সিলেটের জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদীন’র পদোন্নতি

প্রকাশিত: ৩:৩১ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৮, ২০১৬

যুগ্মসচিব পদে পদোন্নতি পেয়ে ২৭ নভেম্বর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ে যোগদান করেছে সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. জয়নাল আবেদীন।
অল্প দিনের মধ্যেই সিলেট বাসীর হৃদয়ে স্থান করে নিলেও অবশেষে তাকে সিলেট ত্যাগ করতেই হচ্ছে। সম্প্রতি বাড়ি ফেরার পথে সিলেট-ফেঞ্চুগঞ্জ সড়কে দুর্ঘটনায় অটোরিকশার নিচে চাপা পড়ে কাতরাচ্ছিলেন একজন কলেজছাত্রী। সাহায্যের জন্য আর্তি জানাচ্ছিলেন। আশপাশে তেমন লোকজন না থাকলেও দুর্ঘটনাস্থল পার হয়ে একের পর এক যানবাহন ছুটে চলছে। তবে কেউ গাড়ি থামিয়ে মেয়েটিকে উদ্ধারে এগিয়ে আসেনি।
কিন্তু পাশ দিয়ে আর সবার মতো চলে যেতে পারেননি একজন মানব প্রেমিক মো. জয়নাল আবেদীন। নির্ধারিত কর্মসূচিতে না গিয়ে আগে আহত মেয়েটিকে উদ্ধার করে কাছের হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন তিনি।
সিলেটের জেলা প্রশাসক জয়নাল আবেদীন সেই দিন সিলেট বাসীর নিকট অন্ন এক জয়নাল আবেদীন হিসেবে পরিচিত হন। মানুষ তাকে মানবপ্রেমিক একজন জয়নাল আবেদীন হিসেবে আবিস্কার করেন। তার প্রতি সাধারন জনগনের ভক্তি শ্রদ্ধা,আত্মবিশ্বাস স্বাভাবিক ভাবেই বেড়ে যায় অনেক গুন।
কিন্তু দু:খ জনক হলেও সত্য যে সেই জনদরদী মানবতাবাদী এই সজ্বন ব্যক্তিত্বকে সিলেট ছেড়ে চলে যেতেই হচ্ছে।
জানা গেছে, যুগ্ম সচিব হিসেবে পদোন্নতি পেয়েছেন তিনি। সঙ্গত কারনেই তাকে নতুন কর্মস্থলে যোগ দিতে হচ্ছে। রোববার (২৭ নভেম্বর) তিনি জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান। পদোন্নতির পর রোববারই তিনি জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ে যোগ দিয়েছেন জানিয়ে জয়নাল আবেদীন বলেন, জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ে যোগ দিলেও এখনো আমি সিলেটের জেলা প্রশাসক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবো। তিনি জানান, এ অর্জন সহকর্মী, বন্ধু ও শুভানুধ্যায়ীর অপরিসীম ভালোবাসা আমাকে ও আমার পরিবারকে ভালো থাকার নিরন্তর প্রেরণা যুগিয়েছে, তাঁদের সকলের প্রতি রইলো আন্তরিক শ্রদ্ধা, কৃতজ্ঞতা ও ভালোবাসা। ভবিষ্যতেও আপনাদের শুভ কামনা অব্যাহত থাকবে এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করছি।’
উল্লেখ্য, তার আগে সিলেটের ডিসি ছিলেন মো. শহিদুল ইসলাম। ২০১৩ সালের মে মাসে তিনি সিলেটের জেলা প্রশাসক হিসেবে যোগ দেন। প্রায় দুই বছরের বেশি সময় শহিদুল ইসলাম দায়িত্ব পালনের পর সিলেটের নতুন জেলা প্রশাসক নিযুক্ত হন মো. জয়নাল আবেদিন। এর আগে তিনি হবিগঞ্জের জেলা প্রশাসকের দায়িত্বে ছিলেন।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট