রাজপথেই সমাধান খুঁজছে বিএনপি

প্রকাশিত: ৫:১৮ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২, ২০১৬

দেশে রাজনীতির পালে হাওয়া বইছে জোরেশোরে। একদিকে সম্মেলনের পর উজ্জীবিত ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ অন্যদিকে বিপ্লব সংহতি দিবসের সমাবেশ নিয়ে বিএনপি নেতাদের জোরালো বক্তব্যে সরব রাজনৈতিক অঙ্গন।

সম্প্রতি দেশের বড় দুটি দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কোনো দল পরস্পরের সম্মেলনে যোগ দেয়নি। এতে আলোচনার পথ অনেকাংশে বন্ধ হওয়ার পথে।

ক’দিন আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্যতম সদস্য নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, সরকারকে আলোচনায় আসতে হবে। তার এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপির সাথে আলোচনার দরজা বন্ধ হয়ে গেছে।

ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যের প্রেক্ষিতে খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা হাবিবুর রহমান হাবিব গত শনিবার প্রেসক্লাব মিলানায়তনে এক প্রতিবাদ সমাবেশে বলেছেন, ক্ষমতাসীনদের আলোচনায় বসতে বাধ্য করা হবে।

সোমবার আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ বলেছেন, বিপ্লব সংহতি দিবসে বিএনপিকে প্রতিহত করা হবে। এই বক্তব্যকে চ্যালেঞ্জ করে বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল মঙ্গলবার বলেছেন, ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবসে যে কোনো মূল্যে সমাবেশ করবে বিএনপি, আপনি (হানিফ) পারলে ঠেকান।

সম্প্রতি এক প্রতিবাদ সমাবেশে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস সরকার দলের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, বিএনপিকে বাদ দিয়ে দেশে কিছু করা আওয়ামী লীগের সাহসে কুলাবে না। তার এই বক্তব্যেই বোঝা যায় আন্দোলনের পথেই হাঁটছে বিএনপি।

  •