তারাপুরের গ্যাস-বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করার দাবিতে রাস্তায় সাধারণ মানুষ

প্রকাশিত: ৮:০৪ অপরাহ্ণ, আগস্ট ১৪, ২০১৬

সিলেট তারাপুর এলাকার বসতবাড়ির গ্যাস-বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন না করার দাবিতে রাস্তায় নেমে এসেছে হাজার হাজার জনতা। আজ রবিবার সকাল থেকে নগরীর পাঠানটুলা পয়েন্ট ও মদিনামার্কেট পনিটুলা এবং সুবিদবাজার এলাকায় অবস্থান নিয়ে তারাপুরের লোকজন  দাবী করেন  তারাপুর এলাকায় যারা দীর্ঘদিন থেকে বাসা-বাড়ি নির্মাণ করে আসছেন তাদের বসতভিটার জায়গা বন্দোবস্তদেয়ার দাবি জানানো হয়।

অন্যদিকে জেলা প্রশাসন তারাপুর মৌজায় বসবাসকারীদের ১৩ আগস্টের মধ্যে স্বেচ্ছায় বাসা-বাড়ি ছেড়ে যাওয়ার নোটিশ দিয়েছিল। বেধে দেয়া সময়ের মধ্যে চলে না গেলে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্নের ঘোষণা ও দেয় জেলা প্রশাসন। আজ জেলা প্রশাসন গ্যাস ও বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্নে নামতে পারে এমন আশঙ্কায় তারাপুর এলাকায়  উত্তেজনা বিরাজ করছে ।

এদিকে, রবিবার সকাল থেকে নগরীর পাঠানটুলা পয়েন্টে তারাপুরবাসী অবস্থান কর্মসূচী পালন করে। অবস্থান কর্মসূচী পঞ্চয়েত কমিটির সভাপতি সাবেক ৮নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগে সভাপতি আব্দুর রাজ্জাক খান রাজা সভাপতিত্বে  সাবেক মহানগর ছাত্রলীগের সদস্য সাফায়েত খান‘র পরিচালনায়,

মহানগর আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেষ বিষয়ক সম্পাদক সাবেক সিটি কাউন্সিলর জগদীশ চন্দ্র দাশ, মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন আহবায়ক ও ৮নং ওয়ার্ড সিটি কাউন্সিলর ইলিয়াছুর রহমান ইলিয়াছ, বিশিষ্ট মুরব্বী আহাজ্ব মো: ফজলুর রহমান, মহানগর স্বেচ্ছাসেবকলীগের নেতা সাব্বির খান, ৮নং ওয়র্ডি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম নজু, সাবেক সহ সম্পাদক কেন্দ্রীয় কমিটির বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শাহরিয়ার করিম সেলিম, সাবেক চেয়ারম্যান শেওলা ইউনিয়নের সামসুউদ্দিন খান,

মহানগর যুবলীগের যুগ্ন আহবায়ক সেলিম আহমদ সেলিম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী করিমউল্লাহ হেলাল, ৭,৮ ও ৯নং ওয়ার্ডও মহিলা কাউন্সিলর রেবেকা বেগম রেনু, ৬নং টুকের বাজার ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড শফিকুর রহমান শফিক, বিশিষ্ট সমাজসেবক সিরাজ খান,  যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ও সিলেট জেলা কমান্ডার মীর্জা জামাল পাশা, বীর মুক্তিযোদ্ধা গৌরাঙ্গ চন্দ্র দেশী, বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রিথিশ চন্দ্র দশি, আওয়ামীলীগে নেতা  সিথিল দেব, আজিজ খান সজিব, রাসেল আহমদ, সমাজসেবক ফখরুল ইসলাম ফারুক,ব্যবসায়ী আবুল মনসুর টিপু, ব্যবসায়ী মোনায়েম খান ময়নুল, স্বেচ্ছাসেবকরীগ নেতা শাহাদত খান দবির, রেহান, শফিক,

আরও অন্যানদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সৈয়দ বাহারুল ইসলাম রিপন, এ কে এম শাহজান, শাহ আবু সাঈদ, মিলন আহমদ, আব্দুল আজিজ মনু, ময়না মিয়া, বুরহান মিয়া, বাবু মিয়া, শেখ সুয়েব আলী, আসাবউদ্দিন, মো: ছমির উল্লাহ, আব্দুর শুক্রর মিয়া, জিল্লার রহমান, খলিল আহমদ, হাজী মাসুক মিয়া, আব্দুর রহমান, আখতারুজ্জামান আখতার, ময়না মিয়া, মো: নুরুল ইসলাম পাকি ,ফেরদৌস আহমদ রাজু, দেলোয়ার হোসেন দিপু, শুকুমার দাশ আব্দুর মান্নান,অমল রায়,জাহাঙ্গীর আহমদ,সুলতান আলী ময়না,দিলোয়ার হোসেন, শাহ আলম, তরিকুল ইসলাম,মসসুর,গোলাম মোস্তফা,শাহান খান, লিয়াকত আলী,মেরাজ আহমদ, এমদার হোসেন, ময়ফর রাজা বাদশা, হাজী আবু বক্কর,নরুল হকসহ এলাকার সর্বস্থরের জনতা উপস্থিত ছিলেন  প্রমুখ ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট