আম্বরখানায় পুলিশ-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ : গ্রেফতার ৮

প্রকাশিত: ১:৩৮ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২৩, ২০১৬

সিলেট নগরীর আম্বরখানায় পুলিশ-ছাত্রলীগের মধ্যে সংঘর্ষে চার পুলিশসহ অন্তত ছয়জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রিয় সহ সম্পাদক মাসুদ কামাল সুফিসহ পাঁচ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার রাত দশটার দিকে আম্বরখানা পয়েন্টে এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড শর্টগানের গুলি ছুড়েছে।

আহত পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের ভাষ্য অনুযায়ী, শাহজালালের (র.) এর ওরস উপলক্ষে সন্ধ্যার পর আম্বরখানা পয়েন্ট থেকে চৌহাট্টা টু জিন্দাবাজার পয়েন্ট পর্যন্ত রাস্তায় সকল যানচলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়। সেখানে পুলিশের ৫-৬ জনের একটি টইল দল দায়িত্ব পালন করছিল।

রাত দশটার দিকে আম্বরখানা পয়েন্টের পুলিশের ব্যারিকেডের বাধা উপেক্ষা করে মোটরসাইকেল নিয়ে ওই রাস্তায় প্রবেশ করতে চান ছাত্রলীগ নেতা সুফি। এসময়  ছাত্রলীগের ওই নেতা পুলিশের সাথে বাকবিতন্ডায় লিপ্ত হন।

এক পর্যায়ে তিনি চিকাৎর করে বলতে থাকেন ‘আমরা ছাত্রলীগের ছেলে, কেন যাওয়া যাবে না’। একথা বলেই  পুলিশ কন্সটেবল আফাজের ইউনিফর্মের কলারে ধরে তাকে মারতে উদ্যত হন।

তখন অন্য পাশ থেকে ২০/২৫ জন ছাত্রলীগ কর্মী জয় বাংলা শ্লোগান দিয়ে পয়েন্টে এসে পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়তে থাকে। এসময় পুলিশের সাথে তাদের সংঘর্ষ শুরু হয়।

সংঘর্ষে উপ-পরিদর্শক শাহীন, এএসআই আজিজ, ফরহাদ, কন্সটেবল আব্বাসসহ চার পুলিশ আহত হন। তাদেরকে পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে।

অন্যদিকে, ছাত্রলীগের টানা হেচড়ায় কন্সটেবল আফাজের ইউনিফর্ম ছিড়ে যায়। সংঘর্ষের সময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সাত-আট রাউন্ড শর্ট গানের গুলি ছুড়া হয়।

খবর পেয়ে পুলিশের অতিরিক্ত ফোর্স ঘটনাস্থলে আসলে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা মিছিল করে আম্বরখানা পয়েন্টে হয়ে সুনামগঞ্জ রোড দিয়ে পালিয়ে যায়। তবে যাওয়ার সময় পয়েন্টে দুটি ট্রাক ও কয়েকটি দোকান ভাঙচুর করে।

পরে ঘটনাস্থল থেকে ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রিয় সহ সম্পাদক মাসুদ কামাল সুফি, সাহেদসহ আট জনকে আটক করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

এ ব্যাপারে ঘটনাস্থলে উপস্থিত সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনা (মিডিয়া) রহমত উল্লাহ তাৎক্ষণিক কোন মন্তব্য করতে রাজি হননি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট