‘ভূমিখেকো সন্ত্রাসীদের’ হাত থেকে ঘাসিটুলায় মসজিদের জায়গা রক্ষার দাবিতে স্মারকলিপি

প্রকাশিত: ১০:২৭ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৬

৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬, বৃহস্পতিবার : সিলেট নগরীর ঘাসিটুলার ঐতিহ্যবাহী জামে মসজিদের জায়গা ‘ভূমিখেকো সন্ত্রাসীদের’ হাত থেকে রক্ষায় আইনী সহায়তা চেয়ে সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনারের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে ঘাসিটুলা জামে মসজিদের কার্যকরী কমিটির সদস্য এবং ঘাসিটুলা এলাকার বাসিন্দারা এ স্বারকলিপি প্রদান করেন।

স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, ‘ঘাসিটুলা জামে মসজিদের জায়গা দখল করতে কিছু চিহ্নিত ভূমিখেকো সন্ত্রাসী চক্র পায়তারা করছে। সিলেট সিটি করপোরেশনের ১০নং ওয়ার্ডের কমিশনার সালেহ আহমদের নির্দেশে ও সহায়তায় জাকারিয়া (জাকু), জয়নুল হক, জানে আলম, ময়নুল হক, স্বপন ওরফে হাফপ্যান্ট স্বপন, জাকির, মকবুল, দিলু, কামালসহ বেশ কয়েকজন ভূমিখেকো চক্র মসজিদের ভূমি স্থায়ীভাবে দখলের চেষ্টা চালাচ্ছে। যে মসজিদে এলাকার হাজার হাজার ধর্মপ্রাণ মুসল্লি নামাজ আদায় করে থাকেন, ভূমি খেকো চক্র মসজিদের দেয়াল ভেঙে মাটি ভরাট করে ঘর নির্মাণের চেষ্টা করছে। ঘাসিটুলা মসজিদ কমিটি গত ২৯ জুলাই সিলেট কোতোয়ালী থানায় তাদের বিরুদ্ধে একটি সাধারণ ডায়েরিও করে যার নং- ১৯৭৬।  জিডি করার পরও কোন আইনী সহায়তা না পাওয়ায় সিলেট জেলা অতিরিক্ত ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ফৌ. বিধির মামলা নং ২১/১৬ ধারা ১৪৫ কার্যবিধি দায়ের করা হয়েছে। থানায় এ বিষয়ে নির্দেশনা প্রেরণ করলেও কোন ধরণের আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি।’

স্বারকলিপিতে আরো উল্লেখ করা হয়, দজরিপী ২৩৪০এবং ২৩৪৪ দাগের ও জরিপী ২৩৪১,২৩৪২,২৩৪৩,২৩৪৫,২৩৪৬,২৩৪৭,২৩৫৩,২৩৫৮ দাগে ৩.২২ একর জমি মূল মালিক ঘাসিটুলার রহিম বক্স ও তার চার ছেলে আব্দুল গণি, আব্দুল মনাফ, আব্দুল হাকিম, আব্দুল মন্নান এবং একমাত্র কন্যা নূরুন্নেছা বানু বরাবরে বিগত ২০/২/১৯১৫ তারিখে সম্পাদিত  ও  ২২/২/১৯১৫ তারিখে রেজিস্ট্রিকৃত ৫৫৩ নং দানপত্র দলিল মূলে ৩.২২ একর দান করেন। এর প্রেক্ষিতে  ধর্মনুরাগী মরহুম আব্দুল গণি তপশীলে বর্ণিত জায়গা গত ১৯৫৭ সালের ১০ অক্টোবর তারিখে রেজিস্ট্রিকৃত১১৫৭৬/৫৭ এবং    ১১৫৭৭/৫৭ নং দলিল মূলে ১৪.৫২ একর জায়গা ঘাসিটুলা বড় জামে মসজিদ বরাবর ওয়াকফ করে যান। এর প্রেক্ষিতে ১৯৫৭ সাল থেকে মসজিদ কর্তৃপক্ষ উল্লেখিত জমি ভূগ দখল করে আসছিল। ১৯৯০ সালে মসজিদের জমির তিন দিকে বাউন্ডরি ওয়াল নির্মাণ করে মসজিদের উন্নয়নমূলক কাজ করে আসছিল। মসজিদের জায়গা রক্ষায় এর পূর্বেও এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা মানববন্ধন ও গণস্বাক্ষর কর্মসূচী পালন করেছেন।’

স্বারকলিপি প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন- ঘাসিটুলা জামে মসজিদের মোতাওয়াল্লী হাজী মো. সামছুজ্জামান চুনু মিয়া, ঘাসিটুলা জামে মসজিদের সেক্রেটারী মো. জিলাল উদ্দিন, জালাল উদ্দিন শাহাবুল, আব্দর রহমান হীরা, আব্দুল মতিন, মো. শাহজাহান, মো. এখলাছুর রহমান উরান, মো. হাবিবুর রহমান, মো. জামাল উদ্দিন, মো. সোহেল আহমেদ, মো. রবু মিয়া প্রমুখ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট