জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মহানগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত: ১:৩১ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০১৬

বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেছেন, ১৫ই আগষ্ট একটি কালো অধ্যায়। ঐ দিনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করা হয়েছিল।
জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বপরিবারকে হত্যার উদ্দেশ্যে গ্রেনেড হামলা করা হয়েছিল। সিলেট গুলশানে গ্রেডেন হামলা, ইব্রাহিমের উপর গ্রেনেড হামলা, এস এম কিবরিয়া আনোয়ার চৌধুরীসহ নেতাকর্মীদের উপর এসমস্ত অপরাজিত শক্তিরা আওয়ামীলীগকে ধ্বংস করতে একের পর এক ষড়যন্ত্র করে গ্রেনেড হামলা চালায়। গুলশানে বিদেশী নাগরিককে কুপিয়ে কুপিয়ে হত্যা, পবিত্র রমজান মাসে শোলাকিয়ায় ঈদের জামাতে বিএনপি-জামাতের ইন্দনে একের পর এক জঙ্গি হামলা চালানো হয়েছে।
তাই প্রত্যেক নেতাকর্মীকে ঐকবদ্ধ হয়ে তা প্রতিহত করার আহবান জানান। তা না হলে অপরাজিত শক্তিরা আবার মাথা নাড়া দিয়ে উঠবে। তিনি বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, বঙ্গবন্ধু এমন একজন নেতা যার সমান কেউ হবে না, বাঙালি হিসেবে শেখ মুজিবের পাশে অন্য কোন নেতার নাম কল্পনা করাও দুর্ভাগ্যজনক।
তিনি বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে লালন করে দেশ গড়ার কাজে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানান এবং  ৭ই আগস্ট, ১৫ই আগস্ট, ২১ আগস্ট বিভিন্ন কর্মসূচির পালন করার নির্দেশ প্রদান করেন। কর্মসূচীর মধ্যে ৭ আগস্ট জেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল, ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শহীদ মিনারে শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পন, বাদ জোহর দরগাহ মসজিদে মিলাদ মাহফিল, প্রত্যেক ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, ২১ আগস্ট জনসভা পালন করার আহবান জানান।
তিনি বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) নগরীর তালতলাস্থ একটি অভিজাত হোটেলে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মহানগর আওয়ামীলীগের উদ্যোগে এক বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
মহাগর আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ সভাপতি সিরাজ বক্সের সভাপতিত্বে ও যুগ্ম সম্পাদক ফয়জুর আনোয়ার আলাওরের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, তুহিন কুমার দাস, আলহাজ্ব সিরাজুল  ইসলাম, এডভোকটে রইছ উদ্দিন, মোশারফ হোসেন, আব্দুল খালিক, অধ্যাপক জাকির হোসেন, বিজিৎ চৌধুরী, নুরুল ইসলাম পুতুল, এটিএম এ হাসান জেবুল, তপন মিত্র, এডভোকেট শামসুল ইসলাম, আজহার উদ্দিন জাহাঙ্গীর, এডভোকেট সৈয়দ শামীম আহমদ, জুবের খান, আব্দুর রহমান জামিল, দিবাকর ধররাম, আনোয়ার হোসেন রানা, গোলাম সোবহান চৌধুরী দিপন, এডভোকেট জসিম উদ্দিন, প্রদীপ পুরকায়স্থ নজরুল ইসলাম তহিয়া, প্রতাপ ভট্টাচার্য্য, হাজী আব্দুল মতিন, মকসুদ বক্স, জামাল চৌধুরী, আব্দুস সোবহান, আজম খান, দিলোয়ার হোসেন রাজা।
অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, জুনু মিয়া, আকবর আলী, কুতুব উদ্দিন, ছয়েফ খান, জালাল উদ্দিন সাবুল, হাজী আমির উদ্দিন, আব্দুল হান্নান, মানিক মিয়া, নজরুল ইসলাম নজু, ইসমাইল মাহমুদ সুজন, জাহিদ হোসেন মাছুম, সিরাজুল ইসলাম খান, এনামূল হক, আলাউদ্দিন মিয়া, ফারুক আহমদ, জুনেদ আহমদ শওকত, আহমেদ হান্নান, আব্দুল গফফার খান উনু প্রমুখ।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট