আ.লীগ সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দল : ইমরান এইচ সরকার

প্রকাশিত: ১২:৫৫ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ৪, ২০১৬

২৮ অক্টোবর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার হরিপুর ইউনিয়নের হরিণবেড় গ্রামের রসরাজ দাস নামে এক যুবক ফেসবুকে একটি ছবি পোস্ট করে। ছবিটিতে দেখা যায় ফটোশপের কারসাজিতে পবিত্র কাবা ঘরের উপরে একটি শিবমূর্তি স্থাপন করা হয়েছে।

এমন ছবি দেখে অনেক মুসলমানই ফেসবুকে নানা মন্তব্য করেছেন। মন্তব্য থেকে বাদ যাননি মৎস ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রী মোহাম্মদ ছায়েদুল হকও। তিনি হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের ‘মালাউনের বাচ্চা’ বলেছেন দাবি করে ডা. ইমরান এইচ সরকার বৃহস্পতিবার সন্ধায় তার ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

ডা. ইমরান এইচ সরকারের সেই স্ট্যাটাসটি পাঠকদের জন্য হুবহু তুলে ধরা হলো:-

‘গণমাধ্যমে সরাসরি হিন্দু সম্প্রদায়ের মানুষদের ‘মালাউনের বাচ্চা’ বলার পরও কিভাবে ছায়েদুল হক মন্ত্রী থাকে, এটা আমার বোধগম্য নয়। অবিলম্বে এই সাম্প্রদায়িক সন্ত্রাসীকে মন্ত্রীসভা থেকে বহিস্কার করার জোর দাবী জানাচ্ছি।

আজ আওয়ামী লীগের জায়গায় যদি বিএনপি-জামাতের কোনো নেতা প্রকাশ্যে এভাবে ‘মালাউন’ শব্দটি ব্যবহার করতো তাহলে সারাদেশে তোলপাড় হয়ে যেতো, গণমাধ্যম ও বুদ্ধিজীবীরা তুলকালাম কাণ্ড করে ফেলতেন! অথচ এই ঘৃণ্য অপরাধের পরও সবাই একদম চুপ, কারন সে আওয়ামী লীগ, কি বললে আবার কি হয়ে যায়!

এক দেশে দুই নিয়ম চলবে না। এই জঘণ্য সাম্প্রদায়িক লোককে মন্ত্রীসভায় রাখলে আওয়ামী লীগকে স্বীকার করে নিতে হবে তারা একটা সাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক দল। আর তা না হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। কথা পরিস্কার।’

উল্লেখ্য, ফেসবুকে মুসলমানদের ‘ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানার প্রতিবাদের’ নামে রবিবার সকাল ১০টার পর থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ৩ ঘণ্টাব্যাপী জেলার নাসিরনগর সদরে অন্তত ৮টি হিন্দু পাড়ায় তাণ্ডব চালায় একদল দুর্বৃত্ত। এসময় ১০টি মন্দিরসহ শতাধিক বাড়িঘরে ভাঙচুর চালানো হয়। হামলা চলাকালে মন্দিরের পুরোহিতসহ হিন্দু সম্প্রদায়ের শতাধিক নারী-পুরুষকে পিটিয়ে আহত করা হয়।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট