সরকার-গণমাধ্যম একপক্ষ, জঙ্গিরা শত্রুপক্ষ : ইনু

প্রকাশিত: ১২:৪৮ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৬

বর্তমান সরকারকে গণমাধ্যমবান্ধব সরকার বলে অভিহিত করে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার ও গণমাধ্যম একপক্ষ আর জঙ্গিরা শত্রুপক্ষ। কারণ, জঙ্গিরা জনগণ, সরকার, সাংবাদিকসহ সকলকেই আক্রমণ করেছে।

হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘জঙ্গিদের পৃষ্ঠপোষকের মুখে নির্বাচন-গণতন্ত্রের ওয়াজ জাতির সঙ্গে ঠাট্টা-মস্করা।’

তিনি বলেন, ‘আগামী নির্বাচনগুলোতে মুক্তিযোদ্ধা-দেশপ্রেমিকদের ভেতরেই প্রতিযোগিতা হওয়া উচিত।’

মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে সাপ্তাহিক পত্রিকা পরিষদ আয়োজিত ‘জঙ্গি প্রতিরোধে গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ সব কথা বলেন।

সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপিনেত্রী জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক না হলে অনেক আগেই জঙ্গি নির্মূল করা সম্ভব হতো। মনে রাখবেন, গণতন্ত্র যারা আগুন দিয়ে পোড়ায় তাদের কাছে গণতন্ত্র নিরাপদ নয়।’

ব্রিটিশ ও পাকিস্তানী শাসন, স্বৈরাচার, আগুনযুদ্ধ, হেফাজতের তাণ্ডব এবং জঙ্গি হামলার বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের ধারাবাহিক ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করে হাসানুল হক ইনু বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকার পোষমানা সাংবাদিক চায়না, আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি, সমালোচনা সহ্য করি, কিন্তু জঙ্গি ও তাদের সঙ্গীদের ওকালতি করবেন না।’

সাপ্তাহিক পত্রিকা পরিষদের বিভিন্ন দাবির বিষয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, দৈনিক বা সাপ্তাহিক বা মাসিক, যে পত্রিকাতেই বা গণমাধ্যমেই কাজ করুন না কেন, সরকারের চোখে সকলেই সাংবাদিক, পত্রিকা বা গণমাধ্যম ভেদে সাংবাদিকদের কোনো ভেদাভেদ নেই।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী নতুন ওয়েজবোর্ড দেবার পক্ষে, একথা জানিয়ে তিনি বলেন, নবম ওয়েজবোর্ডে ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকদের অন্তর্ভুক্ত করতে হবে, সেখানে কর্মরতদের স্তর বিন্যাসের বিষয়টিতে তাদের মতামত প্রয়োজন। আগামী বছর এর বাস্তবায়ন হবে বলে দৃঢ় আশাবাদ ব্যক্ত করেন হাসানুল হক ইনু।

এছাড়া, দুর্দশা বা বিপন্নতায় সরকারি সহযোগিতা পাবার জন্য তথ্যমন্ত্রী সকল সাংবাদিককে সাংবাদিক কল্যাণ ট্রাস্টের সদস্য হবার জন্য আহ্বান জানান।

সাপ্তাহিক পত্রিকা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এস এম মোরশেদের সভাপতিত্বে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি শাবান মাহমুদ বিশেষ অতিথি হিসেবে তার বক্তৃতায় সাপ্তাহিক পত্রিকার সাংবাদিকদের পক্ষে দাবি-দাওয়া তুলে ধরেন।

  •