কাঁচামরিচের দামে অস্থিরতা

প্রকাশিত: ১১:১২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৬

রাজধানীতে কাঁচামরিচের দাম নিয়ে চলছে অস্থিরতা। বিক্রেতারা ইচ্ছেমতো ক্রেতাদের কাছ থেকে দাম নেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কাওরানবাজারে কাঁচামরিচের দাম নিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে বাকবিতণ্ডাও দেখা গেছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, ঈদের কারণে ট্রাক আসছে না। আড়তে খুব বেশি কাঁচামরিচও নেই। এ কারণে দাম বেড়েছে। তাদের মতে, দুইদিনের মধ্যে দাম কমে আসবে। এদিকে ঢাকার বিভিন্ন স্থানে প্রতি কেজি কাঁচামরিচ ২৫০ থেকে ৪০০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সানোয়ারা বেগম নামের এক গৃহিণী কাঁচামরিচের দাম শুনে বিক্রেতার সঙ্গে হইচই শুরু করেন। কাওরানবাজারের একজন খুচরা বিক্রেতা তার কাছে ১০০ গ্রাম কাঁচামরিচের দাম চান ৩০ টাকা। আর এক কেজি বা এর বেশি কিনলে ২৮০ টাকা রাখা যাবে বলে জানান।

সানোয়ারা বলেন, সকালে একটি সুপার শপ থেকে ১৬০ টাকা কেজি দরে কাঁচামরিচ কিনেছি। এত দাম দেখে তখন অল্প পরিমাণ ক্রয় করি। কারণ কাওরানবাজারে দাম কম হবে। কিন্তু বাজারে এসে তিনি হতাশ। বিক্রেতার কাছে তার প্রশ্ন, কাওরানবাজারে দাম বেশি হবে কেন? এত বেশি হবে কেন?

আরেক ক্রেতা জানান, গতকাল তিনি ১৬০ টাকায় কাঁচামরিচ কিনেছেন। কিন্তু কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে এখন কেজিতে দাম বেড়েছে ১২০ থেকে ১৪০ টাকা।

জুরাইনের এক বাজার থেকে সাইফুল ১০০ গ্রাম কাঁচামরিচ কিনেছেন ৪০ টাকায়। রাজধানীর রামপুরা মহানগর প্রজেক্টে ভ্যানে করে সবজি বিক্রেতারা প্রতি কেজি মরিচের দাম রাখছেন ৩০০ টাকা থেকে ৩৪০ টাকা।

কয়েক জন বিক্রেতা বলেন, আড়ত থেকে বেশি টাকায় তারা মরিচ কিনেছেন। তাই খুচরা বিক্রিও বেশি দামে করছেন। কাওরানবাজারের খুচরা ব্যবসায়ী সুমন মিয়া বললেন, ঈদের আগে থেকেই কাঁচামরিচের দাম বেড়েছে। ঈদের আগে মরিচের কেজি ১৪০ থেকে ১৬০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে। কিন্তু আজ থেকে দামটা বেশি বেড়েছে।

কাওরানবাজারের পাইকারি বাজারে প্রতি পাল্লা (৫ কেজি) কাঁচামরিচ ৮০০ থেকে ১২০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হয়েছে। অর্থাৎ মান ভেদে প্রতি কেজির দাম পড়েছে ১৬০ থেকে ২৪০ টাকা। আড়তের এক কর্মচারী বললেন, গত দুইদিনে দাম ওঠানামা করছে। অল্প সময়ের ব্যবধানে দামও বেড়েছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট