গোলাপগঞ্জে বিদ্যুৎ সংযোগের নামে চাঁদাবাজির অভিযোগ

প্রকাশিত: ১২:৫২ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ৬, ২০১৬

সিলেটের গোলাপগঞ্জে পল্লি বিদ্যুতের নতুন সংযোগ স্থাপনকে কেন্দ্র করে চাঁদাবাজির অভিযোগ পাওয়া গেছে। সোমবার দুপুরে সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এমন অভিযোগ করেছেন উপজেলার বাঘা ইউনিয়নের এখলাসপুর গ্রামের বাসিন্দারা।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, কানাইঘাট উপজেলা সংলগ্ন যোগাযোগ ও নাগরিক সুবিধা বঞ্চিত বিচ্ছিন্ন একটি গ্রাম এখলাসপুর। বছরের চার মাসই পানিতে তলিয়ে থাকে। শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ গ্রামের ৫ শতাধিক পরিবারে বিদ্যুৎ পৌছে দেওয়ার উদ্যোগ নেন। ২০১৫ সালে প্রায় ১৩ কিলোমিটার লাইন স্থাপনের মাধ্যমে গ্রামে বিদ্যুৎ পৌছে। কিন্তু মিটারপ্রতি সাড়ে ৬শ’ টাকা লাগলেও একটি চক্র সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে বিভিন্ন অজুহাতে মিটারপ্রতি ৪ হাজার ২শ’ টাকা, খুঁটি স্থাপন বাবদ ১৫/২০ হাজার টাকা এবং খুঁটি সরানো বাবদ ৫০ হাজার টাকা করে নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন।
এ ঘটনার সঙ্গে পল্লিবিদ্যুৎ সমিতি-১ এর পরিচালক আব্দুল আহাদ জড়িত উল্লেখ করে বলা হয়, তিনি এখলাছপুর এলাকার মুরব্বি আবুল বশর ও মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন ওরফে নেওয়াই মিয়াকে সাধারণ সম্পাদক করে ৯ সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দেন। আর ওই কমিটির সদস্যরা গ্রামবাসীর কাছ থেকে বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে বিদ্যুৎ সংযোগ পাওয়ার আশ্বাস দিয়ে টাকা আদায় করে নিচ্ছেন। এ রকম গ্রামের অনেকের কাছ থেকে টাকা আদায় করে নেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয় সংবাদ সম্মেলনে। এমন অন্যায় কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে স্বোচ্ছার গ্রামবাসী গত ২৩ অক্টোবর বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক, দুদক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও পল্লি বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর জেনারেল ম্যানেজার বরাবরে স্মারকলিপি দেন। এ কারণে অভিযুক্তরা বারবার প্রতিবাদকারীদের হুমকী দিচ্ছেন। যে কারণে অনিয়ম দুর্নীতি বন্ধে শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগীতা চেয়েছেন এলাকাবাসী। এলাকার লোকজনের পক্ষে সংবাদ সম্মেলন পড়ে শোনান ফখরুল ইসলাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন এনাম আহমদ, লাল মিয়া ও সাব্বির আহমদ প্রমুখ।



mr-rifa

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট