তারাপুর চা বাগানের দখল না ছাড়লে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ

প্রকাশিত: ১:২১ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০১৬

১৩ আগস্টের মধ্যে দখল না-ছাড়লে সিলেটের তারাপুর চা-বাগানে গড়ে ওঠা আবাসন ও মার্কেটে গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বন্ধ করে দেওয়া হবে। সিলেট জেলা প্রশাসনের জারি করা এক গণবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সিলেটের জেলা প্রশাসক মো. জয়নাল আবেদীন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- ‘তারাপুর চা বাগানস্থ শ্রী শ্রী রাধাকৃষ্ণ জিউ দেবোত্তোর সম্পত্তির সকল অবৈধ দখলকারকে চলতি বছরের ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে সেবাইত শ্রী শ্রী রাধাকৃষ্ণ জিউ দেবোত্তোর সম্পতি বরাবরে দখল বুঝিয়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছিল। অবৈধ দখলকারদের কোনো তৎপরতা পরিলক্ষিত হয়নি। এমতাবস্থায় ১৩ আগস্ট ২০১৬ তারিখের মধ্যে দখল বুঝিয়ে দেয়ার জন্য পুনরায় অনুরোধ করা হলো। অন্যথায় আগামী ১৪ আগস্ট ২০১৬ তারিখ হতে সকল গ্যাস ও বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হবে।’

সিলেটের তারাপুর চা-বাগানের প্রায় হাজার কোটি টাকার দেবোত্তোর সম্পত্তি প্রতারণার মাধ্যমে দীর্ঘদিন ধরে দখলে রেখে বিক্রি ও স্থাপনা নির্মাণ করেছিলেন রাগীব আলী। সেখানে গড়ে তোলেন মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, মার্কেটসহ আবাসন প্রকল্প। জালিয়াতির বিষয়টি প্রমাণিত হলে প্রধান বিচারপতির সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন হাইকোর্টের আপিল বিভাগ এক রায়ে তারাপুর চা-বাগান দখল করে গড়ে ওঠা সব স্থাপনা ৬ মাসের মধ্যে সরিয়ে নেয়ার নির্দেশ দেন।

আদালতের নির্দেশনার প্রেক্ষিতে গত ১৫ মে বাগানটি রাগিব আলীর দখলমুক্ত করে সেবায়েত পঙ্কজ কুমার গুপ্তের কাছে বুঝিয়ে দেয়। তবে বাগান এলাকায় গড়ে ওঠা মেডিক্যাল কলেজ, হোস্টেল ও আবাসিক স্থাপনার দখল রাগিব আলীর কাছেই থেকে যায়। এমন অবস্থায় ২০ জুলাই গণবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে তারাপুর চা বাগান থেকে সকল অবৈধ দখলকারদের স্থাপনা সরিয়ে নিতে বলা হয়। সাড়া না-পেয়েই ২ আগস্ট স্বাক্ষরিত দ্বিতীয় দফা গণবিজ্ঞপ্তিটি জারি করা হয়।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট