সিলেটে তালামীযের বিক্ষোভ মিছিল : মায়ানমারে মুসলিম নিধনের প্রতিবাদ

প্রকাশিত: ১২:০৪ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৯, ২০১৬

মায়ানমারে মুসলমানদের উপর বর্বরোচিত হত্যার প্রতিবাদে শুক্রবার (১৮ নভেম্বর) বাদ জুমআ বাংলাদেশ আনজুমানে তালামীযে ইসলামিয়া সিলেট মহানগর ও জেলা (পূর্ব-পশ্চিম) শাখার উদ্যোগে এক বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি নগরীর সোবহানীঘাটস্থ হাজী নওয়াব আলী জামে মসজিদ প্রাঙ্গন থেকে শুরু করে নগরীর প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে চৌহাট্টায় এসে এক সমাবেশে মিলিত হয়।

মিছিল পরবর্তী সমাবেশে সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি মুহাম্মদ ফখরুল ইসলাম প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন, যুগ যুগ ধরে মিয়ানমারের আরাকান অঞ্চলে সংখ্যাগরিষ্ঠ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী সীমাহীন লাঞ্চনা, বঞ্চনা, অত্যাচার, নির্যাতন আর নিপীড়নের শিকার হচ্ছে, কখনো বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী মগদের দ্বারা, কখনো প্রতিবেশী রাখাইনদের দ্বারা, আবার কখনো স্বয়ং রাষ্ট্রযন্ত্রের দ্বারা। মিয়ানমার সরকার ও সংখ্যাগরিষ্ঠ বৌদ্ধ ভিক্ষুদের জাতিগত বিদ্বেষ আর চরম বর্ণবাদী বৈষম্যের শিকার হয়ে রোহিঙ্গা মুসলমানরা আজ নিজ দেশে পরবাসী। মায়ানমারে তারা অবাঞ্ছিত, বাংলাদেশে অপাংক্তেয়, আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে অপরিচিত। ‘অহিংসা পরম ধর্মের’ অনুসারী হিংস্র রাখাইন বৌদ্ধ ভিক্ষুরা  তাদের রক্তের হোলি খেলায় মেতেছে। এমতাবস্থায় বিশ্ব মোড়লরা, মানবাধিকারের ধ্বজাধারীরা, মুসলিম বিশ্বের তথাকথিত মুখপাত্র ওআইসি নেতৃবৃন্দ, সর্বোপরি জাতিসংঘ নিরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে। তিনি আরো বলেন, রাজনীতির প্রসঙ্গ বাদ দিয়ে শুধু মানবিক দিক বিবেচনা করলেও রোহিঙ্গা সমস্যা নিয়ে আমাদের প্রতিবাদে সোচ্চার হওয়া উচিত। আমাদের পার্শ¦বর্তী রাষ্ট্রে আমাদেরই মত বাংলাভাষী মুসলমানদের নির্বিচারে হত্যা করা হচ্ছে, অবৈধভাবে তাদের সম্পদ লুন্ঠন করা হচ্ছে, তাদের ঘর বাড়ি জ্বালিয়ে পুড়িয়ে তাদের কে নিজভূমি ত্যাগে বাধ্য করা হচ্ছে, রাতের আঁধারে নয় বরং প্রকাশ্য দিবালোকে প্রশাসনের প্রত্যক্ষ সহযোগিতায় একটি জাতিগোষ্ঠীকে চিরতরে নিশ্চি‎‎হ্ণ করা হচ্ছে আর আমরা কানে ছিপি এঁটে, মুখে তালা লাগিয়ে নীরবে তা দেখে যাচ্ছি। তারা অবিলম্বে মায়ানমারে গণহত্যা বন্ধের আহবান জানিয়ে বাংলাদেশ সরকারকে এ ব্যাপারে জোরালো ভূমিকা রাখার আহবান জানান। প্রয়োজনে জাতিসংঘের মাধ্যমে মায়ানমারে অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ এবং ওআইসির নেতৃত্বে মুসলিম বিশ্বকে মায়ানমারের সাথে সব ধরণের কূটনৈতিক সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন করার পদক্ষেপ গ্রহণ করার আহবান জানান।

মহানগর সভাপতি এনাম উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে ও পূর্ব জেলা সাধারণ সম্পাদক আব্দুল খালিক রুহিল ও পশ্চিম জেলা সাধারণ সম্পাদক জাহেদুর রহমান এর যৌথ পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর সিলেট মহানগরীর সাধারণ সম্পাদক মোঃ আজির উদ্দিন পাশা, তালামীযে ইসলামিয়ার কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মুহাম্মদ মুহিবুর রহমান, সাবেক কেন্দ্রীয় সদস্য ও নর্থ ইস্ট ইউনির্ভাসিটির ইংরেজি লেকচারার নোমান আহমদ।

বিক্ষোভ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন-আনজুমানে আল ইসলাহ কেন্দ্রিয় অফিস সম্পাদক মাওলানা আতাউর রহমান, তালামীযে ইসলামিয়া সহ সভাপতি শরীফ উদ্দিন, সহ সাধারণ সম্পাদক দুলাল আহমদ, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ হাফিজুর রহমান, সহ প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হুমায়ুনুর রহমান লেখন, অর্থ সম্পাদক কাওছার আহমদ, কেন্দ্রীয় সদস্য সৈয়দ আহমদ আল জামিল, আব্দুল মুহিত রাসেল, তৌরিছ আলী, সুহাইল আহমদ তালুকদার, সুলতান আহমদ, জুবায়ের আহমদ রাজু, মিছবাহ উদ্দিন, মৌলভীবাজার জেলা সভাপতি খন্দকার ওজিউর রহমান আসাদ, সিলেট পূর্ব জেলা সভাপতি সাইফুর রহমান চৌধুরী শিপু, পশ্চিম জেলা সভাপতি সাইফুর রহমান শুভ, শাবিপ্রবি সভাপতি নিজামুল হক, সিলেট মহানগর সহ সভাপতি শেখ শফি উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুর রহমান ফরহাদ, প্রাইভেট ইউনিভার্সিটি জুন সহ সভাপতি আবুল কাশেম চয়ন, সাধারণ সম্পাদক মাহবুব হোসেন, হবিগঞ্জ জেলা সহ সভাপতি সৈয়দ সাহেদ আহমদ, সিলেট পূর্ব জেলা সহ সভাপতি আমির হোসেন ও জেদ্দা আল ইসলাহ সভাপতি শামছুল ইসলাম।

অন্যান্যের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন- এমসি কলেজ সভাপতি আহমদ শরীফ, সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল হাসান জুয়েল, সিলেট মহানগর সহ সাধারণ সম্পাদক নুরুজ্জামান রাসেল, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সামাদ আজাদ, পশ্চিম জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক আলী হায়দার, পূর্ব জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কাশেম, মহানগর প্রচার সম্পাদক আরিফ আহমদ, সহ প্রচার সম্পাদক ইমরান আহমদ চৌধুরী, অফিস সম্পাদক শেখ মনোয়ার হোসেন , সহ অফিস সম্পাদক মারুফ আহমদ প্রমুখ।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট