ইংল্যান্ডকে কঠিন চ্যালেঞ্জ ছুড়েও হারল টাইগাররা

প্রকাশিত: ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ১৩, ২০১৬

জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তৃতীয় ওয়ানডে জিতে দেশের মাটিতে টানা সপ্তম সিরিজ জয়ের স্বপ্ন নিয়ে মাঠে নেমেছিল টাইগাররা।

ইংল্যান্ডকে ২৭৮ রানের কঠিন চ্যালেঞ্জও ছুড়ে দেয় কিন্তু তাতেও স্বপ্ন পুরণ হলো না টাইগারদের। ১৩ বল হাতে রেখেই চার উইকেটে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে ইংল্যান্ড।

এর আগে প্রথমে ব্যাট করে ৬ উইকেট হারিয়ে ২৭৭ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত মুশফিকুর রহিম ৬৭ এবং মোসাদ্দেক হাসান সৈকত ৩৮ রান করে অপরাজিত ছিলেন।

বুধবার চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে টস জিতে টাইগারদের ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার।

ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুটা ভালোই করে বাংলাদেশ। তামিম ইকবাল এবং ইমরুল কায়েস ইংল্যান্ডের বিপক্ষে রেকর্ড জুটি গড়েন। তাদের জুটিতে আসে ৮০ রান।

ওপেনিং জুটি ভাঙেন বেন স্টোকস। ইমরুল কায়েসকে ৪৬ রানে সাজঘরে পাঠান তিনি। ইমরুলের পর তামিমও দ্রুতই ফিরে যান। তিনি ৪৫ রান করে আদিল রশিদের বলে আউট হন।

এদিন প্রথম বাংলাদেশি হিসেবে ৫ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেন তামিম। তামিম আউট হলে মাঠে নামেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। তিনি আজ ব্যাট হাতে ব্যর্থ হন। মাত্র ৬ রান করে আউট হন তিনি। এবারো বোলার আদিল রশিদ।

এরপর মুশফিকুর রহিমকে সঙ্গে নিয়ে ৫৪ রানের জুটি গড়েন সাব্বির রহমান। এরপরই আদিল রশিদের বলে সাজঘরে ফেরেন সাব্বির। তিনি ৪৬ বলে ৪৯ রান করেন।

সাব্বিরের পর দ্রুতই ফিরে যান সাকিব আল হাসান। তিনি মাত্র ৪ রান করে মঈন আলীর বলে স্টাম্প হন। নাসিরও ব্যর্থ হয়েছেন আজ। তিনিও ৪ রান করে আদিল রশিদের বলে আউট হন।

২৭৮ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ইংল্যান্ডের ওপেনিং জুটি ৬৩ রান সংগ্রহ করে। তাদের ওপেনিং জুটি ভাঙেন নাসির হোসেন। ভিঞ্চকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন তিনি। ভিঞ্চ ৩২ রান করেন। এরপর ডাকেটকে সঙ্গে নিয়ে ৬৪ রানের জুটি গড়েন বিলিংস। বিলিংসকে ৬২ রানে সাজঘরে পাঠান মোসাদ্দেক।

বিলিংস ফিরে যাওয়ার পর ফিফটি তুলে নেন বেন ডাকেটও। জনি বেইস্টোকে সাথে নিয়ে ৪৫ রানের জুটি গড়েন তিনি। এই জুটি ভাঙেন শফিউল। বেইস্টোকে ১৫ রানে বোল্ড করেন তিনি। এরপর শফিউলের বলে বেন ডাকেটের দুর্দান্ত একটি ক্যাচ নেন মুশফিক। ডাকেট ৬৩ রান করেন।

  •