ঐতিহ্য আর সম্প্রীতিতে নবীগঞ্জে’র কুর্শিতে পবিত্র আশুরা পালিত

প্রকাশিত: ১:৫৩ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০১৬

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি ।। ‘হায় হোসেন, হায় হোসেন’ ধ্বনিতে শোকাবহ হয়ে ওঠে প্রতিটি মোকাম। হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায় প্রতি বছরের ন্যায় যথাযোগ্য মর্যাদা ও ধর্মীয় ভাবগাম্বীর্যের মাধ্যমে পবিত্র আশুরা পালিত হয়েছে। মুসলিম বিশ্বে কারবালার শোকাবহ ঘটনাকে ত্যাগ ও শোকের প্রতীক হিসেবে পালন করা হয়। আশুরা অন্যায় ও অসত্যের বিরুদ্ধে সংগ্রামের প্রেরণার উৎস হিসেবে পরিগণিত হয়ে থাকে।

মুসলিম বিশ্বে ত্যাগ ও শোকের প্রতীক এই দিবসটি জাঁকজমকপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে ঐতিহ্য আর সম্প্রীতিতে নবীগঞ্জে’র কুর্শি পূবের বাড়ীতে ।

এছাড়াও ১০ মহরমে হজরত মুসা (আ.) ফেরাউনের জুলুম থেকে পরিত্রাণ লাভ করেছিলেন তাঁর অনুসারীদের নিয়ে নীল নদ পার হয়ে। তাঁদের পিছু নেওয়া ফেরাউন সদলবলে নীল নদে ডুবে যায়। এমন আরও অনেক তাৎপর্যময় ঘটনা ঘটেছিল এই দিনে। বিশ্বের মুসলমানদের কাছে এ দিনটি একদিকে যেমন শোকের, তেমনি হত্যা ও ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার চেতনায় উজ্জ্বল। তবে, মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছিল কারবালা প্রান্তরে।

কারবালার শোক ও স্মৃতিকে স্মরণ করে মঙ্গলবার নবীগঞ্জ উপজেলার কুর্শি হুসাইনী দালান, পিটুয়া হুসাইনী মোকান, পুর্ব তিমিরপুর ও পশ্চিম তিমিরপুর হুসাইনী মোকাম, ছোট ভাকৈর হোসাইনী মোকামসহ উপজেলার বেশ কয়েকটি স্থানে জারী মাতম ও তাজিয়া মিছিল অনুষ্টিত হয়। এসময় বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও নানা পেশার নারী পুরুষের উপস্থিতি ছিলো লক্ষণীয়। কোন ধরনের অপ্রতিকর ঘটনা ছাড়াই শান্তিপুর্ণ ভাবে পবিত্র আশুরা উদযাপন করেছে স্বস্ব এলাকার মানুষ। এদিকে, পবিত্র মহরম মাস শুরুর পর থেকেই উপজেলার কুর্শি গ্রামের হোসাইনী দালানে ভক্তরা জারী মাতম করে আসছিলো। জারী মাতম দেখার জন্য বিভিন্ন গ্রাম থেকে আত্বীয় স্বজনসহ নানা পেশার লোকজন কুর্শি গ্রামে জড়ো হয়।

মঙ্গলবার পবিত্র আশুরার দিনে কুর্শি হোসাইনী দালান থেকে আলাদা আলাদা দুটি তাজিয়া মিছিল বের করা হয়। এবং বেশ কয়েকটি গরু জবাই করে শিরনী বিতরন করা হয়। হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) আসনের সংসদ সদস্য এম এ মুনিম চৌধুরী বাবুসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, প্রশাসনিক, জপ্রতিনিধি ও নানা পেশার লোকজনের উপস্থিতি ছিলো নজর কাড়ারমতো।

নবীগঞ্জ কুর্শি ইউনিয়নের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব লন্ডন প্রবাসী রানা চৌধুরী জানান, ‘এখানে সাম্প্রদায়িক কোনও সংঘাত নেই। ফলে শান্তিপূর্ণভাবে পালিত হয়েছে আশুরা। নিরাপত্তার জন্য পুলিশ টহল ছিল জোরদার। সন্দেহভাজন ব্যক্তি দেখলেই তল্লাশি করা হয়েছে। ফলে কুর্শি হুসাইনী দালানস্থ আশুরায় মাতম ও তাজিয়া মিছিলে কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট