সিলেটে মাছ ব্যবসায়ী রাজ্জাক খুনের আসামী গ্রেফতার

প্রকাশিত: ১১:৩৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০১৬

সিলেট রেলওয়ে স্টেশন লিংক রোড এলাকায় মাছ ব্যবসায়ী আব্দুর রাজ্জাক (৪৮) হত্যার প্রধান আসামী নাজিমুল ইসলাম রাজুকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব) সদস্যরা। গত সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে কিশোরগঞ্জ জেলার ইটনা উপজেলার মৃত মাতব্বর আলীর পুত্র। বতর্মমানে সে সিলেট নগরীর দক্ষিন সুরমার কদমতলী রেলওয়ে স্টেশনের ভাসমান ছিনতাইকারী।
র‌্যাব-৯ জানায়, গত ১৬ নভেম্বর সিলেট রেলওয়ে স্টেশন লিংক রোড এলাকায় আব্দুর রাজ্জাক (৪৮) নামের এক মাছ ব্যবসায়ী ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে খুন হন। এই চাঞ্চল্যকর হত্যা ঘটনার প্রেক্ষিতে দক্ষিণ সুরমা থানায় মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং ১১ (১৬/১১/২০১৬), ধারা ৩০২ দন্ডবিধি রুজু করা হয় । মামলায় পূর্বে গ্রেফতারকৃত আসামী বাবলু বিজ্ঞ আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে মূল কিলার নাজিমুল ইসলাম রাজুসহ কয়েকজনের নাম উল্লেখ করে। মূল আসামী হত্যাকারী রাজুসহ তার সহযোগীদের গ্রেফতার অভিযানের ধারাবাহিকতায় গত সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে র‌্যাব-৯ এর একটি বিশেষ দল গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে দক্ষিণ সুরমার কদমতলী এলাকায় অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে আব্দুর রাজ্জাক হত্যা মামলার প্রধান হত্যাকারী নাজিমুল ইসলাম রাজুকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরিও উদ্ধার করা হয়।
জিজ্ঞাসাবাদে রাজু জানায়, রাজু ও তার সহযোগী রুবেল, কানা মনির, বাবলুসহ নিহত রাজ্জাকের কাছ থেকে নগদ ২০ হাজার টাকা ছিনতাই করার সময় রাজ্জাক বাধা দিলে রাজু ছুরি দিয়ে প্রথমে রাজ্জাককে ভয় দেখায়। তাতে রাজ্জাক আবারো বাঁধা দিলে এক পর্যায়ে বাবলু, কানা মুনির ও রুবেল নিহত রাজ্জাককে ধরে রাখে ও রাজু ছুরি দিয়ে রাজ্জাকের পেটে আঘাত করে এলোপাতাড়ি কোপালে ঘটনাস্থলেই রাজ্জাক মারা যায় বলে রাজু স্বীকার করেছে। পরবর্তীতে রাজুর স্বীকারোক্তির প্রেক্ষিতে পৃথক আরেকটি অভিযানে পুরাতন রেল স্টেশন এলাকা থেকে রুবেলকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়কে ও উদ্ধারকৃত ছুরি এসএমপি‘র দক্ষিণ সুরমা থানায় হস্তান্তর কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন। র‌্যাবের সহকারী পরিচালক (মিডিয়া) মোঃ হায়াতুন-নবী এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানান।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট