৬ বছরে পুলিশ-বিজিবিতে নিয়োগ ৭৫ হাজার

প্রকাশিত: ১২:৩১ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৭, ২০১৬

অদ্যাবধি বিগত ৬ বছরে ৫২ হাজার ৩৩৩ জন পুলিশ সদস্য এবং ২৩ হাজার ৫২৩ জন বিজিবি সদস্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

সোমবার জাতীয় সংসদে চট্টগ্রাম-৪ আসনের দিদারুল আলমের লিখিত প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ সব তথ্য জানান। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বিকেল ৫ টার পর সংসদের অধিবেশন শুরু হয়।

আসাদুজ্জামান খান কামাল জাতীয় সংসদকে জানান, গত ৬ বছরে নিয়োগ দেওয়া পুলিশ সদস্যদের মধ্যে এএসপি পদে ৭০২ জন, এসআই (নারী/পুরুষ) ৪ হাজার ১৯৩ জন, পুলিশ সার্জেন্ট (পুরুষ/নারী) ৯২২ জন এবং কনস্টেবল (পুরুষ/নারী) ৪৬ হাজার ৫১৬ জন।

নিয়োগ দেওয়া পুলিশ সদস্যদের মধ্যে ২০১১ সালে ৮ হাজার ৮৯ জন, ২০১২ সালে ১২ হাজার ৮৩৪ জন, ২০১৩ সালে ৫ হাজার ২ জন, ২০১৪ সালে ৫ হাজার ৭৯৫ জন, ২০১৫ সালে ১০ হাজার জন এবং চলতি ২০১৬ সালের অদ্যাবধি পর্যন্ত ১০ হাজার ৬১৩ জনকে (বিভিন্ন পদে) নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে কনস্টেবল পদে আরো ১০ হাজার পুলিশ সদস্য নিয়োগের নিমিত্তে গত ৬ সেপ্টেম্বর বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। বিজ্ঞাপনে ঘোষিত তারিখে নিয়োগের কার্যক্রম সম্পন্ন করা হবে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, গত ৬ বছরে (২০১০-২০১৫ সালের ডিসেম্বর) বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)-এ সামরিক এবং অসামরিক পদে ২৩ হাজার ৫২৩ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ২০১০ সালে এক হাজার ৭৫০ জন, ২০১১ সালে ২ হাজার ২৬২ জন, ২০১২ সালে ২ হাজার ৯২৮ জন, ২০১৩ সালে ৬ হাজার ৮৫৫ জন, ২০১৪ সালে ৪ হাজার ৭৬১ জন এবং ২০১৫ সালে ৪ হাজার ৯৬৭ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য পঙ্কজ দেবনাথের এক সম্পূরক প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ধর্মের নামে ‘বি-ধর্মের’ (ধর্ম বিরোধী) কাজ করতে দেয়া হবে না। ‘আমাদের এখানে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান সবার জন্য ধর্ম সমান। ধমের্র নামে এখানে হত্যাকাণ্ড ঘটিয়ে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির প্রক্রিয়া চালাচ্ছিল একটা গোষ্ঠী। আমরা হিন্দু, বৌদ্ধ, খ্রিস্টান এমনকি শিয়া ধর্মের প্রধানদের নিয়ে বসেছিলাম। আমরা তাদের জানিয়েছি আমরা ধর্ম নিরপেক্ষ রাষ্ট্র।

তিনি বলেন, ‘আমাদের এখানে যে যার ধর্ম পালন করবে। তখন তারা সবাই একমত হয়েছে যে এখানে ধর্ম নিয়ে কোনো অন্যায় সহ্য করা হবে না। আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবাইকে ডাক দিযেছিলেন, যারা ধর্ম নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছে তাদের বিরুদ্ধে ঘুরে দাঁড়াতে। এ দেশের মানুষ ঘুরে দাড়িয়েছে, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী সেভাবেই কাজ করছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট