মিল্কভিটার কর্মকর্তাদের কঠোর হুঁশিয়ারি

প্রকাশিত: ১২:২৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৩, ২০১৬

বাংলাদেশ দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায় ইউনিয়ন লিমিটেড পরিচালিত মিল্কভিটা বিগত ১ বছরে ১৮ কোটি টাকার বেশি মুনাফা অর্জন করেছে।
প্রতিষ্ঠানটি সারাদেশের দুগ্ধ উৎপাদনকারী সমবায়ী কৃষকদের কাছ থেকে দৈনিক গড়ে ১ লাখ ২৪ হাজার লিটার তরল দুধ সংগ্রহপূর্বক পাস্তুরিত করে বাজারজাত করছে। এতে করে দেশে দুধের চাহিদা অনেকাংশে মিটছে।

শনিবার ঢাকায় তেজগাঁওয়ে দুগ্ধভবনে মিল্কভিটার সার্বিক কর্মকাণ্ড নিয়ে আয়োজিত এক পর্যালোচনাসভায় এ সব তথ্য জানানো হয়।

প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শেখ নাদির হোসেন লিপুর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন এলজিআরডি ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী মো. মসিউর রহমান রাঙ্গা।

অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- সমবায় নিবন্ধক মো. মফিজুল ইসলাম ও মিল্কভিটার ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জাকির হোসেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, মিল্কভিটার সবধরনের কেনাকাটায় ই-টেন্ডারিং ব্যবস্থা সুনিশ্চিত করে টেন্ডার সিন্ডিকেট ভেঙ্গে দিতে হবে।

তিনি বলেন, বিপণন ব্যবস্থা আধুনিকায়ন ও পণ্যের গুণগত মানোন্নয়ন প্রয়োজন। মালামাল পরিবহণ ব্যবস্থার অনিয়ম বন্ধ করতে হবে। কোনো সমিতি ভেজাল দুধ সরবরাহের চেষ্টা করলে সংশ্লিষ্ট সমিতি ও কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া সমবায়ী প্রতিষ্ঠানটির হৃত গৌরব ফিরিয়ে আনতে ব্যবস্থাপনা কমিটি, কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ সকলকে অধিকতর সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দেন প্রতিমন্ত্রী।

এ ব্যাপারে কোনো গাফিলতি বা শৈথিল্য বরদাস্ত করা হবে না বলেও তিনি হুঁশিয়ারি দেন।

  •  

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট