বাংলাদেশের কাছে ৬৯১ কোটি টাকা দাবি করবে পাকিস্তান

প্রকাশিত: ৯:৩০ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৬

বাংলাদেশের কাছে ৬৯১ কোটি টাকা পাওনা আছে দাবি করে তা ফেরত চাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাকিস্তান সরকার।

পাকিস্তানের সংবাদপত্র এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, পূর্ব পাকিস্তান থাকাকালীন বাংলাদেশের কাছে পাকিস্তানের যে ‘পাওনা’ ছিল তার পরিমাণ চলতি বছর ৩০শে জুন নাগাদ দাঁড়িয়েছে ৯২১ কোটি পাকিস্তানি রুপি। বাংলাদেশি টাকায় এর পরিমাণ ৬৯১ কোটি। কথিত এই পাওনা অর্থের হিসাব দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক এসবিপি দিয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়।

এক্সপ্রেস ট্রিবিউনের ওই প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, এসবিপি সকল বাণিজ্যিক ব্যাংক এবং আর্থিক প্রতিষ্ঠানের কাছে সম্পদ ও পাওনার বিস্তারিত চেয়ে পাঠিয়েছে। এসবিপি’র পরিসংখ্যানমতে বাংলাদেশের কাছে ৬৯১ কোটি টাকা আর ভারতের কাছে ৪৫০ কোটি টাকা ‘পাওনা’ পাকিস্তানের।

দেশটির সকল ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের প্রধানদের প্রতি এসপিবি’র ইস্যু করা এক সার্কুলারে বাংলাদেশ ও ভারতের সরকার ও কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলোর কাছে ভূমি, ভবন, আসবাব, অফিস দ্রব্যাদি, গাড়ি, সরকারি নিরাপত্তা, নথিপত্র, ঋণ ও বিনিয়োগের বিপরীতে ‘পাওনার’ পূর্ণাঙ্গ হিসাব দিতে বলা হয়েছে।

সম্পদ বা পাওনার ক্ষেত্রে কোনো কিছু মওকুফ করে দেয়া থাকলে সেটাও উল্লেখ করতে বলা হয়েছে। ভারতের কাছে বাংলাদেশি টাকায় ৬০০ কোটি রুপি দাবি করে বলা হয়, এসব পাওনার মধ্যে রয়েছে গোল্ড রিজার্ভ, স্ট্যালিং সিকিউরিটিজ, ইন্ডিয়ান সিকিউরিটিজ, রুপি কয়েন এবং দেশভাগের সময় ভারতীয় মুদ্রায় পাকিস্তানের অংশ।

অভিযোগ করা হয়, মুদ্রার নোট ছাপানোর জন্য পাকিস্তান ভারতকে অর্থ দিলেও তা কখনই তারা পায় নি। ৭ দশক পেরিয়ে গেলেও অর্থ ফেরত দেয় নি ভারত। এই খাতে ভারতের কাছে পাকিস্তানের পাওনা ৪ কোটি রুপি উল্লেখ করা হয়।

খবরের শেষে বলা হয়, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলো এসবিপি’র কাছে বিস্তারিত হিসাব দেয়ার পর পাকিস্তানের কথিত এই পাওনার অঙ্ক আরো বাড়তে পারে।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট