু, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক মোরশেদ আল আমিন লেমন, শাজাহানপুর থানা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রেজা, সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম খোকন, যুবনেতা মিলটন হোসেন। : নাসিক নির্বাচনে হোমনা-তিতাস বিএনপি নেতৃবৃন্দের গণসংযোগ : নারায়গঞ্জ সিটি কর্পোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত ও ২০ দল সমর্থিত প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াত  হোসেন খানের ধানের শীষের পক্ষে গতকাল সোমবার দিনভর গণসংযোগ করেছেন কুমিল্লা-২ হোমনা-তিতাস নির্বাচনি এলাকার বিএনপি নেতৃবৃন্দ। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী এমকে আনোয়ার অসুস্থ থাকায় তার পরামর্শে কুমিল্লা (উঃ) জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আক্তারুজ্জামান সরকার গণসংযোগে নেতৃত্ব দেন। সকালে সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকার ৭, ৮, ৯ ও ১০ নং ওয়ার্ডের কদমতলী উত্তর পাড়া, নয়া পাড়া, দক্ষিণ পাড়া, গোদনাইল নয়াপাড়ায় হোমনা-তিতাস এলাকার ভোটারদের সাথে বিএনপির নেতৃবৃন্দ সাখাওয়াতের জন্য ভোট কামনা করেন। এক পর্যায়ে অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন এই এলাকায় নির্বাচনি প্রচারণায় এলে হোমনা-তিতাসের ও জেলা নেতৃবৃন্দ দীর্ঘক্ষণ তার সাথে প্রচারণায় শামিল হন। পরে হোমনা-তিতাসের নেতৃবৃন্দ নারায়ণগঞ্জে দলের প্রধান কার্যালয় ও কোর্ট এলাকায় নির্বাচনি ক্যাম্পে  দলের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে নির্বাচন বিষয়ে মত বিনিময় করেন। গণসংযোগে অন্যান্যের মাঝে হোমনা উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাড. আজিজুর রহমান মোল্লা ও জেলা- উপজেলা বিএনপি নেতৃবৃন্দের মাঝে চেয়ারম্যান হারুন অর রশিদ, চেয়ারম্যান আক্তারুজ্জামান, মোঃ আলমগীর সরকার, মোঃ শাহআলম, সানাউল্লাহ সরকার, মোঃ হুমায়ূন, চেয়ারম্যান নূরুজ্জামান মিন্টু, সালমা বেগম, মোশারফ হোসেন ও খোরশেদ আলম দিনভর গণ সংযোগে আংশ গ্রহণ করেন। গণ-সংযোগকালে ভোটারদের শুধু একটি দাবি ছিল “ভোট প্রদানের সুষ্ঠু পরিবেশ”। সুষ্ঠু পরিবেশ পেলে তারা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে নির্বাচিত করবেন। : বিএনপির মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেনের ২৫ দফা ইশতেহার : নাসিক নির্বাচনে বিএনপি মনোনিত প্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান ২৫ দফা ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। সোমবার দুপুরে শহরের শায়েস্তা খান সড়কে স্থাপিত মিডিয়া সেলে সংবাদ সম্মেলন করে ওই ইশতেহার ঘোষণা করেন সাখাওয়াত হোসেন। সাখাওয়াত আরও বলেন, জনস্বার্থে প্রয়োজনে আরও কাজ করবো। : ইশতেহারগুলো হলো, সিটি করপোরেশন পরিচালনার জন্য দলমত নির্বিশেষে সব ধর্ম, বর্ণ ও পেশার লোকদের সমন্বয়ে উপদেষ্টা কাউন্সিল গঠন, শীতল্যা সেতু বাস্তবায়ন, ২নং রেলগেট ও চাষাঢ়ায় দুটি ফাইওভার বা আন্ডারপাস নির্মাণ, আইনশৃঙ্খলার উন্নতি ও মাদকদ্রব্যের নিয়ন্ত্রণে এলাকার পঞ্চায়েত ও বিশিষ্ট নাগরিকদের নিয়ে প্রতিটি মহল্লায় কমিটি গঠন, বোট খাল, বোয়ালিয়া খাল, হিরালাল খাল এবং বন্দরের ৩৫টি খাল পুনরুদ্ধার ও খনন এবং ড্রেনেজ ব্যবস্থা আধুনিকায়ন, শীতল্যা নদী দূষণমুক্ত করে দু’পাড়ে ওয়াকওয়ে নির্মাণ এবং পরিবেশ দূষন রোধে কার্যকরি ব্যবস্থা গ্রহণ, গরীব ও মেধাবী শিার্থীদের জন্য শিাবৃত্তি চালু, বিনামূল্যে শিা উপকরণ প্রদান এবং শিার্থীদের জন্য বাস, ট্রেন ও লঞ্চে হাফ ভাড়া চালু, নারায়ণগঞ্জ ও বন্দরে মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ এবং পূর্ণাঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার জন্য পদপে, মহিলাদের জন্য নদীর দু’পাড়ে আধুনিক মাতৃসদন হাসপাতাল প্রতিষ্ঠা ও বিনামূল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদানের উদ্যোগ; সিটি করপোরেশন এলাকায় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধানে পদপে এবং বিদ্যুতের হয়রানিমূলক ভূতুড়ে বিল বন্ধে ব্যবস্থা, সিটি করপোরেশন আওতাধীন প্রতিটি ঘরে ঘরে বিশুদ্ধ পানি সরবরাহের ব্যবস্থা এবং টিউবওয়েলের ওপর সকল প্রকার কর রহিত করার ব্যবস্থা গ্রহণ, যাত্রীসেবার মান বৃদ্ধির জন্য সিটি করপোরেশনের উদ্যোগে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ রোডে কম ভাড়ায় আধুনিক বাস সার্ভিস চালু, প্রতিটি ওয়ার্ডে কম্পিউটার প্রযুক্তিসহ আধুনিক পাঠাগার ও শিার্থীদের জন্য আইটি প্রশিণ কেন্দ্র স্থাপন, আধুনিক ও পরিবেশ বান্ধব শিল্প কারখানা স্থাপনের জন্য বিনিয়োগ বান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি, নদীর দুপাড়ে দুটি আধুনিক স্টেডিয়াম স্থাপন, অবৈধ দখলদারদের কবল থেকে খাস জমি উদ্ধার করে, ভূমিহীন ও অল্প আয়ের মানুষের জন্য অত্যাধুনিক আবাসিক কলোনি নির্মাণ এবং স্থায়ীভাবে হকারদের পুনর্বাসন করে ফুটপাত দখলমুক্ত রাখা, সিটি করপোরেশনের অর্থায়নে বেকার যুবক ও যুবতীদের বৃত্তিমূলক প্রশিণের ব্যবস্থা, শ্রমিক ভাইবোনদের জন্য একটি আধুনিক হাসপাতাল নির্মাণ ও বিনামূল্যে ওষুধসহ সকল প্রকার পরীা নিরীা করার ব্যবস্থা, মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের পরিবারকে সকল প্রকার কর থেকে মুক্ত রাখা এবং সিটি করপোরেশনের অর্থে তাদের জন্য উন্নতমানের চিকিৎসা ব্যবস্থা গ্রহণ, হাজীগঞ্জ ও সোনাকান্দা কেল্লাকে নগরবাসীর জন্য আধুনিক বিনোদন কেন্দ্রে রূপান্তর করা, প্রতিটি বাজারকে আবর্জনা ও কাদা মুক্ত রাখার জন্য আধুনিকীকরণ, হোল্ডিং ট্যাক্স সহনীয় মাত্রায় রাখার জন্য উদ্যোগ, সব বয়সের মানুষের চিত্তবিনোদনের জন্য নদীর দু’পাড়ে আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত দু’টি পার্ক নির্মাণ, বন্দরের সোনাকান্দায় অবস্থিত মেরিন টেকনোলজি ইনস্টিটিউটকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রূপান্তরের পদপে গ্রহণ, শহরকে ধূলাবালুসহ ময়লা আবর্জনা মুক্ত রাখার জন্য পরিবেশ বান্ধব ড্যাম্পিং ইয়ার্ড নির্মাণ।
  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট