রাষ্ট্রপতি আলোচনার ব্যবস্থা করবেন, প্রত্যাশা বিএনপির

প্রকাশিত: ২:০৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২১, ২০১৬

নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের যে প্রস্তাবনা বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া দিয়েছেন তা বিবেচনায় নিয়ে রাষ্ট্রপতি আলাপ-আলোচনার ব্যবস্থা করবেন বলে প্রত্যাশা করে বিএনপি।

সোমবার সকালে নয়াপল্টনের বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে উপস্থিত সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এ কথা জানান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

এ সময় তিনি বলেন, ‘আমাদের নির্বাচন ব্যবস্থা নিয়ে সারাদেশে নানা আলোচনা ও তীব্র সমালোচনা হচ্ছে। নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে ফেলা হয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনকরে কিভাবে নির্বাচন সুষ্ঠু করা যায় এবং কমিশনকে একটি শক্তিশালী সংগঠনের পরিণত করা যায় সেজন্য বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া একটি প্রস্তাবনা দিয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি মনে করে চলমান রাজনৈতিক সঙ্কট নিরসন করার জন্য একটি সুষ্ঠু অবাধ গ্রহণযোগ্য নির্বাচন ছাড়া কোনো উপায় নেই। সেই কারণে রাষ্ট্রপতির যে দায়িত্ব রয়েছে, তিনি রাষ্ট্রের অভিভাবক, কোনো দলভুক্ত মানুষ নন তিনি। উনার দায়িত্ব খালেদা জিয়ার প্রস্তাব উপস্থাপন করে এ সর্ম্পকে আলাপ-আলোচনা শুরু করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে বিএনপি মহাসচিব বলেন, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির প্রতিটি স্তরের নেতাকর্মীদের সঙ্গে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। প্রত্যাশা করি বিএনপির অবস্থান ও সিদ্ধান্ত রাতেই জানতে পারবেন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নে জবাবে ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়ার প্রস্তাব আলোচনা সাপেক্ষে পরিবর্তনযোগ্য। এটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যে, খালেদা জিয়া একজন দায়িত্বশীল জাতীয় নেতার মতই নির্বাচন কমিশন নিয়ে প্রস্তাবনা উপস্থাপন করেছেন।

এ সময় কার্যালয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস এবং সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

  •