বালাগঞ্জ ডিএন উচ্চ বিদ্যালয় জাতীয়করণ হওয়ায় আনন্দিত উপজেলাবাসী

প্রকাশিত: ২:১০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১৬, ২০১৬

বালাগঞ্জ ডিএন উচ্চ বিদ্যালয়টিকে জাতীয়করণ করায় আনন্দিত উপজেলাবাসী। সরকারের এই মহতি উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে এতদঞ্চলে শিক্ষা ক্ষেত্রে নতুন দ্বার উন্মেচিত হবে বলে শিক্ষিত ও সচেতন সমাজের লোকজন অভিমত ব্যক্ত করেছেন।

চলতি বছর উপজেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হিসেবেও এটি নির্বাচিত হয়েছে। কয়েক বছর পুর্বে স্কুলটির নামকরনের সাথে ‘মডেল’ শব্দটিও যুক্ত করা হয়েছে।

আর বালাগঞ্জ ডিএন মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠটিও যেন দেশ-বিদেশে অতি পরিচিত একটি নাম। মাঠের পুর্ব পাশের নির্মিত দৃষ্টি নন্দন শহীদ মিনারটিই বালাগঞ্জের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। স্কুলের মাঠ এবং শহীদ মিনারে উপজেলা ভিত্তিক বিভিন্ন দিবসের কর্মসূচি গুলো পালিত হয়ে আসছে।

দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা অনেক কৃতি ও গুনি ব্যক্তিরা এই স্কুলে লেখাপড়া করে স্ব অবস্থানে প্রতিষ্টিত হয়ে স্কুলের নামটিকে প্রসংশিত করেছেন। বর্তমান সরকারের দু’টি গুরুত্বপুর্ন মন্ত্রনালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত দু’জন সচিব এই বিদ্যালয়েরই সাবেক ছাত্র। তারা হলেন-ভুমি মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব পুন্যব্রত চৌধুরী এবং বন ও পরিবেশ মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব অনল চন্দ্র দাস। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সাইফুল ইসলাম বলেন-স্কুলটি জাতীয়করন করায় প্রধানমন্ত্রী, অথর্ মন্ত্রী, শিক্ষা মন্ত্রী, সিলেট-২ আসনের সাবেক এমপি শফিকুর রহমান চৌধুরী ও বর্তমান এমপি ইয়াহ্ইয়া চৌধুরী এহিয়ার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে-বালাগঞ্জের ইলাশপুর বড়চরের জমিদার দারকানাথ রায় চৌধুরী ও তার পরিবার ১৯৪৬ সালের পহেলা এপ্রিল বিদ্যালয়টি প্রতিষ্টা করেন। বিদ্যালয়ের ভুমির পরিমান ৭.৩০ একর। বর্তমানে ৭৮৫ জন ছেলে ও ৬০৮ জন মেয়ে সহ মোট ১৩৯৩ জন শিক্ষার্থী অধ্যয়ন করছেন। এ বছর এসএসসি পরীক্ষায় তিন জন শিক্ষার্থী এ প্লাস পয়েছে। পাশের হার ৬৫.৯২।

বিগত পাঁচ বছরে গড় পাশের হার ৭৯.২১। এমপিও ভুক্ত ১২ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা নিয়মিত পাঠদান করাচ্ছেন। পর্যাপ্ত শ্রেনী কক্ষের পাশাপাশি রয়েছে বিজ্ঞানাগার ও নিজস্ব মসজিদ। স্কুলের সাবেক অনেক শিক্ষার্থী এই এই স্কুলেই শিক্ষকতা করে গেছেন। আবার সাবেক শিক্ষার্থীদের মধ্যে কয়েক জন বর্তমানেও শিক্ষকতা করছেন। তাদের মধ্যে সিনিয়র শিক্ষক তুলসি দাস ও নুরুল আমীন। স্কুলটি জাতীয়করন হওয়ায় প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে তারা বলেন-যে স্কুলে পড়ালেখা করেছি, আজ সে স্কুলেই শিক্ষকতা করছি। স্কুলটি জাতীয়করন হওয়ায় অন্তত আমাদের এই প্রাপ্তিটুকুই জীবনের  স্বার্থকতা মনে করছি। বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাকুর রহমান মফুর ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক বোয়ালজুড় ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনহার মিয়া বলেন-বর্তমান সরকারের ঘোষনা রয়েছে প্রতি উপজেলায় একটি করে মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজ সরকারীকরন করার।

এরই ধারাবাহিকতায় বালাগঞ্জ ডিএন মডেল উচ্চ বিদ্যালয়টি জাতীয়করণ করা হয়েছে। সিলেট-২ আসনের এমপি ইয়াহ্ইয়া চৌধুরী এহিয়া বলেন- বালাগঞ্জ ও বিশ^নাথের দু’টি বিদ্যালয় জাতীয়করন করায় আমার নির্বাচনী এলাকার সর্বস্থরের মানুষের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী,শিক্ষামন্ত্রী সহ সরকারের সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। তিনি বলেন-উপজেলা ভিত্তিক অন্যান্য শিক্ষা প্রতিষ্টান গুলোও ধারাবাহিক ভাবে জাতীয়করন করা হবে এতে সকলের সহযোগীতা প্রয়োজন।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট