শাহজালালের লাকড়ি তোড়া উৎসব ।। মিছিলে মিছিলে রঙ্গিন সিলেট নগরী

প্রকাশিত: ১:৫৭ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২, ২০১৬

২ আগস্ট ২০১৬, মঙ্গলবার ॥ চিরাচরিত নিয়মানুসারে হযরত শাহজালাল (রহ.) উরস মোবারককে সামনে রেখে সিলেটে রাকড়ি তোড়া উৎসব সম্পন্ন হয়েছে। সোমবার লাকড়ি তোড়া উৎসবকে কেন্দ্র করে মিছিলে মিছিলে মূখর ছিলো সিলেট নগরী।

লাকড়ি তোড়া উৎসবে সিলেটের শেখঘাট কাজিরবাজারের শাহজালাল ঘাট, আসন ও বিশ্রামাগারের পক্ষ থেকে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীতে নেতৃত্ব দেন কাজিরবাজার এলাকার ব্যবসায়ী ও সিলেট সদর মৎস আড়তদার কল্যান সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক হাজী জাহাঙ্গীর আলম।

দুপুরে শাহজালাল ঘাট এলাকায় জড়ো হয়ে মোনাজাতের মাধ্যমে র‌্যালীর শূভ সূচনা করা হয়। হাতে লাঠি, লাল পতাকার সমন্বয়ে বর্নাঢ্য এ র‌্যালিটি নগরীর বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করে। পরে র‌্যালিটি ওলিকুল শিরোমনি হযরত শাহজালাল (রহ.) দরগাহে গিয়ে শেষ হয়। এ সময় র‌্যালীতে শেখঘাট কাজিরবাজার এলাকার বিভিন্ন পেশাজীবি মানুষ অংশ নেয়।
698
র‌্যালীর পূর্বে সংক্ষিপ্ত এক বক্তৃতায় শাহজালাল ঘাট, আসন ও বিশ্রামাগারের তত্বাবধায়ক হাজী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, হযরত শাহজালাল (রহ.) ৩৬০ আউলিয়া নিয়ে শেখঘাট এলাকা দিয়ে পাড়ি দিয়েছিলেন। এরপর তিনি শেখঘাটে আসন পেতে বিশ্রাম করেন। তার স্মৃতি বিজরিত ওই তিনটি স্থানকে সংরক্ষণ করা হয়েছে। আর প্রতি বছর ওরসে ওই তিনটি স্থানের সৌজন্যে লাকড়ি তোড়া উৎসব উপলক্ষে বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। এ কারণে এবারও র‌্যালীর আয়োজন করা হয়। তিনি র‌্যালীতে অংশগ্রহনকারী সবাইকে ধন্যবাদ জানান।
এদিকে, হযরত শাহজালাল (রঃ) মাজার থেকে শেখঘাটের র‌্যালীটি লাক্কাতুড়ায় গিয়ে লাকড়ি সংগ্রহে করে। পরে ওই লাকড়ি জমা দেওয়া হয় মাজারে।

  •  

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

সর্বমোট পাঠক


বাংলাভাষায় পুর্নাঙ্গ ভ্রমণের ওয়েবসাইট