বিএনপি নেতা পরিতোষ চক্রবর্তীর পদত্যাগ

প্রকাশিত: ১২:১৫ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ১২, ২০১৬

রংপুর : এবার বিএনপির রংপুর জেলা ও বদরগঞ্জ উপজেলা কমিটি থেকে পদত্যাগ করেছেন সাবেক সংসদ সদস্য পরিতোষ চক্রবর্তী। তিনি জেলা বিএনপির সিনিয়র সহসভাপতি এবং বদরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ছিলেন।

কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের পর মোসাদ্দেক আলী ফালু, শামীমুর রহমান শামীম ও কাজী সালিমুল হক কামালের পদ ছাড়ার পর এই পদত্যাগের খবর এলো।

বৃহস্পতিবার সকালে পদত্যাগপত্র দলের রংপুর জেলা সভাপতির কাছে পাঠিয়েছেন বলে পরিতোষ চক্রবর্তী সাংবাদিকদের জানান।

পদত্যাগপত্রে শারীরিক অসুস্থতার কথা উল্লেখ করলেও দলের সদ্য ঘোষিত কেন্দ্রীয় কমিটি গঠনের সমালোচনা করেন ওই কমিটিতে স্থান না পাওয়া এই জেলা নেতা।

কেন্দ্রীয় কমিটিতে পদ না পাওয়ার ক্ষোভে পদত্যাগ করেছেন কিনা প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, বর্তমানে বিএনপিতে গণতন্ত্র, গঠনতন্ত্র ও নিয়মনীতির বালাই নেই। দলের গঠনতন্ত্র কেন্দ্রীয় নীতিনির্ধারকরাই মানেন না।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, দলের ত্যাগী নেতারা উপেক্ষিত। আন্দোলন সংগ্রামে যারা মাঠে থাকেন, মামলা-হামলা শিকার হন তাদের মূল্যায়ন নেই। রংপুর থেকে মাত্র তিনজনকে কেন্দ্রীয় কমিটিতে রাখা হয়েছে।

রংপুর মহানগর সভাপতি মোজাফফর হোসেনকে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প সম্পাদক এবং জেলা সহসভাপতি নুর মোহাম্মদ মণ্ডল ও মহানগর সহসভাপতি সাহিদা রহমান জোৎস্নাকে সদস্য পদ দেওয়া হয়েছে।

দলের জেলা সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক এবং মহানগরের সাধারণ সম্পাদককেও কমিটিতে রাখা যেত উল্লেখ করে পরিতোষ চক্রবর্তী বলেন, ‘যে দলে ত্যাগী নেতার মূল্যায়ন নেই সে দলে আর নয়। এখন বয়স হয়েছে। বাকি দিনগুলো সামাজিক কাজে জড়িত থাকতে চাই।’

ষষ্ঠ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হয়ে রংপুর-৩ (তারাগঞ্জ-বদরগঞ্জ) আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন পরিতোষ চক্রবর্তী। ১৯৯৫ সালে তিনি বিএনপিতে যোগ দেন। তখন থেকে বদরগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন।

জেলা বিএনপি সভাপতি এমদাদুল হক ভরসা বলেন, ‘পদত্যাগপত্র এখনো হাতে পাইনি। তাই এনিয়ে আগাম কোনো মন্তব্য করতে চাই না।’

বিতর্কিত লোকদের স্থায়ী কমিটি ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে স্থান দেওয়ার অভিযোগ তুলে ইতিমধ্যে পদত্যাগ করেছেন বিএনপির সদ্য ঘোষিত কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য ‘ইকোনো কামাল’ হিসেবে পরিচিত জিকিউ গ্রুপের মালিক মাগুরার কাজী সালিমুল হক কামাল।

এছাড়া কমিটি ঘোষণার পরপরই উপদেষ্টা মোসাদ্দেক আলী ফালু এবং সহপ্রচার সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম পদত‌্যাগের ঘোষণা দেন। আরো অনেক নেতা নিজেদের অসন্তোষের কথা জানিয়ে গণমাধ‌্যমে মুখ খুলেছেন।

কাউন্সিলের সাড়ে চার মাস পর গত শনিবার মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক সংবাদ সম্মেলনে চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অনুমোদিত জাতীয় স্থায়ী কমিটি, ৭৩ সদস্যের উপদেষ্টা কাউন্সিল ও ৫০২ সদস্যের জাতীয় নির্বাহী কমিটি ঘোষণা করেন।

  •