ফুল নয়, ভালোবাসার জন্য মানুষের দরজায় যেতে হবে

প্রকাশিত: ১০:২৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৮, ২০১৬

ফুল নয়, ভালোবাসার জন্য মানুষের দরজায় যেতে বলেছেন নেত্রী। এদেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে যা করণীয় তার সবই বাস্তবায়ন করতে কাজ করে চলেছেন জননেত্রী শেখ হাসিনা। এ জন্য পরিষ্কার দিক নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি।

এ জন্য তিনি সম্মেলন ও কাউন্সিলের সময় ফুল গ্রহণ করেননি নেতাকর্মীদের কাছ থেকে। যারাই ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানাতে গেছেন তাদের ফিরিয়ে দিয়েছেন।

বলে দিয়েছেন ‘আমাকে ফুল না দিয়ে এদেশের মানুষের ভালোবাসা অর্জন করুন। তাই অনেকেই ফুল না দিয়েই ফিরে গেছেন। কিন্তু ২৭ অক্টোবর সিলেটের একটি জাকজমক অনুষ্ঠান দেখে ওই নেতা অনেকটা অবাক হন। সিলেটের আওয়ামী লীগের ওই প্রবীণ নেতা ওই তথ্য জানিয়েছেন সুরমার ডাক ২৪ ডট কমের কাছে।

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সম্মেলন ও কাউন্সিল হয়ে গেল গত ২২ ও ২৩ অক্টোবর। ওই সম্মেলনে সিলেট আওয়ামী লীগ পরিবারের এক সদ্য কাউন্সিলর হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন। তিনি জানান, দুইদিন ব্যাপী অনুষ্ঠানমালা পর্যবেক্ষণের চেষ্টা করেছেন তিনি। কিন্তু অনুষ্ঠানে মূল দিক নির্দেশনা পাওয়া গেলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যে।

শেখ হাসিনা সম্মেলনে তার বক্তব্যে বলেন, কাউন্সিল শেষে এলাকায় ফিরে গৃহহীনদের তালিকা তৈরি করুন। ওই তালিকা অনুযায়ী প্রত্যেক গৃহহীন পরিবারকে ঘর তৈরি করে দেওয়া হবে। শেখ হাসিনা দিক নির্দেশনা বক্তব্যে বলেছেন, মানুষের ভালোবাসা অর্জন করতে হবে।

ওই বক্তব্যের পর তার বাস্তব রূপ দেখা গেল। জননেত্রীকে ফুল দিয়ে অনেক কাউন্সিলর শুভেচ্ছা জানাতে গিয়েছিলেন। কিন্তু তিনি কারো ফুল গ্রহণ করেননি। ফুলের পরিবর্তে তিনি মানুষের ভালোবাসা অর্জন করতে বলেছেন।

আওয়ামী লীগের ওই প্রবীন নেতা বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার দিক নির্দেশনার পর তৃণমূল থেকে যাওয়া কাউন্সিলরা আশার আলো দেখছেন। কিন্তু নতুন নেতৃত্ব পাওয়া কিছু নেতার কারণে ওই আশার আলো মুখ থুবরে পড়েছে।

সিলেটের এক নেতা নতুন করে আবার দায়িত্ব পেয়ে ২৭ অক্টোবর সিলেট ফিরে আসেন। হাজারো ফুলের তোড়ায় ওই নেতাকে গ্রহণ করা হয় রাজকীয়ভাবে। যা সিলেটের পুরো আওয়ামী লীগ পরিবারকে হতাশ করেছে।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট