লালদিঘীরপাড় নতুন হকার্স মার্কেট ভাঙ্গার দরপত্র আহ্বান : প্রতিবাদে স্মারকলিপি

প্রকাশিত: ৪:০২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৯, ২০১৬

দোকান মালিক ও ব্যবসায়িদের না জানিয়ে নগরীর লালদিগীরপাড়স্থ নতুন হকার্স মার্কেটের এ, বি, সি, ডি ব্লক ভাঙ্গার দরপত্র আহবান করেছে সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক)।

এর প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার (০৮ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত মার্কেটের ৪ ব্লক বন্ধ রেখে প্রতিবাদ সভা করেন ব্যবসায়ীরা। এছাড়াও ১২টায় সিলেট সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ও সাড়ে ১২টায় জেলা প্রশাসক সিলেটের নিকট স্মারকলিপি প্রদান করেন। লালদিগীরপাড়স্থ নতুন হকার্স মার্কেটের এ, বি, সি, ডি ব্লক ব্যবসায়ী কমিতি এ কর্মসূচি পালন করেনে।

লালদিগীরপাড়স্থ নতুন হকার্স মার্কেটের এ, বি, সি, ডি ব্লক ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক কমিটির পক্ষে সভাপতি মো. আকিদ মিয়া ও সেক্রেটারি মো. বাছিত আহমদ স্বাক্ষরিত স্মারকলিপিতে বলা হয়- এই মার্কেটে ব্যবসা-বানিজ্য করে আমরা প্রায় ২ হাজার ব্যবসায়ী ও দোকান মালিকবৃন্দ পরিবারের জীবিকা নির্বাহ করে থাকি। অত্যন্ত দুঃখের সাথে জানাচ্ছি গত ১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার দৈনিক সিলেটের ডাক পত্রিকার মাধ্যমে জানতে পারলাম, সিসিক কর্তৃক আমাদের সাথে আলোচনা না-করে বা কোনো ধরণের নোটিশ না-দিয়ে লালদিঘীরপাড়স্থ নতুন হকার্স মার্কেটের এ, বি, সি, ডি ব্লক ভাঙ্গার দরপত্র আহবান করা হয়েছে।

তারা বলেন- মালিক হিসাবে সিসিক মার্কেট সংক্রান্ত যেকোনো ধরণের সিদ্ধান্ত গ্রহন করতে পারে, যেহেতু এই মার্কেটের সাথে আমাদের জীবন-জীবিকা জড়িত, সেহেতু দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠান হিসাবে সিসিক আমাদের সাথে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেওয়াই দায়িত্বশীলতার পরিচয়।

সিসিকের মত দায়িত্বশীল প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এ রকম সিদ্ধান্ত আসা দুঃখজনক। হঠাৎ করে মার্কেটটি ভেঙ্গে ফেলা হলে আমাদের ২ হাজার পরিবারের জীবিকা সংগ্রহ বন্ধ হয়ে যাবে। অনাহারে থাকবে আমাদের পরিবার-পরিজন। খরচের অভাবে পড়ালেখা বন্ধ হয়ে যাবে আমাদের ছেলে-মেয়েদের।

২ হাজার ব্যবসায়ী পরিবারের জীবিকা সংগ্রহের বিষয়টি বিবেচনা করে, কয়েক হাজার ছেলে-মেয়ের পড়ালেখার কথা চিন্তা করে সিসিক মালিকানাধীন লালদিঘীরপাড়স্থ নতুন হকার্স মার্কেটের এ, বি, সি, ডি ব্লক ভাঙ্গার বিষয়টি আপাতত স্থগিত করার জন্য বিনীতভাবে অনুরোধ জানাচ্ছি।

মিছিল সহকারে স্মারকলিপি নিয়ে সিলেট সিটি করপোরেশনের অস্থায়ী কার্যালয়ের সামনে যান ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ।

এসময় সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এনামুল হাবিব ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক কমিটির নেতৃবৃন্দের সাথে কথা বলে স্মারকলিপি গ্রহণ করেন। ব্যবসায়ী ও দোকান মালিকদের আশ্বস্ত করেন যে- সিটি করপোরেশন এমন কোনো কাজ করবেনা যাতে আপনাদের ক্ষতি হয়। আপনাদের সাথে পরামর্শ করে ৪ ব্লক এক সাথে না ভেঙ্গে প্রয়োজনে একটি করে ভাঙ্গা হবে।

এসময় উপস্থিত সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী প্রকৌশলী নূর আজিজ বলেন- আপনারা দোকান মালিক ও ব্যবসায়ী কমিটির ৪ জন প্রতিনিধি দেন। তারা সিটি করপোরেশনের এ সংক্রান্ত কমিটির সাথে সার্বিক বিষয়ে সহযোগিতা ও পরামর্শ করে কাজ করবেন।

একইভাবে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে যান ব্যবসায়ী ও দোকাণ মালিক কমিটির নেতৃবৃন্দ। এসময় ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শহিদুল ইসলাম চৌধুরী স্মারকলিপি গ্রহণ করে বলেন- ডিসি স্যার দেশের বাইরে আছেন, তিনি আসলে আপনাদের সুবিধা-অসুবিধার বিষয় বিচেনার জন্য সিটি করপোরেশনের নিকট সুপারিশ করবেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন- লালদিগীরপাড়স্থ নতুন হকার্স মার্কেটের এ, বি, সি, ডি ব্লক ব্যবসায়ী ও দোকান মালিক কমিটির সভাপতি মো. আকিদ মিয়া, সেক্রেটারি মো. বাছিত আহমদ ও কবির হোসেনসহ সব দোকান মালিক ও ব্যবসায়ীবৃন্দ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট