সিলেটে শেভরন কর্মচারীদের মানববন্ধন পালন

প্রকাশিত: ৪:০৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৮, ২০১৬

চাকুরী হারানো আতঙ্কে দিন কাটছে বহুজাতিক গ্যাস সরবরাহকারী কোম্পানি শেভরনের কর্মকর্তা, নিরাপত্তা কর্মী ও কর্মচারীদের। এজন্য সিলেটের বিভিন্ন ফিল্ডে কর্মরতরা চাকুরী স্থায়ীকরন সহ ১১ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে আন্দোলনে নেমেছেন।
রোববার (১৮ ডিসেম্বর) বেলা ১১টায় শেভরন সিলেটের প্রধান কার্যালয় লাক্কাতুরায় কর্মরতরা অফিস ও প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে এক মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছেন। মানবন্ধনে চাকুরী স্থায়ীকরনসহ ১১ দফা কর্মসূচী ঘোষনা করেন তারা।
১১ দফা কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে, বকেয়া বাৎসরিক মুনাফা আদায়, চাকূরী স্থায়ীকরন, প্রতিবছর বাৎসরিক বেতন বৃদ্ধি, শ্রমিক কল্যাণ তহবিল সংযুক্তকরণ, জ্বালানী খনিজ ক্ষেত্রে শ্রমিক শ্রমিক কর্মচারীদেও ঝুঁকি ভাতা সংযুক্তকরণ, শ্রমিক কর্মচারীদের বাসস্থান ও যোগাযোগ ভাতা সংযুক্তকরণ, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মধ্যে বৈষম্য নীতি দূরিকরণ, অনাদায়ী ছুটি নগদিকরণ, সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন ধার্য্য করা, প্রত্যেক শ্রমিক কর্মচারীদের বীমায় সংযুক্তকরণ ও বেতন বৈষম্য দূরিকরণ।
মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ঘোষিত ১১ দফা কর্মসূচী বাস্থবায়ন করা না হলে পরবর্তীতে তারা গ্যাস সরবরাহ সহ সবধরণের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়ার হুশিয়ারী দেন। শেভরন কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নেওয়া এসব কর্মচারীর দাবি, ১৯৯৪ সাল থেকে অক্সিডেন্টাল থেকে ইউনিকল ও শেভরনের প্রথম পর্যায় থেকে তারা চাকুরি করছেন। এদের মধ্যে থেকে কিছু শ্রমিকের স্থায়ী নিয়োগ দেওয়া হলেও তারে চাকুরী এখনো স্থায়ী করা হয়নি।
মানবন্ধনে শেভরনের এসএসসি মুজাহিদ উদ্দিন সেলিম, বুধ চন্দ্র শর্মা, মনীষ কান্তি, এমএসসি শারমিন আক্তার, মেহেদী হাসান, খুরশেদ আলম, এসসি মির জামান, পলাশ কান্তি, এও সুমন দেব ও মামুন সহ প্রায় দুই শতাধিক কর্মকর্তা, নিরাপত্তা ও কর্মচারীরা অংশ নেন।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট