মেয়েদের জন্য

প্রকাশিত: ৪:২৬ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৮, ২০১৬

কখনো মেয়ে, কখনো প্রেয়সী, কখনো মা, কখনো বোন৷ অনেক ভূমিকায় ব্যস্ত থাকেন সারাটা দিন৷ কিন্তু সেই ব্যস্ততার ফাঁকে নিজের যত্ন নেওয়া হয় কি? প্রতিদিন রুটিনে কীভাবে ফিট থাকবেন তার সহজ কিছু উপায় জেনে নিন।

সকালের খাবার খেতেই হবে: স্বামীর অফিসের তাড়াহুড়ো, ছেলে-মেয়ের স্কুলের তাড়া। সব কিছু সামাল দিতে গিয়ে নিজের সকালের খাওয়া হয়নি৷ এটা খুব বাজে অভ্যাস৷ সকালের খাবার শরীরের জন্য খুব জরুরি৷ ঠিক সময় খেলে ফিট থাকবেন সব সময়৷

সঠিক ঘুম: দিনে ৭-৮ ঘণ্টা ঘুম খুব দরকার৷ সারাদিন বাড়ি, অফিস সব সামলাতে হবে আপনাকেই৷ অধিক রাত না করে একটা লম্বা ঘুম দিন৷ ঘুমাতে যাওয়ার একটা সময় মেনে চলুন৷ সেই সময়ের মধ্যে বাকী সব কাজ সেরে ফেলুন৷ রাতে টিভি প্রোগ্রামগুলকে রেকর্ড করে রাখুন, পড়ে দেখার অনেক সময় পাবেন৷

কাজ করুন আনন্দে: কত কাজ করতে হয়, কেউ আপনার কথা ভাবে না। এসব ভেবে মন খারাপ না করে নিজের কাজটা আনন্দ সহকারে করুন৷ কেউ ভাবল কি ভাবল না সেসব ছাড়ুন৷ বরং এটা ভাবুন দিনের শেষে রাতের খাবারের জন্য আপনার দ্বারস্থই হবে পুরো পরিবার৷

পিঠের যত্ন নিন: পিঠে মাঝে মধ্যেই ব্যথা হয়৷ অথচ ব্যাপারটাকে তেমন পাত্তা দিচ্ছেন না এমন করলে কিন্তু খুব ভুল করছেন৷ বেশিরভাগ মহিলারই ব্যাকবোনের সমস্যা হয়৷ যেটা পড়ে খুব ভোগায়৷ আজই চিকিৎসকের শরণাপন্ন হন৷ ভিটামিন ও মিনারেলস সমৃদ্ধ খাওয়ার খান৷

বেশি করে শাকসবজি খান: শুধু ছেলে-মেয়ের জন্য শাকসবজি খাওয়ালেন নিজের বেলায় নেই। এমন করবেন না৷ আপনার শরীরের জন্যও শাকসজিস জরুরি৷ বেশি করে শাকসবজি খান৷ কালারফুল শাকসবজি শুধু দেখতে ভালো হয় তা না, খেতেও ভালো হয় এবং গুণও প্রচুর৷

যোগা করুন: নিয়মিত যোগব্যায়াম করুন৷ নিজের এলাকার কোনো যোগ ক্লাসের সদস্য হতে পারেন৷ কিংবা কাজের ফাঁকে বাড়িতেই নিজে চেষ্টা করুন৷ উপকার পাবেন৷

গল্প করুন: দিনের কোনো একটা সময় প্রিয় বন্ধু কিংবা মাকে ফোন করে জমিয়ে আড্ডা দিন৷ নিজের সমস্যা চেপে রাখবেন না৷ শেয়ার করুন৷ তাহলে দেখবেন অনেক হালকা লাগছে৷ এতে মানসিক শান্তি পাওয়া যায়৷

গ্রিন টি পান করুন: দিনে অন্তত দুবার সব চিন্তা ভাবনা ছেড়ে আরাম করে চেয়ারে হেলান দিয়ে গ্রিন টি পান করুন৷ এর থেকে ভালো কিছু হয় না৷ তবে মনে অশান্তি নিয়ে ১০ কাপ গ্রিন টি পান করলেও তা বিস্বাদ লাগতে বাধ্য৷

ব্যায়াম করুন: যতক্ষণ না সম্পূর্ণ ঘামছেন ততক্ষণ ব্যায়াম করে যাবেন এমনটা নয়৷ তবে দিনে একঘণ্টা ঘাম ঝরালেই হার্টের সমস্যা, লো ব্লাড প্রেসারের মত সমস্যার সমাধান তো হবেই, এছাড়া সারাদিন কাজ করার জন্য শক্তি পাবেন৷

বাদাম খান: দিনে অল্প পরিমানে হলেও বাদাম খেতে ভুলবেন না৷ মহিলাদের জন্য এটা ভালো অভ্যাস৷ বাদামে অত্যাবশ্যক ফ্যাট ও প্রোটিন থাকে যা বিশেষত মহিলাদের দেহের জন্য জরুরি৷ নিজের মেয়েকেও বাদাম খাওয়ান৷

  •