শেখ হাসিনা সভাপতি, ওবায়দুল কাদের সাধারণ সম্পাদক

প্রকাশিত: ৭:৪০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৩, ২০১৬

আওয়ামী লীগের সভাপতি পদে শেখ হাসিনা পুনর্নির্বাচিত হয়েছেন। সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। আওয়ামী লীগের ২০তম ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলের দ্বিতীয় অধিবেশনে উপস্থিত কাউন্সিলরদের সর্বসম্মতিতে তারা নির্বাচিত হন।

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে সম্মেলনের দ্বিতীয় দিন রবিবার বিকালে দলীয় প্রধান শেখ হাসিনা বর্তমান কমিটি বিলুপ্তির ঘোষণা দেয়ার পরপরই নির্বাচনী অধিবেশন শুরু হয়।

তিন সদস্যের নির্বাচন কমিশনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন দলটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ড. মসিউর রহমান। অন্য নির্বাচন কমিশনাররা হলেন দলটির উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ইউসুফ হোসেন হুমায়ুন ও পার্লামেন্টরি বোর্ডের সদস্য রাশেদ উল আলম।

বেশ কয়েকজন কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী শেখ হাসিনার নাম প্রস্তাব করেন। উপস্থিত সবার সমর্থনে শেখ হাসিনাকে নির্বাচিত করা হয়।

এদিক, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে ওবায়দুল কাদেরের নাম প্রস্তাব করেন সদ্য বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম। এর বিকল্প প্রস্তাব কেউ না করায় তিনি সর্বসম্মতিতে নির্বাচিত হন।

যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন মাহবুব উল আলম হানিফ, দিপু মনি,জাহাঙ্গীর কবির নানক ও আব্দুর রহমান। কোষাধ্যক্ষ নির্বাচিত করা হয়েছে আশিকুর রহমানকে।

শেখ হাসিনা উপরোক্ত নেতৃবৃন্দের নাম প্রস্তাব করার পর সবাই তাতে অনুমোদন দেন। প্রেসিডিয়াম সদস্যদের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করে পরে বাকি পদগুলোর ঘোষণা দেওয়ার অনুমতি চাইলে উপস্থিত কাউন্সিলররা তাতে সম্মতি দেন।

শেখ হাসিনা বলেন, আমি বিদায় নিতে চেয়েছিলাম কিন্তু আপনারা আমাকে নির্বাচিত করায় আমি আপনাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্বের পাশাপাশি এত দায়িত্ব পালন করা কঠিন। কিন্তু আপনাদের সিদ্ধান্ত আমি মাথা পেতে নিয়েছি। কারণ, ২০১৯ সালের নির্বাচনে আমি চাই না দল প্রশ্নবিদ্ধ হোক। এক্ষেত্রে সবার সহযোগিতা চাই।

বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলামের প্রশংসা করে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বলেন, আশরাফ দুইবার অত্যন্ত দক্ষতার সাথে দলকে এগিয়ে নিয়েছে। তাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

তিনি বলেন, শহীদ পরিবারের সদস্যরা এমনিতেই অনেক ত্যাগ করেছেন। আর আশরাফ কেমন নেতা, একটু আগেই দেখেছেন। সে নিজে সাধারণ সম্পাদক পদে আরেকজনের নাম প্রস্তাব করেছে। এরপরই সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য হিসেবে সর্ব প্রথম আশরাফের নাম প্রস্তাব করেন শেখ হাসিনা। যা পরে কাউন্সিলরদের ভোটে অনুমোদিত হয়।

বিদেশে থাকা অবস্থায় ১৯৮১ সালে আওয়ামী লীগের সম্মেলনে শেখ হাসিনা প্রথমবার সভাপতি নির্বাচিত হন। এরপর ১৯৮৭, ১৯৯২, ১৯৯৭, ২০০২, ২০০৯ ও ২০১২ সালে তিনি সভাপতি নির্বাচিত হন। এনিয়ে তিনি ৮ম বারের মতো আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হলেন।

সাধারণ সম্পাদকদের মধ্যে বঙ্গবন্ধু ছাড়া জিল্লুর রহমান ৫ বার, তাজউদ্দিন আহমেদ, আবদুর রাজ্জাক ও সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ২ বার এবং শামসুল হক, সৈয়দা সাজেদা চৌধুরী ও আবদুল জলিল এক মেয়াদের জন্য নির্বাচিত হন।

  •