সত্য স্বীকার করায় প্রধানমন্ত্রীকে বি. চৌধুরীর ধন্যবাদ

প্রকাশিত: ১০:১৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৭, ২০১৬

সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। আ.লীগের সময় অনুষ্ঠিত স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের সব নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ ছিল’ স্বীকার করায় প্রধানমন্ত্রীকে তিনি এই ধন্যবাদ জানান।

সাবেক এই রাষ্ট্রপতি দাবি করেন, ‘৫ জানুয়ারির নির্বাচনসহ বিগত দিনে অনুষ্ঠিত স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের সব নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ ছিল’ তা স্বীকার করে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।’

বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের হলরুমে এক আলোচনা সভায় তিনি এ দাবি করেন।

“আর নয় ২৮ অক্টোবর, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় সকল দলের অংশগ্রহণে জাতীয় নির্বাচনের দাবি” শীর্ষক এ আলোচনা সভায় তিনি এ দাবি করেন। সভার আয়োজন করে স্বাধীনতা ও মানবাধিকার বাস্তবায়ন ফাউন্ডেশন নামে একটি সংগঠন।

বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেন, ‘আওয়ামী লীগের ২০তম কাউন্সিলে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন আগামী দিনের নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ করলে চলবে না। তার এ কথার মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয় ৫ জানুয়ারির নির্বাচনসহ বিগত দিনে অনুষ্ঠিত নির্বাচনগুলো প্রশ্নবিদ্ধ ছিল। তার এ স্বীকারোক্তির জন্য তাকে ধন্যবাদ জানাই।’

‘টেনেটুনে মেট্রিক পাস মানুষ কখনো দেশপ্রেমিক হতে পারে না’ গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেয়া এমন বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে সাবেক এ রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘কথা-বার্তায় আরো সংযত হউন। দেশের ৬০ ভাগ মানুষ কৃষক, তারা কি দেশপ্রেমিক নন? যারা ঠেলাগাড়ি চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে তারা কি দেশপ্রেমিক নন? খোঁজ করে দেখেন গিয়ে তাদের অনেকই মেট্রিক পাস করেন নি।’

সরকার ও বিরোধী দল নির্বাচনে সমান সুযোগ না পাওয়া পর্যন্ত দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয় বলেও মন্তব্য করেন সাবেক এই বিএনপি মহাসচিব।

সুষ্ঠু নির্বাচন করতে সবার সাথে আলোচনায় বসতেই হবে জানিয়ে বি. চৌধুরী বলেন, ‘নির্বাচন গণতান্ত্রিক সরকারের প্রথম ধাপ। এ ক্ষেত্রে আমাদের প্রধান কাজ সাহসী, ন্যায়বান এবং সত্যনিষ্ঠ নির্বাচন কমিশন গঠন করা। যিনি আইন ছাড়া কাউকে ভয় পায় না।’

আওয়ামী লীগের নতুন সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘বেশ ভাল ও ভদ্র মানুষ ওবায়দুল কাদের। তার ভাল একজন সাধারণ সম্পাদক হওয়ার সুযোগ রয়েছে।’

আয়োজক সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ শামীমের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন, সাবেক মন্ত্রী নুর মোহাম্মদ খান, মুসলিম লীগের মহাসচিব আবুল খায়ের ও সাংঠনিক সম্পাদক এস এইচ খান আসাদ প্রমুখ।

  •