খালেদা-তারেক বৈঠক, মাঠে নামার সিদ্ধান্ত

প্রকাশিত: ৩:৫৮ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০১৬

য়সৌদি আরবে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান একান্ত বৈঠকে দেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি, আগামী জাতীয় নির্বাচন, আন্দোলন-কর্মসূচির মাধ্যমে সরকারকে হটাতে মাঠে নামার সিন্ধান্ত নিয়েছে দলটি।

পবিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সঙ্গে সৌদি আরবে পবিত্র হজ পালন ও একান্ত বৈঠক শেষে আগামী বৃহস্পতিবার দেশে ফিরছেন দলটির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। ফিরেই দল ও জোটের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে বিভাগীয় ও জেলা শহরে গণসংযোগে বের হবেন বিএনপি প্রধান। দলটির একাধিক শীর্ষ নেতার সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানায়, আন্দোলনের প্রাথমিক পর্যায়ে সারাদেশে গণসংযোগের মাধ্যমে মাঠে নামার ব্যাপারে একমত হয়েছেন দুই শীর্ষ নেতা। ছাড়াও বিভাগীয় ও জেলা শহরে গণসংযোগ করে দলকে সুসংগঠিত করতে চায় বিএনপি।

এর মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে ঝিমিয়ে থাকা দলীয় নেতাকর্মীদের মাঝে চাঙ্গা ভাব ফিরে আসবে। যা আগামি জাতীয় নির্বাচনকে ঘিরে আন্দোলন-সংগ্রামে দলকে সামনে এগিয়ে রাখবে বলে মনে করেন তারা।

বিএনপি চেয়ারপারসন দেশে ফিরেই তারেকের সঙ্গে বৈঠকের আলোচ্য বিষয় সম্পর্কে শীর্ষ নেতাদের অভিহিত করবেন। পরবর্তীতে জোট নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। এর পরেই আগামী দিনের কর্মসূচির ঘোষণা আসবে বলে জানায় ওই সূত্র।

এ ব্যাপারে দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘বিএনপি একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। তাই গণতান্ত্রিকভাবেই হবে আগামী দিনের কর্মসূচি। বর্তমান সরকারের সকল কিছুই আমরা রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করছি ও করব। চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া পবিত্র হজ পালন শেষে দেশে ফিরেই খুব শিগগিরই গণসংযোগে বের হবেন।’

তিনি বলেন, ‘বিএনপি প্রথম থেকেই নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচনের দাবি জানিয়ে আসছে। কিন্তু সরকার আমাদের আহ্বানকে দুর্বল ভেবে সাড়া দিচ্ছে না। এটি একটি গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রে হতে পারে না। তাই দলকে সুসংগঠিত করে শিগগিরই মাঠে নামছে বিএনপি।’

জানা গেছে, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার বিভাগীয় ও জেলা শহরে জনসংযোগকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে দলের শীর্ষ নেতাদের তাদের নিজ নিজ নির্বাচনী এলাকায় জনসংযোগ শুরু করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সে লক্ষেই তারা নিজ এলাকায় জনসংযোগ শুরু করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য লেফটেন্যান্ট জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘দেশের জনগণের দাবিকে সামনে রেখে বিএনপি শিগগিরই মাঠে নামছে। আমাদের এবারের আন্দোলন হবে জনগণের চাহিদাকে সামনে রেখে আন্দোলন। যেখানে ধর্ম, বর্ণ শেষে সবাই বিএনপির ছাতা তলে এক হবে। আন্দোলনের মাধ্যমে সরকারকে একটি নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য করা হবে।’

দলের দ্বিতীয় শীর্ষ নেতাকে দেশের বাইরে রেখে বিএনপির আন্দোলন কতটুকু স্বার্থক বা সফল হবে? এমন এক প্রশ্নের জবাবে সাবেক সেনাপ্রধান বলেন, ‘তিনি (তারেক রহমান) দীর্ঘ ৭ বছর ধরে চিকিৎসার কারণে দেশের বাইরে আছেন। তিনি সর্বক্ষণ দলীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন ও বিভিন্ন বিষয়ে আমাদের নির্দেশ দিচ্ছেন।

এর মাধ্যমে তিনি আমাদের সঙ্গেই আছেন। তাছাড়া পবিত্র হজ পালনে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান এখন মক্কায় আছেন। তাদের দুইজনের মধ্যে সেখানে আলাপ-আলোচনা হয়েছে ও হচ্ছে। তাই আমি মনে করি না আমাদের আগামী দিনের আন্দোলন সংগ্রামে এর তেমন কোনো প্রভাব পড়বে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট